১৬ ফাল্গুন  ১৪২৬  শনিবার ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

কে হবেন ইস্টবেঙ্গলের পরবর্তী কোচ? আলেজান্দ্রোর বিদায়ের দিনই ভেসে উঠল তিনটি নাম

Published by: Sulaya Singha |    Posted: January 22, 2020 9:34 am|    Updated: January 22, 2020 5:14 pm

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: ডার্বি হেরে লিগে সাত নম্বরে থাকা ইস্টবেঙ্গলকে আরও চাপে ফেলে সরে দাঁড়িয়েছেন কোচ আলেজান্দ্রো। জানিয়েছেন, ইস্তফার কারণ ব্যক্তিগত সমস্যা। কিন্তু তাঁর ছেড়ে যাওয়া আসনে বসার দৌড়ে কে এগিয়ে? পদত্যাগ করার সঙ্গে সঙ্গেই ভেসে উঠেছে তিন কোচের নাম।

গত মরশুমে আলেজান্দ্রোর সহকারি মারিও, যাঁর আলেজান্দ্রোর মতোই উয়েফা প্রো লাইসেন্স রয়েছে। আলেজান্দ্রোর সঙ্গে কাজ করবেন না বলে দল ছেড়েছিলেন। নাম উঠে এসেছে মোহনবাগানের প্রাক্তন কোচ করিম বেঞ্চেরিফা এবং বেঙ্গালুরুর প্রাক্তন কোচ অ‌্যাশলে ওয়েস্টউডেও। তিনজনেই ফোনে কথা বলেছেন কোয়েস কর্তাদের সঙ্গে। সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে কয়েকদিনের মধ‌্যেই। যেহেতু দলের প্রস্তুতির জন‌্য আর সময় পাওয়া যাবে না, তাই ভারতীয় ফুটবলে কোচিং করে যাওয়া কাউকেই দলের দায়িত্ব দিতে চাইছে কোয়েস।

প্রশ্ন উঠেছে, আলেজান্দ্রো কেমন পেশাদার কোচ, যিনি দলকে বিপদে ফেলে দায়িত্ব ছাড়লেন? কোচের পদত্যাগের সঙ্গে জল্পনা, তাঁর আনা অন‌্য স্প‌্যানিশরাও নাকি খেলতে চাইছেন না। এমনকী তাঁর স্প‌্যানিশ কোচিং স্টাফরাও নাকি মঙ্গলবার পদত‌্যাগ করতে চেয়েছিলেন কোয়েস কর্তাদের কাছে। কোয়েসের তরফে তাঁদের পদত‌্যাগ করতে নিষেধ করা হয়। সব মিলিয়ে নিজের পদত‌্যাগের সঙ্গে পুরো দলটাকেই ঘেঁটে দিয়েছেন আলে স্যর। ডার্বি হেরে একদিন আগে লাল-হলুদ সমর্থকদের আই লিগ জেতার স্বপ্ন ধরে রাখার কথা বললেও পরদিন দলকে অন্ধকারে ফেলে ‘পালানো’য় সমর্থকরা বেশ অবাক। ডার্বি হারার পর তাঁর স্বাধীনতায় কেউ হস্তক্ষেপ করেননি। তাহলে? শোনা যাচ্ছে, তিনি বুঝেছিলেন চেন্নাই ম্যাচে হারলে মার্কোস, মার্টিকে সরানোর দাবি উঠবে। সঙ্গে অবনমনের আওতায় পড়বে দল। তখন তাঁকে সরিয়ে দেওয়া হতে পারে। পরিস্থিতি বুঝে তাই আগে সরে দাঁড়ালেন।

Karim
করিম বেঞ্চারিফা

[আরও পড়ুন: ৪১ রানে জাপানকে গুটিয়ে দিয়ে বিশ্বকাপে বড় জয় ভারতের, নজর কাড়লেন রবি]

সাংবাদিক সম্মেলনে কোয়েস কর্তা সুব্রত নাগ বলেন, “আলেজান্দ্রো ডার্বির আগে সমস্যার কথা বলেছিলেন। এদিন আলোচনার পর তাঁকে দায়িত্ব থেকে মুক্তি দেওয়া হল। নতুন কোচ না আসা পর্যন্ত আলেজান্দ্রোর কোচিং স্টাফরাই কোচিং করবেন।’’ অর্থাৎ আগামী ২৫ জানুয়ারি চেন্নাইয়ের বিরুদ্ধে সহকারী কোচরাই থাকবেন ইস্টবেঙ্গলের ডাগআউটে। তারই মধ্যে কোয়েস এবং ইস্টবেঙ্গল কর্তাদের মধ্যে আলোচনা শুরু হয় পরবর্তী কোচ কে? কোয়েস কর্তারা জানান, আলেজান্দ্রোর জায়গায় দলের দায়িত্ব বিদেশি কোচের হাতেই তাঁরা দিতে চান। ২৫ জানুয়ারি চেন্নাইয়ের পর ১ ফেব্রুয়ারি অ্যারোজের বিরুদ্ধে খেলবে লাল-হলুদ। তার মধ্যেই নতুন কোচের নাম ঠিক করবে কোয়েস। আলোচনায় ঠিক হয়েছে, কোয়েস কর্তারা যে বিদেশি কোচের নাম ঠিক করুন, তা ঘোষণার আগে ইস্টবেঙ্গল ক্লাব কর্তাদের জানাবেন। কিন্তু এভাবে মরশুমের মাঝে এসে নতুন বিদেশি কোচ ইস্টবেঙ্গলকে সাফল্য আনতে পারবেন? ইস্টবেঙ্গলের শীর্ষ কর্তা দেবব্রত সরকার বলেন, “এখনও ১৩টা ম্যাচ বাকি। জিততে শুরু করলে অনেক অঘটন ঘটানো সম্ভব। তবে আলেজান্দ্রো যে এই সময় কোচের পদ থেকে সরে দাঁড়াবেন, সেটা আমরা বুঝতে পারিনি। সুব্রতর সঙ্গে মিটিংয়ে জানতে পারলাম, আলেজান্দ্রো পদত্যাগ করেছেন। কেউ তাঁকে সরিয়ে দেয়নি।”

আলোচনায় ক্লাব কর্তারা অবিলম্বে মার্কোস আর মার্টির বদলে ভাল স্ট্রাইকার আর স্টপার আনার দাবিও তোলেন। এরই মধ্যে আবার শোনা গেল, ইস্টবেঙ্গলে সই করতে চলেছেন আনসুমানা ক্রোমা। মরশুমের মাঝপথে পারাবারিক সমস‌্যার জন‌্য দেশে ফিরে গিয়েছেন বোরহা। তাঁর জায়গায় ইস্টবেঙ্গল ক্রোমাকে সই করাচ্ছে। ক্রোমার সঙ্গে নাকি চুক্তিও হয়ে গিয়েছে। ভবানীপুরের সঙ্গে চুক্তি প্রায় পাকা হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু শেষমুহূর্তে সিদ্ধান্ত বদলে ইস্টবেঙ্গলে সই করছেন ক্রোমা।

[আরও পড়ুন: অস্ট্রেলিয়ার দাবানল বিধ্বস্তদের পাশে শচীন, চ্যারিটি ম্যাচে অংশ নিচ্ছেন মাস্টার ব্লাস্টার]

An Images
An Images
An Images An Images