১ আশ্বিন  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

ভারত: ৪১৬ ও ১৬৮/৪ ডিক্লেয়ার (রাহানে-৬৪*, বিহারী-৫৩* রোচ-৩-২৮)
ওয়েস্ট ইন্ডিজ: ১১৭ ও ২১০ (ব্রুকস-৫০, হোল্ডার-৩৯ শামি-৩-৬৫, জাদেজা-৩-৫৮)
২৫৭ রানে জয়ী ভারত

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সিরিজ জিতবে ভারত, আর সেখানে ক্যাপ্টেন কোহলির কোনও রেকর্ড থাকবে না, তাও কি সম্ভব? কোহলি আর রেকর্ড যে একপ্রকার সমার্থকই হয়ে উঠেছে। ক্যারিবিয়ান সফরেও যার ব্যতিক্রম হল না। তবে এবার ব্যাটসম্যান হিসেবে নয়, অধিনায়ক হিসেবে ইতিহাস গড়লেন তিনি। টেস্ট জয়ের নিরিখে ছাপিয়ে গেলেন মহেন্দ্র সিং ধোনিকেও।

ব্যাটে-বলে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টির পর টেস্ট সিরিজও পকেটে পুরল টিম ইন্ডিয়া। বিশেষ করে ভারতের বিধ্বংসী বোলিং বিভাগের জন্য দ্বিতীয় টেস্ট শেষ হয়ে যায় সাড়ে তিন দিনেই। জামাইরায় সোমবার ২৫৭ রানে হারে হোল্ডার অ্যান্ড কোং। ক্যারিবিয়ানদের হোয়াইটওয়াশ করেই বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু করল ভারত। শুধু তাই নয়, ২-০ টেস্ট জিতে ১২০ পয়েন্ট ঝুলিতে ভরে চ্যাম্পিয়নশিপের তালিকার শীর্ষ স্থান দখল করলেন কোহলিরা। প্রথমবার ওয়েস্ট ইন্ডিজকে টেস্টে তাদেরই ঘরের মাঠে ধুয়ে মুছে সাফ করে দিল টিম ইন্ডিয়া। আর সেই সঙ্গে ধোনিকে টপকে ২৮টি টেস্ট জয়ের মালিক হয়ে গেলেন ক্যাপ্টেন কোহলি। দলকে নেতৃত্ব দিয়ে ২৭টি টেস্ট জিতেছিলেন মাহি। ৪৮ টেস্টে অধিয়ানকত্ব করে সবচেয়ে বেশি টেস্ট জয়ের নিরিখে স্টিভ ওয়া (৩৬) এবং রিকি পন্টিংয়ের (৩৩) পরই তিন নম্বরে উঠে এলেন কোহলি। যা নিঃসন্দেহে বড় সাফল্য। যাঁরা তাঁর নেতৃত্ব নিয়ে বারবার প্রশ্ন তুলেছেন, পরিসংখ্যান দিয়েই তাঁদের মুখ বন্ধ করে দিলেন বিরাট। এতো গেল অধিনায়ক কোহলির কথা। ক্যারিবিয়ান সফর থেকে আর কী কী পেল ভারত? চলুন দেখে নেওয়া যাক।

[আরও পড়ুন: বড়সড় বিপাকে শামি, ভারতীয় পেসারের বিরুদ্ধে জারি গ্রেপ্তারি পরোয়ানা]

বুমবুম বুমরাহ: তিনি যে প্রত্যেক ব্যাটসম্যানের কাছেই ত্রাস হয়ে উঠেছেন, একথা মেনে নিয়েছেন স্বয়ং ভিভ রিচার্ডসও। যার প্রতিফলন ঘটেছে এবারও। প্রথম টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে চার দিয়ে তুলে নিয়েছিলেন পাঁচটি উইকেট। আর দ্বিতীয় টেস্টে তো হ্যাটট্রিকই করে ফেললেন। তাঁর মতো পেসার পেয়ে ভারতীয় দলের বোলিং লাইন আপ যে সম্বৃদ্ধ, তা বলাই বাহুল্য।

ব্যাটসম্যান ইশান্ত: প্রথমবার টেস্টে হাফ সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন ইশান্ত। যা ভারতীয় দলের পক্ষে নিঃসন্দেহে সুখবর। এই সিরিজে টেল এন্ডারদের উপর অনেকটাই ভরসা করা গিয়েছে। রবীন্দ্র জাদেজাও যেমন বোলিংয়ের পাশাপাশি ব্যাট হাতেও ভাল খেলেছেন। তাছাড়া বিদেশের মাটিতে উইকেট নেওয়ার নিরিখে কপিল দেবকেও ছাপিয়ে গিয়েছেন ইশান্ত। বর্তমানে তাঁর ঝুলিতে ১৫৮টি উইকেট। বিদেশের মাটিতে ২০০টি উইকেটের মালিক অনিল কুম্বলের পরই রয়েছেন তিনি।

ঋষভ পন্থ: উইকেটের পিছনে দাঁড়িয়ে মহেন্দ্র সিং ধোনির রেকর্ড টপকে যাওয়া মুখের কথা নয়। আর সেটাই এই সিরিজে করে দেখিয়েছেন দলের তরুণ উইকেটকিপার। ব্যাট হাতে বিশেষ সাফল্য না পেলেও নিজের সেরাটা দেওয়ার তাগিদ রয়েছে তাঁর মধ্যে।

[আরও পড়ুন: টেস্ট ক্রিকেটে নয়া রেকর্ড ঋষভ পন্থের, টপকে গেলেন ধোনিকে]

হনুমা বিহারী: দুরন্ত ছন্দে থাকা রোহিত শর্মাকে বসিয়ে হনুমাকে দলে নেওয়া নিয়ে যাঁরা প্রশ্ন তুলেছিলেন, তাঁদের মুখে ঝামা ঘষে দিয়েছেন এই ব্যাটসম্যান। ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে মিডল অর্ডারে ভারত এক নতুন তারার খোঁজ পেল বলাই যায়।

ওপেনিং জুটি: এই বিভাগটাই এখনও চিন্তায় রাখছে ভারতীয় শিবিরকে। কোনও দলের ওপেনিং জুটির কাঁধেই ভিত তৈরির দায়িত্ব থাকে। যে দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ কে এল রাহুল ও মায়াঙ্ক আগরওয়াল। মায়াঙ্ক যাও বা প্রথম ইনিংসে হাফ সেঞ্চুরি করেছিলেন, গোটা সিরিজে রাহুল বেশ হতাশই করলেন। তাই এই বিভাগে নতুন করে ভাবতেই পারে টিম ম্যানেজমেন্ট।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং