BREAKING NEWS

২০ শ্রাবণ  ১৪২৭  বুধবার ৫ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

কোর্টের বাইরেও সাফল্য, ফোর্বসের বিচারে বিশ্বের অন্যতম ধনী অ্যাথলিট সিন্ধু

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: August 7, 2019 7:03 pm|    Updated: August 7, 2019 7:03 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সাইনা নেহওয়ালকে পিছনে ফেলেছিলেন অনেক আগেই। এবার দেশের সব মহিলা ক্রীড়াবিদদের পিছনে ফেললেন পিভি সিন্ধু। দেশের ধনীতম অ্যাথলিটদের তালিকায় শীর্ষস্থানে হায়দরাবাদি ব্যাডমিন্টন তারকা। গোটা বিশ্বের নিরিখে সিন্ধু যুগ্মভাবে রয়েছেন ত্রয়োদশ স্থানে।

[আরও পড়ুন: সাফল্যের মুকুটে নয়া পালক, প্রেসিডেন্টস কাপে সোনা জয় মেরি কমের]

ফোর্বস জানাচ্ছে, ২০১৬ সালে অলিম্পিকে রুপো জয়ের পর থেকেই বেশি নজর কেড়েছেন সিন্ধু। এরপরই ব্রিজস্টোন, নোকিয়া, প্যানাসনিকের মতো বড় বড় আন্তর্জাতিক কোম্পানিগুলি তাঁর সঙ্গে বিজ্ঞাপনী চুক্তি সাক্ষর করে। আর সেই কারণেই এক লাফে অনেকখানি আয় বাড়ে তাঁর। গত অর্থবছরে তিনি ছিলেন প্রথম দশে। এবার প্রথম দশে ঠাঁই না পেলেও একমাত্র ভারতীয় হিসেবে ধনীদের তালিকায় ঠাঁই পেয়েছেন সিন্ধু। তাঁর বার্ষিক আয়, ৫.৫ মিলিয়ন ডলার। অর্থাৎ প্রায় ৪০ কোটি টাকা। ফোর্বস বলছে, “এখনও পর্যন্ত সিন্ধুই ব্যবসায়িকভাবে সবচেয়ে জনপ্রিয় মহিলা অ্যাথলিট। গতবছরের শেষে ওয়ার্ল্ড ট্যুরের ফাইনাল জেতার পর তাঁর জনপ্রিয়তা আরও বাড়ে।” ফোর্বসের দেওয়া তালিকায় এ বছর শীর্ষস্থান পেয়েছেন সেরেনা উইলিয়ামস। তাঁর বার্ষিক আয় ২৯.২ মিলিয়ন ডলার। ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ২০৭ কোটি টাকা। দ্বিতীয় স্থানেও টেনিস তারকা নাওমি ওসাকা।

ফোর্বস বলছে, “এখনও পর্যন্ত সিন্ধুই ব্যবসায়ীকভাবে সবচেয়ে জনপ্রিয় মহিলা অ্যাথলিট। গতবছরের শেষে ওয়ার্ল্ড ট্যুরের ফাইনাল জেতার পর তাঁর জনপ্রিয়তা আরও বাড়ে।”

[আরও পড়ুন: হিমা দাসকে অভিনন্দন জানাতে গিয়ে এ কী বলে বসলেন সাধগুরু!]

২০১৭-১৮ মরশুমে অবশ্য ফোর্বসের প্রকাশিত তালিকায় প্রথম দশেই ঠাঁই পেয়েছিলেন সিন্ধু। সেবার, মরশুমে সবচেয়ে বেশি পারিশ্রমিক যে মহিলা অ্যাথলিটরা পেয়েছিলেন তাঁদের মধ্যে সাত নম্বরে ছিলেন সিন্ধু। তাঁর আয় ছিল সাড়ে আট মিলিয়ন। অর্থাৎ ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৬০ কোটি টাকা। ব্যাডমিন্টন চ্যাম্পিয়নশিপ ও বিজ্ঞাপন মিলিয়ে সেবছরে ওই বিপুল অর্থই পান তিনি। তারপর অবশ্য বেশ খানিকটা কমেছে সিন্ধুর রোজগার। প্রথম দশ থেকেও ছিটকে গিয়েছেন তিনি। তবে, এখনও দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় সিন্ধুই।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement