BREAKING NEWS

২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২২ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

বাঙালি যুবকের হাত ধরে করোনা প্রতিরোধে বিশ্বকে পথ দেখাচ্ছে কানাডার গবেষকরা

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: March 14, 2020 7:09 pm|    Updated: March 14, 2020 7:14 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিশ্বজুড়ে ক্রমশ দৃঢ় হচ্ছে করোনার কামড়। কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন হাজার হাজার মানুষ। WHO সম্প্রতি করোনাকে ‘বিশ্বব্যাপী মহামারি’ ঘোষণা করেছে। গোটা বিশ্বে করোনা সংক্রমণে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৫ হাজারেরও বেশি। যে মহামারি রুখতে তৎপর হয়েছেন কানাডার এক গবেষকদল। যে দলে রয়েছেন একজন বাঙালিও।

গোটা বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রুখতে একধাপ এগিয়েছে কানাডার এই গবেষকদের দল। যে দলে রয়েছেন অরিঞ্জয় বন্দ্যোপাধ্যায় নামে একজন বাঙালি। করোনা রুখতে কতটা তৎপর তাঁরা কিংবা করোনাকে জব্দ করতে তাঁদের দাওয়াই কী? এপ্রসঙ্গে অরিঞ্জয় বন্দ্যোপাধ্যায়ের বক্তব্য, তাঁরা কিছুটা হলেও এই ভাইরাসকে জব্দ করার উপায় খুঁজে পেয়েছেন। যার জেরে বিশ্বজুড়ে রোখা যাবে এই মারণ রোগকে। সূত্রের খবর, কানাডার ৩টি বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা করোনা রোখার বিষয়ে বেশ আশাবাদী। তাঁদের গবেষণা গোটা বিশ্বকে পথ দেখাবে। অরিঞ্জয় সম্প্রতি তাঁর গবেষকদলের সঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবি পোস্ট করে জানিয়েছেন তাঁদের গবেষেণায় একধাপ সাফল্যের কথা।

অরিঞ্জয়ের কথায়, “করোনার কারণে বিশ্বজুড়ে যা হচ্ছে তা অত্যন্ত দুঃখজনক। তবে মহামারি রুখতে ভূমিকা নিতে পারছি, এটাও গর্বের।” গবেষক অরিঞ্জয় বন্দ্যোপাধ্যায়ের দাবি, তাঁদের দল ইতিমধ্যেই এসএআরএস কোভিড-টু (SARS COVID-2) ভাইরাসকে আলাদা করতে পেরেছেন। যে মহামূল্যবাণ তথ্য বাকি গবেষকদেরও দিতে চান তাঁরা। এতে মিলিত প্রয়াসে মারণ প্রতিষেধক আবিষ্কার করার কাজ আরও সহজ হবে বলে মনে করছেন তিনি। তাঁর বক্তব্য, ছোটবেলা থেকেই তিনি এমন একজন হতে চেয়েছেন যে কিনা মহাসংকটের সময় পরিত্রাতার ভূমিকায় অবতীর্ণ হবেন। উদ্ভাবনী কিছু আবিষ্কার করেই মানুষের চরম বিপদের সময় পাশে দাঁড়াতে চেয়েছিলেন তিনি। অরিঞ্জয়ের শৈশবের সেই স্বপ্ন পূরণের পথেই এই আবিষ্কার যেন একধাপ এগিয়ে দিল তাঁকে।   

[আরও পড়ুন: সন্ধের বিরতিতে নাচগান, নিজেদের চাঙ্গা রাখতে মাতলেন কোয়ারেন্টাইনে থাকা বাসিন্দারা ]

কে এই বাঙালি গবেষক অরিঞ্জয় বন্দ্যোপাধ্যায়? আদতে ভারতীয় বংশোদ্ভূত তিনি। টরোন্টোর ম্যাকমাস্টার বিশ্ববিদ্যালয়ের সংক্রামিত রোগ বিভাগের গবেষক অরিঞ্জয়। যে বিভাগে করোনা ভাইরাসের মতো মহামারি, যে কোনও রকম সংক্রামিত রোগ এবং বাদুড় থেকে সংক্রামিত রোগ নিয়ে গবেষণা করা হয়। জানা গিয়েছে, এই গবেষকের দল কোভিড-১৯-এর চরিত্র চিত্রণ করতে সমর্থ হয়েছে। ফলে, করোনাকে বাগে আনতে খুব দ্রুত সমর্থ হবেন এই গবেষকদের দল, এমনটাই মনে করছেন গবেষকরা। যাদের হাত ধরেই করোনার প্রতিষেধক তৈরি করা যাবে বলে মনে করা হচ্ছে। দু’জন রোগীর লালারস ও রক্তের নমুনা সংগ্রহ করে কিছুটা হলেও করোনাকে জব্দ করার হদিশ খুঁজে পেয়েছেন কানাডার সেই গবেষকদল। 

[আরও পড়ুন: মোদির ডাকে সাড়া ইমরানের, করোনা নিয়ে ভিডিও কনফারেন্সে রাজি পাকিস্তান]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement