১ আশ্বিন  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিশ্ব ব্যাডমিন্টন চ্যাম্পিয়নশিপে সোনা জয়ের পর থেকে লাইমলাইটে পি ভি সিন্ধু। প্রচারের সমস্ত আলোই কেড়ে নিয়েছেন হায়দরাবাদি শাটলার। আর অন্ধকারে রয়ে গিয়েছেন অন্যান্য চ্যাম্পিয়নরা। যাঁরা সমানভাবে দেশের মুখ উজ্জ্বল করেও নজরে পড়েননি। তেমনই একজন ভারতীয় মানসী যোশী। সিন্ধুর ইতিহাস গড়ার দিনই প্যারা-ব্যাডমিন্টনে বিশ্বসেরা হয়েছেন রাজকোটের মেয়েও।

[আরও পড়ুন: ধোনিকে বাদ দেওয়া হয়নি, ১৫ জনের দলে মাহিকে না রাখার ব্যাখ্যা দিলেন প্রসাদ]

বাসেলে প্যারা-ব্যাডমিন্টন চ্যাম্পিয়নশিপে জোড়া সোনা জিতেছিলেন প্রমোদ ভগৎ। সেই একই টুর্নামেন্টে সোনা ঘরে তুলেছেন মানসীও। জীবনের প্রতিকূলতাকে ঠেলে দিয়ে বিশ্ব মঞ্চে নিজেকে মেলে ধরেছেন তিনি। তাই তুল্যমূল্য বিচারে তাঁর লড়াই আরও কঠিন। এসএল থ্রি ক্যাটেগরির ফাইনালে পারুল পারমারকে হারিয়ে প্রথম স্থান দখল করেন পেশায় ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ার মানসী। ২০১১ সালে অফিসে যাওয়ার পথে দুর্ঘটনায় বাঁ পা বাদ গিয়েছিল তাঁর। কিন্তু কোর্টে নেমে লড়াইয়ে ইতি টানার কথা ভাবেননি। নকল পা নিয়েও অদম্য মনের জোরই তাঁকে সাফল্য এনে দিয়েছে। 

রবিবার সিন্ধু চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁকে শুভেচ্ছা জানান গোপীচাঁদের অ্যাকাডেমির ছাত্রী মানসী। লেখেন, ‘‘সোনা জয়ের জন্য পরিশ্রমে খাটতি রাখিনি আমরা।’’ মানসীকেও পালটা অভিনন্দন জানান সিন্ধু। এদিকে, মানসীকে শুভেচ্ছা জানিয়ে আর্থিক পুরস্কারের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রী কিরেন রিজিজু। বিশ্বের দরবারে এক বিরল কৃতিত্বের অধিকারিণীকে প্রশংসায় ভরিয়ে দিয়েছেন নেটিজেনরাও। তবে নেটদুনিয়ার একাংশের দাবি, সিন্ধু যা খ্যাতি ও প্রচার পাচ্ছেন, ঠিক ততটাই প্রাপ্য মানসীরও। যা তিনি পাচ্ছেন না। এমনকী সিন্ধুর মতোই প্যারা-ব্যাডমিন্টন চ্যাম্পিয়নের সঙ্গেও দেখা করতে পারতেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলে সুর চড়িয়েছেন তাঁরা। যদিও মানসীকে টুইট করে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মোদি। ভারতীয় শাটলারের পরবর্তী লক্ষ্য আগামী বছরের টোকিও অলিম্পিক।

[আরও পড়ুন: ‘ঝঞ্ঝাটের ভয়ে বিশ্বাস থেকে সরে যেও না’, মহিলাদের বার্তা সিন্ধুর]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং