৭ শ্রাবণ  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২৩ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সপ্তমবারের জন্য বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে খেলার ছাড়পত্র পেয়েছে ভারত। মঙ্গলবার ম্যাঞ্চেস্টারে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে নামার প্রস্তুতিও শুরু করে দিয়েছে মেন ইন ব্লু। মেগা ম্যাচের আগে চলুন একনজরে দেখে নেওয়া যাক এখনও পর্যন্ত যে ৬টি সেমিফাইনাল ভারত খেলেছে, তার ফলাফল।

[আরও পড়ুন: ম্যাঞ্চেস্টারে বৃষ্টিতে ভারত-নিউজিল্যান্ড ম্যাচ ভেস্তে গেলে কে যাবে ফাইনালে?]

বিশ্বকাপ ১৯৮৩, ভারত বনাম ইংল্যান্ড: ৩৬ বছর আগে প্রথমবার বিশ্বকাপ ট্রফি উঠেছিল এক ভারতীয় অধিনায়কের হাতে। সেবার কপিলদেবরা সেমিফাইনাল খেলেছিলেন এই ম্যাঞ্চেস্টারেই। প্রতিপক্ষ ছিল ইংল্যান্ড। কাকতালীয়ভাবে সেটিও ছিল বিশ্বকাপের প্রথম সেমিফাইনাল। প্রথমে ব্যাট করে ইংল্যান্ড নির্ধারিত ৬০ ওভারে তোলে ২১৩ রান। দুর্দান্ত বোলিং করেন অধিনায়ক কপিলদেব, রজার বিনি এবং মহিন্দর অমরনাথ। জবাবে ব্যাট করতে নেমে যশপাল শর্মা এবং সন্দীপ পাটিলের দুর্দান্ত অর্ধশতরানে ভর করে ৫ ওভার বাকি থাকতেই নির্ধারিত লক্ষ্যে পৌঁছে যায় টিম ইন্ডিয়া।

বিশ্বকাপ ১৯৮৭, ভারত বনাম ইংল্যান্ড: চার বছর পরই তিরাশির বদলা নেওয়ার সুযোগ পেয়ে যায় ইংল্যান্ড। এবারে মুম্বইয়ে ভারতের মুখোমুখি হয় ইংরেজরা। প্রথমে ব্যাট করে ইংল্যান্ড তোলে ২৫৪ রান। জবাবে ব্যাট করতে নেমে মহম্মদ আজহারউদ্দিনের লড়াকু ইনিংসেও শেষরক্ষা হয়নি ভারতের। ৩৫ রানে পরাস্ত হতে হয় ভারতকে।

বিশ্বকাপ ১৯৯৬, ভারত বনাম শ্রীলঙ্কা: ভারতীয় ক্রিকেটের ইতিহাসে অন্যতম কলঙ্কময় অধ্যায় ইডেনে আয়োজিত এই সেমিফাইনাল। সেবারের বিশ্বকাপে চমক হিসেবে উঠে এসেছিল শ্রীলঙ্কা। জয়সূর্য, রণতুঙ্গারা গোটা বিশ্বকে চমকে দিয়েছিলেন। ইডেন গার্ডেন্সে সেমিফাইনালে অবশ্য শুরুটা খুব একটা ভাল করেনি শ্রীলঙ্কা। প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ২৫১ রান তোলেন রোশন মহানামারা। জবাবে একটা সময় মাত্র ১ উইকেটের বিনিময়ে ৯৮ রানে পৌঁছে যায় ভারত। কিন্তু, শচীন আউট হতেই শুরু হয় উইকেটের পতনের খেলা। মাত্র ২২ রানের মধ্যে ভারত হারায় ৬টি উইকেট। এরপরই ইডেনের দর্শকরা চূড়ান্ত অসহিষ্ণুতার পরিচয় দেন। মাঠে বোতল ছোঁড়া হয়। গ্যালারিতে আগুন লাগানো হয়। প্ল্যাকার্ড, চেয়ার পোড়ানো শুরু হয়। বাধ্য হয়ে খেলা বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেন ম্যাচ রেফারি, এবং শ্রীলঙ্কাকে জয়ী ঘোষণা করা হয়।

বিশ্বকাপ ২০০৩, ভারত বনাম কেনিয়া: সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে ২০০৩ বিশ্বকাপে যেন অন্যরকম খেলছিল ভারত। অনেকেই ধরে নিচ্ছিলেন তিরাশির পুনরাবৃত্তি হতে চলেছে। সেমিফাইনালে ভারতের মুখোমুখি হয়েছিল কেনিয়া। সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের সেঞ্চুরির সুবাদে কেনিয়াকে কার্যত গুড়িয়ে দেয় টিম ইন্ডিয়া। ভারত জেতে ৯১ রানে। ১১১ রানের স্মরণীয় ইনিংস খেলেন সৌরভ।

[আরও পড়ুন: বিশ্বকাপের পরই বিজেপিতে যোগ ধোনির? জোর জল্পনা রাজনৈতিক মহলে]

বিশ্বকাপ ২০১১, ভারত বনাম পাকিস্তান: বিশ্বকাপে ভারত-পাক ম্যাচ। তার উপর আবার সেমিফাইনাল। এর থেকে বেশি কিছু ক্রিকেট সমর্থকরা কল্পনাও করতে পারেন না। তবে, এবারেও প্রত্যাশিতভাবে পাকিস্তানকে অনায়াসে হারিয়ে দেয় ভারত। প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেটের বিনিময়ে ২৬০ রান তোলে ভারত। জবাবে ২৩১ রানে শেষ হয়ে যায় পাকিস্তানের ইনিংস।

বিশ্বকাপ ২০১৫, ভারত বনাম অস্ট্রেলিয়া: গত বিশ্বকাপেও সেমিফাইনাল খেলেছে ভারত। প্রতিপক্ষ ছিল অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু, এই ম্যাচে একপেশেভাবে জেতে অজিরা। প্রথমে ব্যাট করে অস্ট্রেলিয়া তোলে ৩২৮ রান। জবাবে ব্যাট করতে নেমে অজি পেসারদের সামলাতে পারেনি ভারত। মেন ব্লু আটকে যায় মাত্র ২৩৩ রানে। ভারতের হয়ে সর্বোচ্চ ৬৫ রান করেন ধোনি।

সব মিলিয়ে এখনও পর্যন্ত মোট ৬ বার বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল খেলেছে ভারত। তার মধ্যে ৩ বার ফাইনালে খেলার সুযোগ পেয়েছে টিম ইন্ডিয়া। ৩ বার সেমিতেই শেষ হয়েছে অভিযান। এখন দেখার মঙ্গলবার বিরাট কোহলিরা নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে ফাইনালে খেলার সুযোগ পান কিনা। 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং