BREAKING NEWS

১৭  মাঘ  ১৪২৯  বৃহস্পতিবার ২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ 

READ IN APP

Advertisement

ফের মাসুদকে আগলে রাখল চিনা প্রাচীর, রাষ্ট্রসংঘে অসহায় ভারত

Published by: Tanujit Das |    Posted: March 14, 2019 9:19 am|    Updated: March 14, 2019 9:19 am

 China Blocks Move On Masood Azhar Again

ফাইল ফটো

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী ঘোষণা করা নিয়ে ভারতের আশায় জল ঢেলে দিল চিন। রাষ্ট্রসংঘ সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রক্রিয়াগত কারণ দেখিয়ে চতুর্থবার ওই ঘোষণাকে আটকে দিয়েছে চিন। রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের অন্য স্থায়ী সদস্য আমেরিকা, ফ্রান্স ও ব্রিটেন জঙ্গি মাসুদকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী ঘোষণায় রাজি থাকলেও, তাদের সঙ্গে একমত হয়নি চিন৷ আর বেজিংয়ের এই পদক্ষেপে যথারীতি হতাশ ভারত৷

[বালাকোটে খতম ২০০ জঙ্গি! পাক সেনা আধিকারিকের ভিডিও ঘিরে তুঙ্গে জল্পনা ]

পুলওয়ামা কাণ্ডের মাস্টারমাইন্ড মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী তকমা দেওয়ার জন্য রাষ্ট্রসংঘে প্রস্তাব আনে ভারত। সেই প্রস্তাবে সায় দেয় রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের সদস্য আমেরিকা, ব্রিটেন এবং ফ্রান্স। নিয়ম অনুযায়ী নির্দিষ্ট দশ দিনের সময়সীমার মধ্যে রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের কোনও দেশ এই বিষয়ে আপত্তি না জানালে প্রস্তাবটি পাশ হয়ে যেত। সেই অনুযায়ী বুধবার ভারতীয় সময় রাত সাড়ে বারোটার আগেই এই নিয়ে নিজেদের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিতে হত চিনকে। সেই সময়সীমার শেষ মুহূর্তে এসে প্রক্রিয়াগত কারণ দেখিয়ে এই ঘোষণা আটকে দেয় চিন। রাষ্ট্রসংঘ সূত্রে জানা গিয়েছে, চিন বলেছে এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে তাঁদের আরও সময় লাগবে। চিনের এই অবস্থান নিয়ে হতাশা ব্যক্ত করে ভারতীয় বিদেশমন্ত্রক জানিয়েছে, মাসুদকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী হিসেবে চিহ্নিত করতে কোনও চেষ্টার খামতি রাখবে না ভারত।

[পাক চা বিক্রেতার দোকানে অভিনন্দনের ছবি প্রশংসা কুড়োচ্ছে নেটদুনিয়ার]

কূটনৈতিক মহলের বক্তব্য, চিনের এই কাজে ধাক্কা খেল সন্ত্রাসবাদ নিয়ে ভারতের অবস্থান এবং স্বার্থ। মার্কিন বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র রবার্ট পালাডিনো বলেছেন, “মাসুদ আজহার আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী ঘোষণার যোগ্য। ভুললে চলবে না আমেরিকা এবং চিন শান্তি ও স্থিতিশীলতা রক্ষার জন্য পারস্পরিক বোঝাপড়ার ভিত্তিতে কাজ করে। তাই মাসুদকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী ঘোষণা না করলে সেই বোঝাপড়ার উদ্দেশ্যই ব্যর্থ হবে।’’ ভারতীয় বিদেশমন্ত্রক সূত্রে খবর, বেজিংয়ের যুক্তি হল, জইশ-ই-মহম্মদের সঙ্গে মাসুদ আজহারের সরাসরি যুক্ত থাকার প্রমাণ নেই। তাছাড়া এই ইস্যুতে ভারত-পাকিস্তান মুখোমুখি কথা বলে গ্রহণযোগ্য সমাধান বের করুক। যদিও চিনের এই যুক্তির পরই নতুন করে তথ্য প্রমাণ দিয়েছিল ভারত। সেই সব তথ্যপ্রমাণের সঙ্গে জইশ শীর্ষনেতা হিসেবে আজহারের যে সব অডিও টেপ ভারতের হাতে এসেছে, প্রচুর নথিপত্রের সঙ্গে সেই টেপও নিরাপত্তা পরিষদে প্রমাণ হিসেবে দিয়েছিল নয়াদিল্লি।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে