BREAKING NEWS

১৫  আষাঢ়  ১৪২৯  শুক্রবার ১ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

আই লিগ জয়ের খুশিতে ভাসছেন ফ্রান, হাতে ট্রফির ছবি ট্যাটু করালেন বাগান ফুটবলার

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: March 12, 2020 11:37 am|    Updated: March 12, 2020 11:37 am

Mohun Bagan footballer Fran Gonzalez inked I League trophy

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মোহনবাগানের দ্বিতীয়বার আই লিগ জয়ের অন্যতম নায়ক তিনি। সবুজ-মেরুন জার্সিত এবারের লিগে ১০টি গোল রয়েছে তাঁর। রক্ষণভাগে ভরসার পাত্রও তিনি। মঙ্গলবার কল্যাণীতে আই লিগ জয়ের আনন্দে এতটাই বিভোর হলেন যে বাঁ হাতে ট্রফির ছবি ট্যাটু করলেন মোহনবাগানের স্প্যানিশ ফুটবলার ফ্রান গঞ্জালেজ। সেইসঙ্গে আপামর সবুজ-মেরুন ফ্যান ও কলকাতার জন্য উজাড় করে দিলেন অকুণ্ঠ ভালবাসা।

এবারের আই লিগে মোহনবাগানের অন্যতম ভরসার পাত্র ৩১ বছরের স্প্যানিশ ফুটবলার। জীবনের প্রথম আই লিগ জয়ের খুশিতে নিজের বাঁ হাতে ট্যাটু করিয়েছেন ফ্রান। ওই হাতেই উপরের দিকে বাংলায় লিখেছেন ‘আনন্দের শহর’। কলকাতাকে এমনিতেই বলা হয়, সিটি অফ জয় বা আনন্দের শহর। আনন্দের জোয়ারে ভেসে তাই খোদাই করলেন হাতে। পরের মরশুমে দলে থাকবেন কি না জানেন না। কিন্তু মোহনবাগান এবং কলকাতা আজীবন থাকবে তাঁর বুকের মাঝে, সেকথা জানিয়েওছেন ক্লাবের সচিব সৃঞ্জয় বোসকে। যে ভালবাসা গোটা মরশুমে ক্লাব এবং সমর্থকদের কাছ থেকে পেয়েছেন ফ্রান, তাতে তিনি যারপরনাই আপ্লুত। নিজের খেলা দিয়ে ভালবাসা ফিরিয়েও দিয়েছেন তিনি। এবারের লিগে সবুজ-মেরুন জার্সিতে ১৬টি ম্যাচে ১০টি গোল করেছেন। একটি অ্যাসিস্ট।

[আরও পড়ুন: ‘ভারতসেরা মোহনবাগান’, সবুজ-মেরুনের লিগ জয়ে উচ্ছ্বসিত সোনি-ব্যারেটো]

মোহনবাগানের আরও দুই বিদেশি বেইতিয়া ও পাপার মতো তিনিও সমর্থকদের নয়নের মণি। ক্লাবের আস্থার পাত্র। জানা গিয়েছে, পরের মরশুমে জোসেবা বেইতিয়া নিশ্চিত। ফ্রান-সহ বাকি সবাইকে নিয়ে অল্পবিস্তর কথাবার্তা শুরু হয়েছে। কিছুদিন পর হয়তো ফ্রানের বিষয়ে সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়ে যাবে। আপাতত বেইতিয়া ফাইনাল। তবে সেসব নিয়ে ভাবিত নন ফ্রান। আপাতত আই লিগ জয়ের উচ্ছ্বাসেই ভেসে থাকতে চান তিনি।

[আরও পড়ুন: আই লিগের রং সবুজ-মেরুন, আইজলকে হারিয়ে ফের ভারতসেরা মোহনবাগান]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে