BREAKING NEWS

১১ মাঘ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ২৫ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

ওমিক্রন কাঁটায় বিধ্বস্ত ব্রিটেন, লন্ডনে হাসপাতাল কর্মীর অভাবে কাজে নামল সেনা!

Published by: Biswadip Dey |    Posted: January 7, 2022 5:40 pm|    Updated: January 7, 2022 6:08 pm

Britain deploys army to address shortage in hospitals in COVID situation | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ওমিক্রন (Omicron) কাঁটায় নতুন করে করোনার (Coronavirus) দাপট। ভারত-সহ সারা পৃথিবীর অসংখ্য দেশেই সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি চিন্তা বাড়াচ্ছে। একই ছবি ব্রিটেনেও (UK)। সংবাদ সংস্থা এএফপি সূত্রে জানা যাচ্ছে, লন্ডনের (London) হাসপাতালগুলিতে কর্মীসংখ্যায় সংকোচন দেখা দিয়েছে। বহু কর্মীই করোনা আক্রান্ত। এই পরিস্থিতিতে হাসপাতালগুলিতে সেনা মোতায়েন করার সিদ্ধান্ত নিল প্রশাসন।

জানা যাচ্ছে, ২০০ সেনাকর্মীকে বিভিন্ন হাসপাতালে নিয়োগ করা হয়েছে অস্থায়ী ভাবে। তাঁরা সেখানকার কর্মীদের সঙ্গে হাত মিলিয়ে পরিষেবা বজায় রাখবেন। সেদেশের প্রতিরক্ষা সচিব বেন ওয়ালেস এবিষয়ে জানিয়েছেন, ‘‘আরও একবার আমাদের সেনার মহিলা ও পুরুষ কর্মীরা করোনার বিরুদ্ধে জাতীয় স্বাস্থ্য পরিষেবা যথাযথ রাখতে হাতে হাত মিলিয়ে কাজ করবেন সহকর্মীদের সঙ্গে।’’ 

[আরও পড়ুন: টিকা না নিলে নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়তে হবে, দেশবাসীকে হুঁশিয়ারি ফরাসি প্রেসিডেন্টের]

তিনি মনে করিয়ে দিয়েছেন, গত ২ বছরে এভাবেই সেনাকর্মীদের এগিয়ে আসতে দেখা গিয়েছে। তাঁরা অ্যাম্বুল্যান্স চালানো থেকে শুরু করে টিকাকরণ কিংবা হাসপাতালে রোগীর দেখাশোনার মতো নানা কাজই করেছেন এই সময়ে। একবার ফের দেশের করোনা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক হওয়ায় তাঁরা এগিয়ে এলেন। যে ২০০ জনকে মোতায়েন করা হচ্ছে তাঁদের মধ্যে ৪০ জন সেনার চিকিৎসা বিভাগে রয়েছেন। বাকিরা সাধারণ পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত।

মঙ্গলবার ব্রিটেনে করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন ২ লক্ষ ১৮ হাজার ৭২৪ জন। যা এযাবৎকালের মধ্যে সবচেয়ে বেশি। স্বাভাবিক ভাবেই উদ্বেগ বাড়ছে। যদিও হাসপাতালে ভেন্টিলেটর ও অন্যান্য সরঞ্জামের অভাব নেই। কিন্তু করোনার দাপটে বহু কর্মীই অসুস্থ। মঙ্গলবারই প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন জানিয়েছিলেন, এই পরিস্থিতিতে আপৎকালীন পরিষেবা দেওয়াই কঠিন হয়ে পড়ছে। অবশেষে সেই অভাব পূরণ করতেই এগিয়ে এল ব্রিটিশ সেনা।

এদিকে করোনার নতুন এবং অতি সংক্রামক ওমিক্রন স্ট্রেনকে অনেক বিশেষজ্ঞই দেগে দিয়েছেন ‘কম বিপজ্জনক’ স্ট্রেন হিসাবে। বিশেষজ্ঞদের একাংশের বক্তব্য ওমিক্রন আগের স্ট্রেনগুলির তুলনায় দ্রুত ছড়ালেও এর মারণ ক্ষমতা আগের থেকে অনেকটাই কম। বিশেষজ্ঞদের এই ধারণাকে মারাত্মক ভুল বলে দেগে দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। WHO‘র বক্তব্য, করোনার নতুন এই প্রজাতিকে ‘কম বিপজ্জনক’ বলাটা বড়সড় ভুল।

[আরও পড়ুন: বিদেশ থেকে ভারতে আসা যাত্রীদের কোয়ারেন্টাইনের নিয়ম নিয়ে বড় ঘোষণা কেন্দ্রের]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে