BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

হোয়াইট হাউসে জাঁকিয়ে বসছে আতঙ্ক, কোয়ারেন্টাইনে করোনা মোকাবিলা দলের তিনজন

Published by: Paramita Paul |    Posted: May 10, 2020 4:35 pm|    Updated: May 10, 2020 4:35 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এবার কোয়ারেন্টাইনে গেলেন হোয়াইট হাউসের করোনা মোকাবিলা দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য অ্যান্তোনিও ফাউচি। তিনি ছাড়াও ওই দলের আরও দুই সদস্যও আইসোলেশনে গিয়েছেন। প্রসঙ্গত, মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেনসের প্রেস সচিব করোনা আক্রান্ত হন। এরপরই হোয়াইট হাউসের আধিকারিকরা করোনা আক্রান্ত হতে পারেন বলে আশঙ্কা ছড়ায়।

জানা গিয়েছে, সেন্টারস ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশনের ডিরেক্টর রবার্ট রেডফিল্ড, ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের কমিশনার স্টিফেন হানও সেলফ আইসোলেশনে যাচ্ছেন। তাঁরা আপাতত ১৪দিন সম্পূর্ণ আইসোলেশনে থাকবেন। তবে ফাউচি সম্পূর্ণ কোয়ারেন্টাইনে থাকবেন না। কারণ, আক্রান্তের সংস্পর্শে তিনি আসেননি। তাই বাড়িতে আগামী দু সপ্তাহ মাস্কে মুখ ঢেকে থাকবেন। আর টেলিফোন. ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কাজকর্মের দেখভাল করবেন। প্রত্যেকদিন তাঁর করোনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। তবে হোয়াইট হাউসে আধিকারিকরা এটা প্রকাশ করেননি যে, করোনা আক্রান্ত ওই আধিকারিকদের সংস্পর্শে কারা কারা এসেছিলেন।

[আরও পড়ুন : সেনার গুলিতে নিকেশ রিয়াজ নাইকোর স্মৃতিতে স্মরণসভা পাকিস্তানে, তুমুল বিতর্ক]

এদিকে  প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের এক ঘনিষ্ঠ সেনা আধিকারিকের শরীরে থাবা বসিয়েছে কোভিড-১৯। তারপরই ট্রাম্প জানান, রোজ করোনার পরীক্ষা করাতে তিনি রাজি আছেন। যদিও ওই সেনা আধিকারিক এর সঙ্গে তাঁর যোগাযোগ খুব কমই হয়েছে। এমনকী ইভাঙ্কা ট্রাম্পের ব্যক্তিগত সচিবও করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। একের পর এক আধিকারিক করোনা সংক্রামিত হওয়ায় আতঙ্ক বাড়ছে। 

[আরও পড়ুন : ‘বিশ্বজুড়ে শুরু হয়েছে ঘৃণার সুনামি, মুসলিম বিদ্বেষ’, উদ্বিগ্ন রাষ্ট্রসংঘের মহাসচিব]

ট্রাম্প ঘনিষ্ঠ সেনা আধিকারিকের শরীরে করোনা ভাইরাস মেলার পরই রীতিমতো চঞ্চল্য ছড়ায় হোয়াইট হাউসে। মার্কিন ক্ষমতার নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্রে আধিকারিক ও কর্মীদের সুরক্ষা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করে।সতর্কতা অবলম্বন করে এবার থেকে প্রেসিডেন্ট, ভাইস প্রেসিডেন্ট-সহ হোয়াইট হাউসের সমস্ত কর্মীদের রোজ করোনা পরীক্ষা করা হবে। এদিনও চিনের নাম না করে কটাক্ষ ছুঁড়ে দিয়েছেন ট্রাম্প। 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement