BREAKING NEWS

১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ৩ ডিসেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বাবা-মা ও কোচের সঙ্গে ঝামেলায় জড়িয়েছেন? দীর্ঘ পোস্টে জবাব দিলেন ক্ষুব্ধ পিভি সিন্ধু

Published by: Sulaya Singha |    Posted: October 20, 2020 6:37 pm|    Updated: October 20, 2020 6:46 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পরিবারের সঙ্গে তীব্র বাদানুবাদ। জাতীয় ক্যাম্পেও ট্রেনিং নিয়ে বচসা। সবমিলিয়ে তিতিবিরক্ত হয়ে সোজা ব্রিটেন পাড়ি দিয়েছেন পিভি সিন্ধু (PV Sindhu)। বাবা-মা তো বটেই কোচ পুল্লেলা গোপীচাঁদের সঙ্গেও ঝামেলায় জড়ান তিনি। এমন খবরই ছড়িয়ে পড়ে সম্প্রতি। কিন্তু সত্যিই কি সেই কারণেই লন্ডন চলে গিয়েছেন ভারতীয় শাটলার? অবশেষে ইনস্টাগ্রামে (Instagram) দীর্ঘ একটি পোস্ট করে সত্যিটা জানালেন তিনি।

না, রেগে গিয়ে জাতীয় ক্যাম্প ছেড়ে লন্ডন পাড়ি দেননি তিনি। বরং লন্ডন যাওয়া আগেভাগেই ঠিক ছিল। নিজের স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্যই মূলত সেখানে গিয়েছেন। একইসঙ্গে তিনি স্পষ্ট করে দেন, পরিবারের কোনও সদস্যের সঙ্গে তাঁর কোনও বচসা হয়নি। লন্ডন পৌঁছনোর পরও প্রত্যেকের সঙ্গে যোগাযোগ রয়েছে। আর কোচের সঙ্গে ঝামেলা? এই খবরও সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন বলেই জানান সিন্ধু।

[আরও পড়ুন: আজও ‘আইকন’ ধোনিই, ক্যাপ্টেন কুলের থেকে বিশেষ উপহার পেয়ে উচ্ছ্বসিত বাটলার]

মঙ্গলবার ইনস্টাগ্রামে ক্ষোভ উগরে দিয়ে তিনি লেখেন, “সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে ওঠার জন্য যা যা প্রয়োজন, তার চেক-আপ করতেই দিন কয়েক লন্ডন এসেছি। মা-বাবার অনুমতি নিয়েই এখানে আসা। তাই পরিবারের সঙ্গে ঝামেলার খবর একেবারে মিথ্যে। আমার জন্য আমার বাবা-মা অনেক আত্মত্যাগ করেছেন। সেই পরিবারের সঙ্গে কী সমস্যা হবে আমার? পরিবারের সকলেই আমার পাশে থেকেছে। সমর্থন করেছে।” একইসঙ্গে স্পষ্ট করে দেন যে কোচের সঙ্গেও তাঁর কোনও মনোমালিন্য হয়নি। লেখেন, “কোচ গোপীচাঁদের সঙ্গে আমার কোনও বচসা হয়নি। অ্যাকাডেমিতে ট্রেনিং নিয়ে কোনও সমস্যা নেই। তাই এমন গুজব ছড়িয়ে বিভ্রান্ত করা ঠিক নয়।”

 
 
 
 
 
View this post on Instagram
 
 
 
 
 
 
 
 
 

I came to London a few days back to work on my nutrtion and recovery needs with GSSI.Infact I have come here with the consent of my parents and absolutely they were no family rifts in this regard. Why will I have problems/issues with my parents who have sacrificed their lives for my sake. Mine is a very close knitted family and they will always support me. I am in touch with my family members everyday. Also I do not have any issues with my coach Mr Gopichand or the training facilities at the academy. Mr M. Ratnakar the sports reporter of TOI who is spreading false news should know the facts first before writing them. If he doesn’t stop, I may have to resort to legal proceedings against him. @toi_sports @gopichandpullela

A post shared by sindhu pv (@pvsindhu1) on

করোনার জেরে দীর্ঘদিন ব্যাডমিন্টন কোর্টের বাইরে সিন্ধু। সম্প্রতি ডেনমার্ক ওপেনেও নামেননি তিনি। সব ঠিকঠাক থাকলে হয়তো আগামী বছর জানুয়ারিতেই ফের কোর্টে দেখা মিলবে অলিম্পিকে রুপোজয়ী শাটলারের। তবে তারই মধ্যে এই এই ধরনের গুজবে বেশ বিরক্ত সিন্ধু।

[আরও পড়ুন: রাজস্থানের কাছে হেরে তরুণদের দুষলেন ধোনি! পালটা তোপ প্রাক্তন ক্রিকেটারের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement