২ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ২০ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ২৪ বার মাউন্ট এভারেস্টে উঠে বিশ্বরেকর্ড গড়লেন নেপালের কামি রিটা শেরপা। গত ১৫ মে ২৩ বার বিশ্বের সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গে উঠে সবচেয়ে বেশি এভারেস্টে ওঠার রেকর্ড গড়েছিলেন। এক সপ্তাহের মধ্যে ফের সেখানে পৌঁছে নিজের রেকর্ডই ভাঙলেন ৫০ বছরের এই প্রৌঢ়। মঙ্গলবার সকাল ৬টা ৩৮ মিনিট নাগাদ নেপালের দিক থেকে এভারেস্টে ওঠেন পেশায় শেরপা কামি।

১৯৯৪ সালে ২৪ বছর বয়সে প্রথম এভারেস্টে ওঠেন নেপালের সোলুখুম্বু জেলার থামে গ্রামের বাসিন্দা কামি। তারপর থেকে ২৫ বছরে মোট ২৪ বার এখানে পৌঁছলেন তিনি। মাউন্ট এভারেস্টের পাশাপাশি কাঞ্চনজঙ্ঘা, চো-ইউ, লোতসে ও অন্নপূর্ণা-সহ হিমালয়ের ওই এলাকায় থাকা প্রায় প্রতিটি শৃঙ্গই জয় করেছেন তিনি। ২৪ বার বিশ্বের সর্বোচ্চ শৃঙ্গ স্পর্শ করার এই লম্বা সফরে ২১ বার তাঁর সঙ্গী ছিলেন আপা শেরপা ও ফুরবা তাশি শেরপা। কামির সঙ্গে মোট ২১ বার এভারেস্টে ওঠার পর অবসর নেন তাঁরা। কিন্তু, যুবক বয়স থেকেই যেন এভারেস্টের প্রেমে পড়ে গিয়েছিলেন কামি! আর তাতে ইন্ধন জোগায় শেরপার পেশা। রথ দেখার পাশাপাশি কলা বেচাও হয়ে যায় এই ফাঁকে!

[আরও পড়ুন-‘৫ বছর ধরে সমকামী সম্পর্কে আছি’,সংস্কার ভেঙে সরাসরি বললেন এশিয়াডে পদকজয়ী অ্যাথলিট]

বিশ্বের সর্বোচ্চ শৃঙ্গে ওঠার জন্য দুটি রাস্তা আছে। একটি নেপালের দিক দিয়ে আর অন্যটি তিব্বতের দিক দিয়ে। দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া এবং বছরের বেশিরভাগ সময় বরফাচ্ছন্ন থাকায় কেবল মার্চ থেকে মে মাস পর্যন্ত এভারেস্টে ওঠার অনুমতি মেলে। ১৯৫৩ সালে এডমন্ড হিলারি ও তেনজিং নোরগে প্রথম এই শৃঙ্গে ওঠেন। তারপর থেকে এখনও পর্যন্ত ৫ হাজারের বেশি পর্বতারোহী এখানে উঠেছেন বলে দাবি নেপালের পর্যটন দপ্তরের।

[আরও পড়ুন- শৃঙ্গজয়ের নেশা প্রাণ কাড়ল আরও এক পর্বতারোহীর, এখনও নিখোঁজ ১ বাঙালি]

এবছর ১৪ মে থেকে এভারেস্টে ওঠার অনুমতি দিয়েছিল তারা। তারপর থেকে প্রায় ১ হাজার জন পর্বতারোহী এই শৃঙ্গে ওঠার চেষ্টা করেছেন। যার মধ্যে রেকর্ড সংখ্যক ৩৭৮ জন মাথাপিছু ১১ হাজার মার্কিন ডলার দিয়ে এখানে ওঠার অনুমতি জোগাড় করেছেন। আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে বিশ্বের সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গে বিভিন্ন দেশের পর্বতারোহীদের একটি সম্মেলন হওয়ারও কথা রয়েছে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং