৭ শ্রাবণ  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২৩ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মদ্যপ স্ত্রীর সঙ্গে যৌন মিলনে নারাজ স্বামী৷ কিন্তু স্ত্রী নাছোড়বান্দা৷ বাদানুবাদের জেরে ধারাল অস্ত্র দিয়ে স্বামীর যৌনাঙ্গে কোপ নেশাতুর মহিলার৷ থানায় স্ত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন নির্যাতিত৷ যদিও ঘটনার পর থেকে এলাকাছাড়া অভিযুক্ত৷

[ আরও পড়ুন: ‘অ্যানাবেল’ আতঙ্কে হার্ট অ্যাটাক! থাইল্যান্ডে প্রেক্ষাগৃহেই মৃত্যু ব্রিটিশ নাগরিকের]

উগান্ডার বাসিন্দা মোজেস ওকোট বেশ কয়েক বছর আগেই বেয়াট্রিস এসেনের সঙ্গে ঘর বাঁধেন৷ চাষবাস করা মোজেস এক্কেবারেই ঘরকুনো৷ সংসার ছাড়া কিছুই বুঝতেন না তিনি৷ কিন্তু তাঁর স্ত্রী বেয়াট্রিস অন্যরকম৷ মদ, বন্ধুবান্ধব নিয়েই মেতে থাকেন মহিলা৷ প্রায় রোজই মদ খেয়ে বাড়ি ফিরতেন তিনি৷ ওই অবস্থাতেই সোজা চলে যেতেন বিছানায়৷ চাইতেন স্বামীর সঙ্গে উদ্দাম যৌনতায় মাততে৷ নেশাতুর স্ত্রীর বায়না সামাল দিতে মাঝেমধ্যে ওই অবস্থাতেই স্ত্রীর সঙ্গে শরীরী খেলায় মাততে বাধ্য হতেন স্বামীও৷

কিন্তু দিন যত গড়াচ্ছিল, ততই বাড়ছে স্ত্রীর মদ্যপানের আসক্তি৷ বারবার মদ ছাড়তে বলেও লাভ কিছুই হয়নি৷ মদ না ছাড়লে আর স্ত্রীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে থাকবেন না বলেও সাফ জানিয়ে দিয়েছিলেন স্বামী৷ তারপরেও সেই একই কাণ্ড৷ মদ খেয়ে এসে আবারও স্বামীর সঙ্গে যৌন সম্পর্কে মাততে চান মহিলা৷ তবে নিজের কথা মতো নেশাতুর স্ত্রীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে রাজি হননি স্বামী৷ ওই অবস্থায় মাথার ঠিক রাখতে পারেননি মহিলাও৷ যৌন মিলনের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যানের সঙ্গে সঙ্গে ধারাল অস্ত্র নিয়ে স্বামীর উপর চড়াও হন তিনি৷ যৌনাঙ্গে বারবার ধারাল অস্ত্র দিয়ে কোপাতে থাকে সে৷

[ আরও পড়ুন: সময়ের ফারাকেও বদলাল না দৃশ্য, একদা বাবা স্টিভের পোষ্য কুমির এখন ছেলের বশে]

স্ত্রীর হামলায় গুরুতর চোট পান ওই ব্যক্তি৷ রক্তারক্তি কাণ্ড দেখে যদিও নেশার ঘোর কেটে যায় মহিলার৷ পুলিশি ধরপাকড়ের হাত থেকে বাঁচতে ঘটনাস্থল ছেড়ে চম্পট দেয় সে৷ প্রতিবেশীদের তৎপরতায় স্থানীয় হাসপাতালে ভরতি করা হয় আক্রান্তকে৷ চিকিৎসার পর কিছুটা সুস্থ রয়েছেন তিনি৷ স্ত্রীর বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন নির্যাতিত৷ তবে ঘটনার পর থেকে আর কোনও খোঁজ পাওয়া যায়নি মহিলার৷ পুলিশ তার খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং