২ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ২০ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

ভারত: ১ (নরেন্দর)
সিরিয়া: ১ (রিনজুয়ালা)

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রথম ম্যাচে তাজিকিস্তানের বিরুদ্ধে এগিয়ে থেকেও হার। তারপর ব়্যাঙ্কিংয়ে পিছিয়ে থাকা দক্ষিণ কোরিয়ার কাছে লজ্জাজনকভাবে আত্মসমর্পণ। এমন পরিস্থিতিতে কেবলমাত্র নিয়মরক্ষার ম্যাচে আত্মবিশ্বাস ফিরিয়ে সিরিয়ার বিরুদ্ধে ঘুরে দাঁড়ানো বেশ কঠিন ছিল। কিন্তু বিশ্বকাপ কোয়ালিফায়ারের আগে জয়ে ফেরাটাও ভারতীয় শিবিরের মোটিভেশনের জন্য ছিল অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তবে এগিয়ে গিয়েও জিততে পারলেন না সুনীলরা। ড্র করেই সন্তুষ্ট থাকতে হল তাঁদের। একটি ম্যাচও না জিতে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিল হোম ফেভরিটরা।

ঘরের মাঠে এবার ইন্টার কন্টিনেন্টাল কাপে বেশ নিরাশ করলেন সুনীল ছেত্রীরা। যদিও সব সমালোচনা ফুটবলারদের প্রাপ্য নয়। নেপথ্য কারিগরও এর জন্য অনেকখানি দায়ী। কোচ ইগর স্টিমাচ যেভাবে প্রতি ম্যাচে দল পরিবর্তন করছেন, তাতে দলের ধারাবাহিকতা নষ্ট হওয়াই স্বাভাবিক। এদিনও আটটি বদল এনেছিলেন তিনি। গত ম্যাচে খেলা প্রীতম কোটাল, অমরজিৎ এবং অধিনায়ক সুনীলকে রেখে নতুন করে দল সাজিয়েছিলেন কোচ। আবার রাহুল ভেকেকে খেলান সেন্টার ডিফেন্সে। প্রথমার্ধ গোলশূন্য থাকার পর দ্বিতীয়ার্ধে কর্ণার কিককে কাজে লাগিয়ে গোল করে ভারতকে এগিয়ে দেন নরেন্দর গেহলট। এদিন একাধিকবার ভারতের রক্ষণ ভাঙার চেষ্টা করেও অবশ্য ব্যর্থ হন সিরিয়ান স্ট্রাইকাররা। কিন্তু পেনাল্টি উপহার পাওয়ায় জয় অধরাই থেকে গেল মেন ইন ব্লুর।

[আরও পড়ুন: গাপ্তিলের ওভার থ্রো নিয়ে মুখ খুললেন উইলিয়ামসন, নিউজিল্যান্ডে স্থগিত সেলিব্রেশন]

গত ম্যাচে তাজিকিস্তানের কাছে ০-২ গোলে পরাস্ত হয় সিরিয়া। তাই ভারতের বিরুদ্ধে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে দলে চারটি বদল এনেছিলেন কোচ ইব্রাহিম। তবে গোল করার বেশ কয়েকটি সহজ সুযোগ নষ্ট করে সিরিয়া। ফ্রি-কিক থেকে গোল করতেও ব্যর্থ হন ফুটবলাররা। ফাইনালে পৌঁছতে হলে পরের ম্যাচে দক্ষিণ কোরিয়াকে হারাতেই হবে। এদিকে, তাজিকিস্তান ইতিমধ্যেই ফাইনালে পৌঁছে গিয়েছে।

[আরও পড়ুন: বিশ্বের দরবারে ফের সেরা বাঙালি, ক্যানসারকে হারিয়ে সোনা জয় শ্রীরামপুরের খুদের]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং