৭ শ্রাবণ  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২৩ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: লক্ষ্য ২৪০। বিশ্বকাপে ভারতকে যারা কাছ থেকে দেখেছেন তাদের অনেকেই হয়তো ভেবেছিলেন, এই টার্গেট ভারতের জন্য জলভাত। কিন্তু, বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে এসে যে বিরাট-রোহিতদের পুরনো রোগ মনে পড়ে যাবে সেকথা হয়তো অতি বড় বিশেষজ্ঞও ভাবতে পারেননি। ম্যাঞ্চেস্টারে সেই অভাবনীয় কাণ্ডটিই ঘটল। সুইংয়ের জুজুতে দুমড়ে-মুচড়ে গেল ভারতের টপ-অর্ডার।

[আরও পড়ুন: মেসেজ করে উত্যক্ত করছেন শামি, যুবতীর অভিযোগে নেটদুনিয়ায় ঝড়]

গতকাল বৃষ্টির জন্য রিজার্ভ ডেতে ম্যাচ খেলানোর সিদ্ধান্ত নেন ম্যাচ রেফারি। সেই মতো ৪৬ ওভার ১ বলে ৫ উইকেটের বিনিময়ে ২১১ রানের পর থেকে খেলা শুরু করে নিউজিল্যান্ড। কিউয়িরা নিজেদের ইনিংসের অবশিষ্ট ২৩ বলে যোগ করে মাত্র ২৮ রান। এদিন খেলার শুরু থেকে বল কালকের তুলনায় একটু হলেও বেশি সুইং করছিল। যার ফায়দা তোলেন দুই ভারতীয় পেসার। এদিন ৩টি উইকেট তুলে নেন ভুবনেশ্বর-বুমরাহরা।

[আরও পড়ুন: বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল-ফাইনাল ভেস্তে গেলে কে হবে চ্যাম্পিয়ন?]

মুশকিল হল যে সুইংয়ে ভর করে ভারত নিউজিল্যান্ডকে ২৪০ রানের মধ্যে আটকে দিল, সেই সুইংই কাল হল বিরাটদের। ম্যাট হেনরি এবং ট্রেন্ট বোল্টের যুগলবন্দি ভারতের টপ-অর্ডারকে তছনছ করে দিল। দুর্দান্ত ফর্মে থাকা লোকেশ রাহুল, রোহিত শর্মা এবং বিরাট কোহলি, তিনজনেই আউট হলেন মাত্র ১ রান করে। দীনেশ কার্তিক আউট হলেন মাত্র ৬ রানে। এই ম্যাচের আগে গোটা টুর্নামেন্টে ভারত প্রথম দশ ওভারের মধ্যে খুঁইয়েছিল ৪ উইকেট। স্রেফ সেমিফাইনালেই প্রথম দশ ওভারে চার উইকেট খোয়াতে হল। লজ্জাজনক পরিসংখ্যানের মালিক হলেন অধিনায়ক কোহলিও। এই নিয়ে তৃতীয় বার বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল খেলছেন তিনি। অথচ, একবারও তাঁর স্কোর দশের গণ্ডি টপকাইনি। ২০১১ সালে তিনি ১ রান করে আউট হন, ২০১৫ বিশ্বকাপে আউট হন ৯ রানে। আর এবারে করলেন মাত্র ১। কঠিন পরিস্থিতির মুখে লড়াই দিলেও সেট হওয়ার পর আউট হয়ে ভারতকে আরও ডুবিয়ে দিলেন ঋষভ। তিনি আউট হলেন ৩২ রানে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং