৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনা মোকাবিলায় ফের ‘মাসিহা’ শচীন, ৪ হাজার দুস্থকে করলেন আর্থিক সাহায্য

Published by: Sulaya Singha |    Posted: May 9, 2020 12:56 pm|    Updated: May 9, 2020 12:56 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ব্যাট হাতে বাইশ গজে দাপট দেখিয়ে শুধু দেশবাসী নয়, ক্রিকেটকে গর্বিত করেছেন তিনি। বহুবার বিশ্বদরবারে ভারতের মুখ উজ্জ্বল করেছেন। তাই তো তিনি ক্রিকেট ঈশ্বর। তবে শুধুই মাঠে নয়, মাঠের বাইরেও কিন্তু দেশের দুর্দিনে তিনি হয়ে উঠেছেন দুস্থদের ‘মাসিহা’। ঠিক ধরেছেন, কথা হচ্ছে শচীন তেণ্ডুলকরের। লকডাউনের আবহে যিনি ফের দরিদ্রদের সাহায্যার্থে এগিয়ে এলেন।

করোনা মোকাবিলায় কেন্দ্র ও রাজ্যকে আর্থিক সাহায্য করেছিলেন। ৫ হাজার দুস্থকে খাওয়ানোর দায়িত্বও নিয়েছিলেন মাস্টার ব্লাস্টার। এবার চার হাজার গরিব মানুষকে আর্থিক সাহায্য করলেন তিনি। যাঁদের মধ্যে রয়েছে বৃহন্মুম্বই পুরনিগমের (BMC) অন্তর্গত স্কুলের শিশুরাও। মুম্বইয়ের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা Hi5 ফাউন্ডেশনে ওই মানুষগুলির জন্য আর্থিক অনুদান দিয়েছেন তিনি। যদিও সাহায্যের জন্য কত অর্থ দিয়েছেন, তা জানা যায়নি। মাস্টার ব্লাস্টারকে টুইট করে ধন্যবাদও জানিয়েছে সংস্থাটি। লেখে, “এই সময় আরও একবার এগিয়ে আসার জন্য ধন্যবাদ। COVID-19 মোকাবিলায় ত্রাণ তহবিলে আপনার অনুদান চার হাজার দুস্থকে অত্যন্ত সাহায্য করবে। উপকৃত হবে বিএমসির স্কুলগুলির কচিকাঁচারাও।” উত্তরে টুইটারে শচীন লেখেন, “দিনমজুরদের পরিবারগুলির পাশে দাঁড়িয়েছে Hi5। ওদের জন্য অনেক শুভেচ্ছা রইল।” 

[আরও পড়ুন: ‘লিগে বিদেশি কমিয়ে ভারতীয়দের সুযোগ দিন’, ফেডারেশনকে পরামর্শ ইগর স্টিমাচের]

করোনাকে ঠেকাতে একজোট হয়ে লড়ছে গোটা দেশ। সাধ্যমতো সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিচ্ছেন অনেকেই। ব্যতিক্রমী নন শচীনও। মহারাষ্ট্র সরকার এবং কেন্দ্রর ত্রাণ তহবিলে ২৫ লক্ষ করে মোট ৫০ লক্ষ টাকা অনুদান দিয়েছিলেন তিনি। এরপরই শোনা গিয়েছিল, আপনালয় নামের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সঙ্গে হাত মিলিয়ে এক মাসের জন্য পাঁচ হাজার মানুষের মুখে অন্ন তুলে দেওয়ার দায়িত্ব কাঁধে নিয়েছেন শচীন। এবার আর্থিকভাবে অসহায় মানুষগুলির পাশে দাঁড়িয়ে ফের অনুরাগীদের মন জয় করলেন তিনি।

যতদিন যাচ্ছে, দেশে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। যার জেরে বেড়েছে লকডাউনের সময়সীমাও। এতেই স্পষ্ট, করোনাকে নির্মূল করতে এখনও অনেকখানি লড়াই বাকি। এর মধ্যে শচীনের রাজ্য মহারাষ্ট্রের পরিস্থিতিই সবচেয়ে শোচনীয়। সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা ১৯ হাজার ছাড়িয়েছে। সাতশোরও বেশি পজিটিভ রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এমন অবস্থায় শচীনের এই মানবিক পদক্ষেপ প্রশংসা কুড়োচ্ছে নেটদুনিয়ার।

[আরও পড়ুন: লকডাউনে খাবার পাচ্ছেন‌ না অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা বিশ্বকাপে বাংলার একমাত্র প্রতিনিধি]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement