১৪ মাঘ  ১৪২৯  রবিবার ২৯ জানুয়ারি ২০২৩ 

READ IN APP

Advertisement

স্বপ্ন ভাঙল নেইমারের, রূপকথার প্রত্যাবর্তন ঘটিয়ে সেমিফাইনালে ক্রোয়েশিয়া

Published by: Biswadip Dey |    Posted: December 9, 2022 11:26 pm|    Updated: December 10, 2022 1:44 am

Brazil out of the world cup, Croatia through to the semifinal । Sangbad Pratidin

 ক্রোয়েশিয়া১ (৪) ব্রাজিল – ১ (২)
 (পেটকোভিচ) (নেইমার)
দুলাল দে, দোহা: এবারও অধরা হেক্সা। ফের চার বছরের প্রতীক্ষা। কাতারে হৃদয়বিদারক ছবি। নেইমার কাঁদছেন।গ্যালারিতে উপস্থিত থাকা ব্রাজিলীয় সমর্থকদেরও ছুঁয়ে যাচ্ছে তাঁর কান্না।কাঁদছে গোটা ব্রাজিল (Brazil)। ম্যাচে দুরন্ত গোল করলেন নেইমার। কিন্তু কে জানত, রাতটা তাঁর নয়। রাতটা ব্রাজিলেরও নয়। এভাবেও যে ছিটকে যেতে হবে বিশ্বকাপ থেকে, তার ইঙ্গিত কি কেউ পেয়েছিলেন আগে?

টাইব্রেকারে আবারও জ্বলে উঠলেন ক্রোয়েশিয়ার (Croatia) গোলকিপার লিভাকোভিচ। ব্রাজিলের রডরিগোর প্রথম শটটাই থামিয়ে দিলেন। মারকুইনহোসের শট আছড়ে পড়ল পোস্টে।তারপর দৌড় শুরু করে দিলেন লুকা মডরিচরা। স্বপ্নের দৌড় চলছে তাঁদের। এদিন ৯০ মিনিটে গোল করতে পারেনি কোনও দলই। ১২০ মিনিটের শেষে খেলার ফল ছিল ১-১। টাইব্রেকারে  হৃদয়ভাঙল তিতের (Tite)। 

[আরও পড়ুন: আক্রমণ করেও গোলমুখ খুলতে ব্যর্থ ইস্টবেঙ্গল, দুরন্ত জয়ে ফের লিগ শীর্ষে হায়দরাবাদ]

ব্রুনো পেটকোভিচকে গেমচেঞ্জার বলেছিলেন তাঁর দেশেরই খেলোয়াড় মাতো গ্রিজিচ। ভারতে আইএসএল খেলে গিয়েছেন তিনি। মাতো বলেছিলেন, পেটকোভিচ ক্রোয়েশিয়ার লিগে খেলেন। বহির্বিশ্ব তাঁকে খুব একটা চেনে না, তাঁর সম্পর্কে খুব একটা জানেও না। তিনি যে কোনও সময়ে চমকে দিতে পারেন। আর সেটাই হল কাতারের হাইভোল্টেজ কোয়ার্টার ফাইনালে। খেলার বয়স তখন ১১৭ মিনিট। সেমিফাইনাল আর ব্রাজিলের মধ্যে আর তিন মিনিটের ব্যবধান। ব্রাজিল তখনও এগিয়ে নেইমারের গোলে। ঠিক সেই সময়ে পেটকোভিচ সমতা ফেরালেন। ক্রোয়েশিয়াকে লড়াইয়ে রেখে দিলেন তিনি। 

তার আগে ম্যাজিক দেখিয়ে গোল করেন নেইমার। ব্রাজিলের ১০ নম্বরের সর্পিল গতি ক্রোয়েশিয়ার জমাট ডিফেন্সে ভাঙন ধরিয়ে দেয়। নেইমারের ওই কোটি টাকার গোল মুহূ্র্তে এনে দিয়েছিল উৎসবের আবহ। ফুটবল-সম্রাট পেলের করা ৭৭টি গোলের মাইলফলক ছুঁয়ে ফেলেন নেইমার।এমন রাতেও তাঁকে কাঁদতে কাঁদতে মাঠ ছাড়তে হল!  

৯০ মিনিটের খেলা শেষ হয়ে ম্যাচ ততক্ষণে গড়িয়েছে এক্সট্রা টাইমে। এক্সট্রা টাইমের প্রথমার্ধও প্রায় শেষের দিকে। সমর্থকরা অনেকেই মনে করছেন ক্রোয়েশিয়া আবার হয়তো ম্যাচটা নিয়ে যাবে টাইব্রেকারে। শেষমেশ অবশ্য তাই করেছে। কিন্তু নেইমারের গোলটা চোখে লেগে থাকবে দীর্ঘদিন। সর্পিল গতিতে ক্রোয়েশিয়ার ডিফেন্স ভেঙে নেইমার যখন গোলের গন্ধ পেতে শুরু করেছেন, তখন তাঁর সামনে কেবল ক্রোয়েশিয়ার গোলকিপার লিভাকোভিচ। উপস্থিত বুদ্ধির পরিচয় দিলেন ব্রাজিলের ১০ নম্বর জার্সিধারী। লিভাকোভিচের মাথার উপর দিয়ে বল জালে জড়িয়ে দিলেন। ওরকম গোলের পরে আর কি কেউ শান্ত থাকতে পারেন! গ্যালারি উত্তাল।

এবারের বিশ্বকাপে শুরুটা ভাল হয়নি নেইমারের। সার্বিয়ার বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচে চোট পেয়েছিলেন। চোটের কারণে বিশ্বকাপও শেষ হয়ে যেতে পারে, এমন একটা আশঙ্কা তৈরি হয়েছিল। তবে চোট কাটিয়ে নেইমার ফেরেন শেষ ষোলোয়। সেই ম্যাচে সেরাও হন। ছন্দ ফিরে পান নেইমার। এদিন তাঁর গোলে এগিয়ে যাওয়ার পরেও ম্যাচটা যে টাইব্রেকারে গড়াল, তার পুরো কৃতিত্বই পেটকোভিচের। ক্রোয়েশিয়ার জয়ের পিছনে কৃতিত্ব ভ্লাসিচ, লোভরো, মডরিচ এবং ওরসিচের। পেনাল্টি শুট আউটে চারটে শটের মধ্যে চারটেতেই গোল করেন তাঁরা। আর হতভাগ্য ব্রাজিল। পেনাল্টি শুট আউটে ব্রাজিলের রডরিগোর প্রথম শটটাই থামিয়ে দেন লিভাকোভিচ। কাসিমেরো ও পেড্রো গোল করলেও মারকুইনহোস গোল করতে ব্যর্থ হন। ১২০ মিনিট মরিয়া হয়ে লড়ল ক্রোয়েশিয়া। টাইব্রেকারে স্নায়ুর পরীক্ষা দিল তারা। শুধু এদিন নয়, জাপানের বিরুদ্ধে প্রি কোয়ার্টার ফাইনালে একই ভাবে জিতেছিলেন মডরিচরা। 

ব্রাজিল-ক্রোয়েশিয়া ম্যাচ যে দারুণ উপভোগ্য হবে, তা জানাই ছিল। ট্যাকটিকাল লড়াই হবে, সেটাও বলেছিলেন বিশেষজ্ঞরা। এই ব্রাজিলের বিরুদ্ধে ক্রোয়েশিয়া রক্ষণাত্মক নীতি নিলে তা বুমেরাং হয়ে ফিরতে পারে, এভাবেও আগাম সতর্কতা জারি হয়েছিল মডরিচদের জন্য। ক্রোয়েশিয়া নিজেদের শক্তি অনুযায়ী ব্রাজিলের পরীক্ষা নিয়ে গিয়েছে।প্রথমার্ধে ক্রোয়েশিয়ারই দাপট ছিল। পাস খেলে, বলের উপরে নিয়ন্ত্রণ রেখে ব্রাজিলকে হতোদ্যম করার চেষ্টা করেছিলেন মডরিচ-কোভাচিচরা। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে আবার উলটো ছবি। ব্রাজিল প্রাধান্য বজায় রাখে। ক্রোয়েশিয়া দলের গড় বয়স বেশি। কিন্তু দলটা দারুণ লড়াকু। হাল ছেড়ে দেয় না। নাহলে নেইমারের ওরকম দুরন্ত গোলের পরে ওভাবে ফিরে আসা যায়! তার পরে পেনাল্টি শুট আউটে রূপকথা লিখে শেষ চারে ক্রোয়েশিয়া। 

[আরও পড়ুন: রোনাল্ডোকে ছাড়া পর্তুগাল দৃষ্টিনন্দন, বলছেন সিআর সেভেনের একসময়ের সতীর্থ]

 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে