২২ আষাঢ়  ১৪২৭  মঙ্গলবার ৭ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

করোনায় আক্রান্ত এশিয়ান গেমসে সোনাজয়ী ভারতীয় বক্সার, পাশে দাঁড়ালেন ক্রীড়ামন্ত্রী

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: May 31, 2020 7:04 pm|    Updated: May 31, 2020 9:59 pm

An Images

ডিংকো সিংকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চতুর্থ দফার লকডাউনের শেষদিনে করোনার জীবাণু থাকার খবর পাওয়া এশিয়ান গেমসে সোনাজয়ী এক ভারতীয় বক্সারের শরীরে। মণিপুরের বাসিন্দা খ্যাতনামা ওই বক্সারের নাম ডিংকো সিং। লকডাউন শুরু হওয়ার কিছুদিন আগেই ক্যানসারের চিকিৎসার জন্য দিল্লিতে ছিলেন তিনি। পরে মণিপুরে ফিরে যান। সেখানেই তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে রবিবার খবর পাওয়া গিয়েছে। এর ফলে ভারতের প্রথম সারির ক্রীড়াবিদদের মধ্যে তিনি প্রথম ব্যক্তি, যাঁর শরীরের এই মারণ ভাইরাসের হদিশ পাওয়া গেল।

উত্তর-পূর্ব ভারতের খ্যাতনামা ওই বক্সারের পরিচিতদের সূত্রে জানা গিয়েছে, বিগত কিছুদিন ধরে ক্যানসারে ভুগছেন মণিপুরের বাসিন্দা ওই বক্সার। লকডাউনের আগে তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় ভারতীয় বক্সিং ফেডারেশনের উদ্যোগে তাঁকে বিমানে করে মণিপুর থেকে দিল্লিতে নিয়ে যাওয়া হয়। কিছুদিন সেখান চিকিৎসাধীন থাকার পর গাড়ি করে ২ হাজার ৪০০ কিলোমিটার দূরত্ব টপকে ফের মণিপুর ফিরে আসেন তিনি। তারপর ঠিকই ছিলেন। কিন্তু, সম্প্রতি তাঁর শরীরের করোনার উপসর্গ দেখা দেয়। আর শারীরিক পরীক্ষার পরেই জানা যায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন তিনি।

[আরও পড়ুন: এবার হকি ইন্ডিয়ায় থাবা মারণ ভাইরাসের, আক্রান্ত দুই কর্মীর জন্য দু’সপ্তাহ বন্ধ অফিস ]

খবরটি পাওয়ার পরেই ভারতের অন্যতম খ্যাতনামা বক্সারের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রী কিরণ রিজিজু। ডিংকো সিংয়ের চিকিৎসার জন্য মণিপুর সরকারকে সমস্ত ব্যবস্থা নেওয়ার আরজি জানিয়েছেন। মণিপুরে রেডিয়েশনের ব্যবস্থা না থাকায় অসমের রাজধানী গুয়াহাটিতে তাঁকে নিয়ে এসে চিকিৎসা করানোর পরামর্শ দিয়েছেন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ১৯৯৮ সালে ব্যাংককে হওয়া এশিয়ান গেমসে মাত্র ১৯ বছর বয়সে সোনা জিতেছিলেন মণিপুরের বাসিন্দা ডিংকো সিং। তিনিই প্রথম এশিয়ান গেমসের বক্সিং বিভাগে ভারতকে সোনা এনে দেন। তাঁর এই রেকর্ড এখনও পর্যন্ত কেউ ভাঙতে পারেননি। এরপর ২০১৩ সালে তিনি পদ্মশ্রী পান। তাঁর ঝুলিতে অর্জুন পুরস্কারও রয়েছে।

[আরও পড়ুন: ৩ মাস আটকে থাকার পর দেশে ফিরলেন বিশ্বনাথন আনন্দ, সরকারি নির্দেশে থাকবেন কোয়ারেন্টাইনে]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement