BREAKING NEWS

২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২২ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

FATF’র কালো তালিকা থেকে বাঁচতে জঙ্গিদের ভিআইপি সাজাচ্ছে পাকিস্তান

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: September 21, 2020 10:20 pm|    Updated: September 21, 2020 10:21 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আন্তর্জাতিক আর্থিক সংস্থা এফএটিএফ ((FATF)’র কালো তালিকা থেকে বাঁচাতে এখনও জঙ্গিদের ভিআইপি সাজাচ্ছে পাকিস্তানের ইমরান সরকার। সম্প্রতি এমন তথ্যই পাওয়া গিয়েছে ভারতীয় গোয়েন্দাদের সূত্রে। ওই তালিকায় নাম রয়েছে ভারতের মোস্ট ওয়ান্টেড অপরাধী দাউদ ইব্রাহিমও।

সূত্রের খবর, আগামী অক্টোবরে এফএটিএফের বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে। ওই বৈঠকে পাকিস্তানকে কালো তালিকা করার সম্ভাবনা রয়েছে। এই বিষয়টি মাথায় রেখে কিছুদিন ধরে নিজেদের দেশে থাকা কুখ্যাত জঙ্গিদের পরিচয় বদলে দেওয়ার চেষ্টা করছে পাকিস্তান (Pakistan) । জঙ্গিদের ভিআইপি (VIP) তকমা দিয়ে নিজেদের মুখ রক্ষা করার ছক কষছে। না হলে জঙ্গিদের আশ্রয়দান ও সন্ত্রাসবাদে অর্থ সাহায্য করার দায়ে তাদের কালো তালিকাভুক্ত হওয়া থেকে কেউ আটকাতে পারবে না। এর জন্য দাউদ ইব্রাহিম-সহ ২১ জন জঙ্গিকে ভিআইপি সাজিয়ে তাদের সুরক্ষা দিতে সরকারি খরচে নিরাপত্তারক্ষীরও ব্যবস্থা করেছে ইমরানের প্রশাসন।

[আরও পড়ুন: রাষ্ট্রপতি আল সিসির পদত্যাগের দাবিতে উত্তাল মিশর, পোড়ানো হল পুলিশের গাড়ি ]

সর্বভারতীয় একটি সংবাদসংস্থায় প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে জানা গিয়েছে, ২১ জঙ্গির ওই তালিকায় দাউদ ইব্রাহিম (Dawood Ibrahim) ছাড়াও রয়েছে বব্বর খালসা ইন্টারন্যাশনালের ((BKI) প্রধান ওয়াধা সিং, ইন্ডিয়ান মুজাহিদিন ((IM) -এর প্রধান রিয়াজ ভাটকল, মির্জা সাদাব বেগ, আতিফ হাসান সিদ্দিবাপা ও খলিস্তান জিন্দাবাদ ফোর্সের জঙ্গি রঞ্জিত সিং নীতাও।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের জুন মাস থেকে পাকিস্তান এফএটিএফের ধূসর তালিকায় রয়েছে। এরপর গত কয়েকমাস ধরেই তাদের বারবার সতর্ক করেছে আন্তর্জাতিক সংগঠনটি। জঙ্গিদের মদত ও তাদের আর্থিক সাহায্য দিতে বারণ করা হয়েছে। কিন্তু, তাতে বদলায়নি ইমরানের প্রশাসন। উলটে আন্তর্জাতিক মহলের চোখে ধুলো দিতে গত মাসে ৮৮ জন কুখ্যাত জঙ্গি নেতার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে পাকিস্তান। সেখানে হাফিজ সইদ বা মাসুদ আজহারের মতো জঙ্গিদের নাম ছিল। তাদের অ্যাকাউন্ট বাজেয়াপ্ত করার পাশাপাশি বিদেশে যাতায়াতও নিষিদ্ধ করে দেওয়া হয়। যদিও বিশেষজ্ঞরা জানিয়ে ছিলেন, এটা ছিল পাকিস্তানের প্রহসন।

[আরও পড়ুন: বন্ধুত্বের পুরস্কার! ফের নেপালের জমি দখল করে বিল্ডিং বানাল চিন]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement