১৪  আশ্বিন  ১৪২৯  সোমবার ৩ অক্টোবর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

দেশের হয়েই টোকিও অলিম্পিকে খেলবে অ্যাথলিটরা, নিষেধাজ্ঞা উড়িয়ে ঘোষণা পুতিনের

Published by: Sulaya Singha |    Posted: December 10, 2019 6:18 pm|    Updated: December 10, 2019 6:30 pm

President Vladimir Putin's reaction on Russia's 4-year ban by WADA

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ওয়াডার সঙ্গে সরাসরি সংঘাত শুরু হয়ে গেল রাশিয়ার। দেশের প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, সম্পূর্ণ রাজনৈতিক উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে এমন নক্ক্যারজনক পরিস্থিতি সৃষ্টি করা হচ্ছে। শুধু তাই নয়, অলিম্পিক চরিত্রের সঙ্গে ব্যাপারটা যে খাপ খায় না, তাও বলেছেন পুতিন। সেই সঙ্গে প্যারিসে দাঁড়িয়ে তাঁর ঘোষণা, দল টোকিও যাবে নিজেদের দেশের ফ্ল্যাগ নিয়েই। কারও অধীনে নয়। যা সম্ভব নয় বলে আগেই জানিয়ে দিয়েছে ওয়ার্ল্ড অ্যান্টি ডোপিং এজেন্সি (ওয়াডা)। শুধু তাই নয়, তারা এও জানিয়ে দিয়েছে, টোকিও অলিম্পিক শুধু নয়, ২০২২ কাতার ফুটবল বিশ্বকাপে খেলতে পারবে না রাশিয়া। যদিও ইউরোতে খেলার ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ ২০২০ ইউরো কাপে খেলতে পারবে রাশিয়া।

সোমবার লুসানেতে ওয়াডার এক্সিকিউটিভ কমিটি রাশিয়াকে চার বছর অলিম্পিক থেকে অপসারণ ঘোষণা করার পর থেকেই বিশ্বের অ্যাথলেটিক মহলে তোলপাড় শুরু হয়ে গিয়েছে। ওয়াডার বক্তব্য খুব স্পষ্ট, নিজের পায়ে নিজেরাই কুড়ুল মেরেছেন রাশিয়ানরা। “দীর্ঘদিন ধরে ক্রীড়াজগতে ডোপিং ব্যাপারটাকে নিয়ে ছিনিমিনি খেলছে রাশিয়া। ক্রীড়াঙ্গনে তারা স্বচ্ছ ভাবমূর্তি হারিয়ে ফেলেছে। এটা মেনে নেওয়া যায় না।” জানিয়ে দিয়েছেন ওয়াডার প্রেসিডেন্ট ক্রেগ রিডি। শুধু তাই নয়, তিনি এও বলেন, “আমরা রাশিয়াকে দীর্ঘদিন ধরে স্বচ্ছ ভাবমূর্তি তৈরি করার সুযোগ দিয়েছি। ডোপ নিরোধক অ্যাথলিট গঠনের জন্য বোঝানো হয়েছে। অথচ ঘটিয়েছে ঠিক উলটো। বরাবর প্রতারণা করেছে। সবকিছু অস্বীকার করেছে। তার ফল তো পেতেই হবে।”

[আরও পড়ুন: ক্লান্তি কাটিয়ে ঝকঝকে ফুটবল, চলতি আই লিগে প্রথম জয় ইস্টবেঙ্গলের]

তাই বলে অ্যাথলিটরা টোকিও অলিম্পিকে নামতে পারবেন না তা নয়। নামবেন আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি বা আইওসির ব্যানারে। ২০২২ শীতকালীন অলিম্পিকেও সেই একই ছাতার নিচে নামতে হবে রাশিয়ানদের। তবে রাশিয়া যদি কাতারে ফুটবল বিশ্বকাপে খেলতে চায় তাহলে নিজেদের ফেডারেশনের অধীনে নামতে পারবে না। এমনকী কোনও বড় সভায় যোগ দিতে পারবে না রাশিয়ার কোনও প্রতিনিধি। তবে ইউরো কাপ যেহেতু বিশ্ব ফুটবলে কোনও বড় ইভেন্ট নয়, তাই সেখানে খেলার ছাড়পত্র দেওয়া হবে। এমনকী সেন্ট পিটাসবার্গে ইউরোর চারটে ম্যাচ হওয়ার কথা। তাতেও আপত্তি নেই ওয়াডার।

পুতিন জানিয়ে দিয়েছেন, “সবকিছুর পিছনে রয়েছে রাজনৈতিক হিংসা চরিতার্থ করার একটা দিক। না রাশিয়ান অলিম্পিক কমিটিকে ভর্ৎসনা করা হয়েছে, না করা হয়েছে কোনও কমিটিকে। দেশের পতাকা নিয়েই আমাদের অ্যাথলিটরা তাই টোকিওতে নামবে। কারও অধীনে নয়।” পুতিনের এই মন্তব্যের পরই স্বাভাবিকভাবেই বিবাদের সূচনা হল।

[আরও পড়ুন: খেলার ফাঁকে মাঠেই সন্তানকে স্তন্যদান, নেটিদুনিয়ার প্রশংসা কুড়োচ্ছে ভাইরাল ছবি]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে