BREAKING NEWS

১০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৬ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ফেরাতে হবে রাসেলকে! মরণবাঁচন ম্যাচের আগে কেকেআরের চিন্তা টপ অর্ডার

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: October 29, 2020 1:49 pm|    Updated: October 29, 2020 1:49 pm

An Images

দীপ দাশগুপ্ত: IPL-এর গ্রুপ পর্বের এই শেষ পর্বটা খুব ইন্টারেস্টিং হয়ে গেল। দিন তিনেক আগে পর্যন্তও মনে হচ্ছিল যে, তিনটে টিমের প্লে অফ নিশ্চিত। বিরাট কোহলির (Virat kohli) আরসিবি। রোহিত শর্মার মুম্বই ইন্ডিয়ান্স (Mumbai Indians)। শ্রেয়স আইয়ারের দিল্লি ক্যাপিটালস (Delhi Capitals)। শুধু প্লে অফের চার নম্বর স্লটটা নিয়ে লড়াই চলবে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব আর কেকেআরের। কিন্তু শ্রেয়সের দিল্লি যে ভাবে পরের পর হারছে, তাতে এখন মনে হচ্ছে, দু’টো টিম মোটামুটি কনফার্ম।
আরসিবির বিরুদ্ধে মুম্বই জিতে যাওয়ায় ওরা কার্যত প্লে–অফে। RCBও যাবে কারণ, বিরাটদের শেষ দু’টো ম্যাচের একটায় জিততে হবে মাত্র। উল্টো দিকে, দিল্লি ক্যাপিটালসের শেষ দু’টো ম্যাচ মুম্বই এবং আরসিবির সঙ্গে। সহজ ম্যাচ একটাও নয়। এবং দিল্লির দু’টো ম্যাচই হারার সম্ভাবনা আছে। অতএব, তখন প্লে অফের দু’টো স্লট খুলে যাবে। এবং যাবে তিনটের মধ্যে যে কোনও দু’টো টিম। KKR, দিল্লি, পাঞ্জাবের মধ্যে যে কোনও দু’টো।

[আরও পড়ুন: দিল্লির বিরুদ্ধে দুরন্ত ব্যাটিং করা ঋদ্ধিমানের চোট কতটা গুরুতর?‌ জানাল সানরাইজার্স শিবির]

প্রশ্ন হল, কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিরুদ্ধে বিশ্রী হারার পর কেকেআর প্লে-অফে যেতে পারবে কি না? প্রথমেই বলি, মহেন্দ্র সিং ধোনির (Mahendra Singh Dhoni) চেন্নাই সুপার কিংসের বিরুদ্ধে ইয়ন মর্গ্যানদের আজকের ম্যাচটা সোজাসুজি জীবন-মৃত্যুর ম্যাচ। যদি আজ কেকেআর জেতে, প্লে অফের দৌড়ে থাকবে। কিন্তু হেরে গেলে অনেকটাই পিছিয়ে পড়বে।

দু’টো টিম বিচারে কেকেআরের আজ হারার কথা নয়। কিন্তু কয়েকটা বিষয় আমাকে ভাবাচ্ছে। প্রথমত, সিএসকে কোহলির আরসিবিকে আট উইকেটে হারিয়ে নামছে। ওরা আর প্লে–অফের দৌড়ে নেই। কিন্তু যে কোনও টিমের প্লে–অফ যাওয়া পণ্ড করে দিতে পারে।
দ্বিতীয়ত, কেকেআরের ব্যাটিং। দিল্লি ক্যাপিটালসের বিরুদ্ধে সুনীল নারিন আর নীতিশ রানা খেলে দিয়েছিল বলে, কেকেআর ম্যাচ বার করে দিয়েছিল। কিন্তু সেটা রোজ রোজ ঘটবে না। সত্যি বলতে কী, কেকেআরের ব্যাটিংয়ে আমি তেমন গভীরতা দেখতে পাচ্ছি না। সঙ্গে ব্যাটিং অর্ডার নিয়ে ভুলভ্রান্তি এখনও চলছে। জানি না কোন যুক্তিতে দীনেশ কার্তিককে চার নম্বরে পাঠানো হচ্ছে? সেটাও ইয়ন মর্গ্যানের আগে? যেখানে ডিকে ফিনিশার হিসেবে অনেক ভাল। সেটা দেখাও গিয়েছে। তার উপর ধরুন কেকোরের ছ’নম্বরে আসছে প্যাট কামিন্স। যে টিমের নাম্বার সিক্স কামিন্স– তাদের ব্যাটিং গভীরতা ঠিক কতটা, আপনারাই বলুন।

[আরও পড়ুন: অস্ট্রেলিয়া সফরের সূচি ঘোষণা হতেই ধোনিকে ধন্যবাদ দিচ্ছে BCCI, কেন জানেন?]

সিএসকের বিরুদ্ধে দু’টো জিনিস করতে হবে। এক, সুনীল নারিনকে ওপেনিংয়ে পাঠিয়ে দেওয়া যেতে পারে। মনে রাখতে হবে, সিএসকের কোনও এক্সপ্রেস গতির পেসার নেই। দীপক চাহার বল সুইং করাবে। কিন্তু শর্ট করাতে পারবে না। যে কারণে নারিনকে ওপেনিংয়ে পাঠালে লাভ। কারণ ভাল শর্ট বোলিং না হলে নারিনের কোনও অসুবিধে নেই। মারমার শুরু করে দেবে। দ্বিতীয়ত, আন্দ্রে রাসেলকে দরকার। জানি না, ও কতটা ফিট। কিন্তু যদি পঁচাত্তর শতাংশ ফিটও হয়, বলব নামিয়ে দাও। রাসেল এলে ছ’য়ে যাবে ও। কামিন্স যাবে সাত নম্বরে। ব্যাটিং গভীরতা বাড়বে। আর রাসেল যদি গোটা দু’য়েক ওভার বল করে দিতে পারে, তা হলেও লাভ।
আর সময় নেই কেকেআর। যা করার আজকেই করো। প্লে অফ যাওয়া না যাওয়া কিন্তু আজ থেকে তোমাদেরই হাতে!

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement