BREAKING NEWS

১৯ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২ জুন ২০২০ 

Advertisement

অসুস্থ বাবাকে নিয়ে ১২০০ কিমি সাইকেল যাত্রা! বিস্ময়কন্যাকে ট্রায়ালে ডাকল ফেডারেশন

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: May 23, 2020 4:59 pm|    Updated: May 23, 2020 4:59 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বয়স মাত্র ১৫ বছর। যে বয়সে হয়তো আর পাঁচটা মেয়ে কৈশোরের দুষ্টুমিতে মেতে থাকে। সুন্দর ভবিষ্যতের স্বপ্ন দেখে। সেই বয়সেই নিজেকে বড় শক্ত করে নিয়েছে বিহারের ১৫ বছরের এই বিস্ময়কন্যা। মাত্র ১৫ বছর বয়সে অসুস্থ বাবাকে পিছনে বসিয়ে হরিয়ানার গুরগাঁও থেকে বিহারে নিজের গ্রামে সাইকেলে ফিরেছে বিহারের জ্যোতি কুমারী (Jyoti Kumari ) । যা হয়তো অনেক বড় বড় সাইকেলিস্টও করতে পারতেন না। বাঁচার তাগিদে সেটাই করে দেখিয়েছে জ্যোতি। যা নজরে পড়েছে ভারতের সাইক্লিং ফেডারেশনেরও (Cycling Federation of India)। জ্যোতির অসামান্য প্রতিভা দেখে ফেডারেশন তাকে দিল্লির আইজিআই স্টেডিয়ামে ট্রায়ালে ডেকেছে।

জ্যোতির বাবা গুরগাঁওয়ে ই-রিক্সা চালাতেন। সম্প্রতি তাঁর একটি দুর্ঘটনা হয়। বাবার দেখাশোনা করতেই গুরগাঁও গিয়েছিল সে। তারপর লকডাউন। কাজ বন্ধ, হাতে টাকা নেই। মজুদ নেই খাদ্যও। অগত্যা বাবাকে নিয়ে সাইকেলেই বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দেয় জ্যোতি। গুরগাঁও থেকে ১২০০ কিলোমিটার পথ মাত্র সাতদিনে পেরিয়ে বাড়ি পৌঁছেছে এই বিস্ময়কন্যা। এত পথ মাত্র সাতদিনে সাইকেলে চেপে তাও বাবাকে সঙ্গে নিয়ে পেরনো যে কতটা কঠিন কাজ, তা হয়তো আমার-আপনার পক্ষে কল্পনা করাও কঠিন। প্রয়োজনের তাগিদে সেই অসাধ্য সাধন করেছে জ্যোতি। তাঁর সাইকেল চালানোর ভিডিও এখন সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে। নজরে পড়েছে সাইক্লিং ফেডারেশনেরও। খোদ ফেডারেশনের চেয়ারম্যান ওঙ্কার সিং ফোন করে তাঁকে ট্রায়ালে ডেকেছেন। জ্যোতি জানিয়েছে, এখন সে ভীষণ ক্লান্ত। কদিন বিশ্রাম নিয়েই ট্রায়াল দিয়ে আসবে। এখানে সুযোগ করে নিতে পারলেই বদলে যাবে তার জীবন।

[আরও পড়ুন: লকডাউনের মাঝেই অবসর ঘোষণা দীপা মালিকের, নয়া ভূমিকায় ধরা দেবেন প্যারা-অ্যাথলিট]

এদিকে ১৫ বছরের মেয়েটির বাবার প্রতি ভালবাসা আর লড়াকু মানসিকতা নজরে পড়েছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কন্যা ইভাঙ্কা ট্রাম্পেরও (Ivanka Trump) । টুইটারে তিনি লিখছেন, “১৫ বছর বয়সের জ্যোতি কুমারী নিজের অসুস্থ বাবাকে সঙ্গে নিয়ে ৭ দিনে ১২০০ কিলোমিটারেরও বেশি পথ অতিক্রম করেছে। ভালবাসা আর সহনশীলতার এই নিদর্শন ভারতবাসীর কল্পনাশক্তি এবং সাইক্লিং ফেডারেশন দুটোকেই নিজের দিকে আকৃষ্ট করেছে।”

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement