BREAKING NEWS

১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  শনিবার ৫ ডিসেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মানবিকতার নজির, প্রতিদিন ১০ হাজার লোককে খাওয়ানোর দায়িত্ব নিলেন সৌরভ

Published by: Sulaya Singha |    Posted: April 5, 2020 11:26 am|    Updated: April 6, 2020 9:17 am

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: এক হাজার নয়। দু-পাঁচ হাজারও নয়। সোজা দশ হাজার! শনিবার ইসকনে গিয়ে লকডাউনের সময় রোজ দশ হাজার লোকের খাওয়ার বন্দোবস্ত করে দিলেন ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়।

করোনা বিধ্বস্ত সময়ে নানাভাবে লোকজনের সাহায্যে এগিয়ে আসছেন সৌরভ। বেশ কিছুদিন আগে প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক ঘোষণা করেছিলেন যে, পঞ্চাশ লক্ষ টাকার চাল দেবেন। সেই মতো দিন দু’য়েক আগে বেলুড় মঠে গিয়ে দু’হাজার কেজি চাল দিয়েও আসেন দাদা। শনিবার তিনি যান ইসকনে। সাধারণত ইসকন দৈনিক দশ হাজার লোককে খাইয়ে থাকে। সৌরভের উদ্যোগে ইসকন লকডাউনের সময়ে দৈনিক কুড়ি হাজার লোককে খাওয়াতে পারবে। অর্থাৎ, দৈনিক দশ হাজার লোকের খাওয়ার দায়িত্ব নিলেন সৌরভ

Sourav

[আরও পড়ুন: আইপিএলের হাত ধরেই ঘুরে দাঁড়াবে দেশের অর্থনীতি! টুর্নামেন্টের পক্ষে সওয়াল প্রাক্তনদের]

এদিন মাস্ক ও গ্লাভস পরে ইসকনে গিয়ে চাল বিতরণ করেন সৌরভ। বেলুড় মঠে তিনি যাওয়ার দিন ভিড় জমে গিয়েছিল। সামাজিক দূরত্ব সেদিন বজায় রাখা যায়নি। কিন্তু গতকাল সরকার নির্দেশিত সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেই চাল বিতরণ করেন ভারতীয় বোর্ড প্রেসিডেন্ট। এবং সৌরভের যে প্রয়াস নিয়ে উচ্ছ্বসিত ইসকন। সংস্থার মুখপাত্র তথা ভাইস প্রেসিডেন্ট রাধারামন দাস বলেন, “আমরা আগে দশ হাজার লোককে খাওয়াতাম। কিন্তু সৌরভদার সহায়তায় দিনে কুড়ি হাজার লোককে খাওয়াতে পারব। আমরা ওঁর অধিনায়কত্বে টেস্ট ম্যাচের মতো লম্বা সময় ধরে খেলে করোনাকে হারানোর চেষ্টা করব।” দিন দুয়েক আগেই ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে কথা হয়েছিল সৌরভ-সহ দেশের প্রায় ৫০জন ক্রীড়াবিদের। সেখানেও দাদা জানিয়েছিলেন, এমন কঠিন পরিস্থিতিতে তিনি সাধ্যমতো দেশবাসীর পাশে থাকার চেষ্টা করবেন। নিজের কাজ দিয়ে সেটাই প্রমাণ করছেন প্রিন্স অফ ক্যালকাটা।

পাশাপাশি মিডিয়ার সমর্থনেও দাঁড়িয়েছেন সৌরভ। মাঝে সংবাদপত্রের মাধ্যমে করোনা ভাইরাস ছড়ানোর আশঙ্কা নিয়ে গুজব রটেছিল। যা উড়িয়ে দেয় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)। এবার সৌরভও সংবাদপত্রের হয়ে ব্যাট ধরলেন। এক ভিডিও মারফত তিনি বলেন, “সারা বিশ্ব কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। আমরা সবাই লকডডাউনে আছি। এই অবস্থায় সংবাদপত্র আর টিভিই পারে আপনাদের সত্যি খবরটা পৌঁছে দিতে। আমিও রোজ সংবাদপত্র পড়ি। টিভি দেখি।
আপনারাও সেটা করুন।”

[আরও পড়ুন: আগামী মরশুমে চমক, ইস্টবেঙ্গলে খেলবেন ভারতীয় বংশোদ্ভুত ইরানি ফুটবলার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement