BREAKING NEWS

২৩ শ্রাবণ  ১৪২৭  রবিবার ৯ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

মদ্যপ অবস্থায় প্রতিবেশীকে মারধর! বিতর্কে টিম ইন্ডিয়ার প্রাক্তন তারকা

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: December 15, 2019 9:42 am|    Updated: December 15, 2019 9:42 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: একসময় জাতীয় দলের হয়ে নিয়মিত খেলেছেন। টিম ইন্ডিয়ার পেস ব্যাটারির গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ছিলেন। ২০০৮ সালে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে কমনওয়েলথ ব্যাংক সিরিজ জেতার পিছনে তাঁর ভূমিকা অবিস্মরণীয়। কথা হচ্ছে প্রবীণ কুমারের (Praveen Kumar)। যার সুইংয়ের জাদু, একসময় ঘুম কাড়ত ব্যাটসম্যানদের। এ হেন পেসার কিনা এবার মদ্যপ অবস্থায় নিজেরই প্রতিবেশীকে মারধর করলেন! এমনই এক অভিযোগ তুলেছেন দীনেশ কুমার নামের এক ব্যক্তি। তাঁর অভিযোগ, প্রবীণ তাঁকে মদ্যপ অবস্থায় মারধর করেছেন। এবং, তাঁর ছেলেকেও ঠেলে ফেলে দিয়েছেন।


ঘটনাটি উত্তরপ্রদেশের মীরাটের মুলতাননগরের। একই পাড়ায় থাকেন প্রবীণ কুমার ও দীনেশ কুমার। অভিযোগকারী দীনেশ পেশায় একজন ব্যবসায়ী। তাঁর দাবি, প্রবীণ কুমার মত্ত অবস্থায় তাঁকে ও তাঁর ছেলেকে মারধর করেছেন। দীনেশ কুমারের ছেলে নিয়মিত স্কুল বাসে করে স্কুলে যায়। শনিবারও তিনি বাইক নিয়ে স্কুল বাস আসার অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে ছিলেন রাস্তার ধারে। যথাসময়ে বাসও এসে পড়ে। বাস থেকে একে একে নামতে থাকে পড়ুয়ারা।

Praveen-V

এর মধ্যেই বাসটির পিছনে এসে যায় প্রবীণ কুমারের গাড়ি। কিন্তু, রাস্তা সরু হওয়ায় তাঁকে বাসের পিছনেই আটকে থাকতে হয়। স্কুল বাস থেকে বাচ্চাদের নামতে বেশ খানিকটা সময় লাগে। আর তাতেই বিরক্ত হয়ে যান প্রবীণ। বারবার হর্ন বাজাতে থাকেন তিনি। দীনেশ কুমার নামের ওই ব্যবসায়ী এর প্রতিবাদ করেন। তারপরই, শুরু হয় কথা কাটাকাটি। একসময় কথা কাটাকাটি গড়ায় বচসাতে।

[আরও পড়ুন: ওয়ানডে সিরিজ থেকে ছিটকে গেলেন ভুবি, ঘোষিত পরিবর্ত বোলারের নাম ]


দীনেশ কুমার প্রবীণের বিরুদ্ধে স্থানীয় থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। তাঁর দাবি, ঘটনার সময় প্রবীণ মদ্যপ অবস্থায় ছিলেন। যদিও, প্রবীণের তরফে এই সব অভিযোগ খারিজ করা হয়েছে। মদ্যপ থাকা নিয়ে কোনও মন্তব্য না করলেও, মারধরের অভিযোগ পুরোপুরি নাকচ করে দিয়েছেন টিম ইন্ডিয়ার প্রাক্তন পেসার। তাঁর কথায়, “মারধরের অভিযোগ মিথ্যে। সামান্য কথা কাটাকাটি হয়েছিল। তারপরই ব্যপারটা মিটে যায়।”

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement