৩ মাঘ  ১৪২৬  শুক্রবার ১৭ জানুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo ফিরে দেখা ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৩ মাঘ  ১৪২৬  শুক্রবার ১৭ জানুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পাঁচ-দশ নয়, রিংয়ে নেমে টানা ১২ বার প্রতিপক্ষকে ধরাশায়ী করলেন বিজেন্দর সিং। একডজন জয়ের পাশে লেখা বিজেন্দরের নাম। পেশাদার বক্সিংয়ে ঘানার প্রাক্তন কমনওয়েলথ চ্যাম্পিয়ন চার্লস আডামুকে হারিয়ে জয়ের ধারা অব্যাহত রাখলেন ভারতীয় তারকা।

রাজনীতির ময়দানে নেমে সাফল্য আসেনি। কিন্তু, প্রো বক্সিংয়ের চেনা ময়দানে তাঁর সামনে কেউই টিকতে পারছেন না। শুক্রবার ফের নিজের জাত চেনালেন বিজেন্দর। প্রো বক্সিংয়ে টানা ১২বার জয়ী তিনি। গত চার বছরে একবারও হারের মুখ দেখতে হয়নি অলিম্পিকে পদকজয়ী বক্সারকে। আট রাউন্ডের সুপার মিডলওয়েট প্রতিযোগিতায় ৪২ বছরের প্রতিপক্ষকে মাটি ধরালেন তিনি। বিজেন্দরের ডান হাতের দক্ষতা আরও একবার অভিভূত করল ভক্তদের। গোদের উপর বিষফোঁড়ার মতো আবার অতিরিক্ত বেঁকে যাওয়ায় চতুর্থ রাউন্ডে এক পয়েন্ট কেটে নেওয়া হয় ঘানার তারকার। তবে সহজে লড়াই ছাড়েননি তিনি। আর সেই কারণেই শেষ রাউন্ড পর্যন্ত খেলা গড়ায়।

[আরও পড়ুন: গোলাপি টেস্টের মাঝেই ছেড়ে দেওয়া হল পন্থকে, বিকল্প হিসেবে দলে যোগ এই ক্রিকেটারের]

গত লোকসভা নির্বাচনে রাজনীতির ময়দানে নামায় বেশ কিছুদিন পেশাদার বক্সিং থেকে নিজেকে সরিয়ে রেখেছিলেন বিজেন্দর। তবে প্রত্যাবর্তনেই বাজিমাত করেন তিনি। প্রথমবার নিউ ইয়র্কে প্রফেশনাল সার্কিটে পা রেখে মার্কিন বক্সার মাইক স্নাইডারকে মাত্র ৪ রাউন্ডেই কুপোকাত করেছিলেন ভারতীয় বক্সার। তার আগে ২০১৭-র ডিসেম্বরে পেশাদার বক্সিং রিংয়ে নেমে দশমবার খেতাব জিতেছিলেন। সে প্রতিযোগিতা ছিল দেশের মাটিতে। সোয়াই মান সিং স্টেডিয়ামে আর্নেস্ট আমুজুকে হারিয়ে দেন তিনি। টানা চার বছর রিংয়ে বিজয়রথ ছোটাতে পেরে উচ্ছ্বসিত বিজেন্দর।

জয়ের পর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় শুভেচ্ছার বন্যায় ভাসছেন তারকা। প্রতিযোগিতার ছবি নিজের সোশ্যাল অ্যাকাউন্টে পোস্ট করে লেখেন, “দুবাইতেও জয়ের ধারা বজায় রেখে ১২-০ করতে পারায় ভাল লাগছে। আমার উপর বিশ্বাস রাখার জন্য সমস্ত বন্ধু ও সমর্থকদের অনেক ধন্যবাদ।”

[আরও পড়ুন: গোলাপি টেস্টের মধ‌্যেই হঠাৎ কলকাতায় শাকিব আল হাসান, ব্যাপারটা কী?]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং