BREAKING NEWS

২৯ শ্রাবণ  ১৪২৭  শনিবার ১৫ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

কূটনৈতিকদের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি নিয়ে ফের শুরু আমেরিকা ও চিনের সংঘাত

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: July 14, 2020 12:09 pm|    Updated: July 14, 2020 12:16 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আমেরিকায় কর্মরত চিনা কূটনীতিকদের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল ট্রাম্প প্রশাসন। পালটা মার্কিন কূটনীতিকদের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে বদলা নিল চিনও। এই কূটনৈতিক যুদ্ধের জেরে চিনে থাকা মার্কিন নাগরিকদের খুব সাবধানে থাকতে পরামর্শ দিল ট্রাম্প প্রশাসন। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ এবং দক্ষিণ চিন সাগরের সমুদ্রসীমা নিয়ে চিন–মার্কিন বিবাদ দিনকে দিন অন্য মাত্রা নিচ্ছে।

লাদাখে ভারত-চিন সংঘাতের ঘটনা চিন-মার্কিন সংঘাতকে আরও বাড়িয়ে দিয়েছে। কারণ ভারত আমেরিকার ঘোষিত সামরিক জোটসঙ্গী। গত কয়েক মাস ধরেই করোনা ভাইরাস, বাণিজ্য যুদ্ধ, হংকং, দক্ষিণ চিন সাগর ইস্যুতে চিন–মার্কিন সংঘাত ক্রমশ যুদ্ধের উসকানি দিয়ে চলেছে। এই পরিস্থিতিতে আমেরিকা চিনের কমিউনিস্ট পার্টির তিন কর্মকর্তার উপরে নিষেধাজ্ঞা জারি করল। ফলে এঁরা আমেরিকা ও আমেরিকার মিত্র দেশগুলিতে পা রাখতে পারবেন না। যাতায়াতও করতে পারবেন না। পালটা জবাবি পদক্ষেপ করল চিনও।

[আরও পড়ুন: ‘খারাপ থেকে আরও খারাপের দিকে যাচ্ছে করোনা’, নতুন আশঙ্কার কথা শোনাল WHO]

চিনা বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র হুয়া চানিয়াং বলেছেন, আমরা আমেরিকাকে তাদের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের অনুরোধ জানাচ্ছি। চিনের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে এবং চিনের স্বার্থের ক্ষতি হতে পারে এমন মন্তব্য ও কাজ থেকে তাদের বিরত থাকতে বলেছি। কিন্তু আমেরিকা আমাদের অনুরোধ না রাখায় কয়েকজন মার্কিন কূটনীতিক (American diplomat) -এর উপরে চিনও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করল। এদের মধ্যে রয়েছেন দুই রিপাবলিক সেনেটর মার্কো রুবিও এব‌ং টেড ক্রাজ। এঁরা দু’জনেই চিনের কড়া সমালোচক। তিব্বত, উইঘুর, জিনজিয়াং, হংকং ইস্যুতে এঁরা দু’জন দুনিয়াজুড়ে চিনা আগ্রাসনের বিরুদ্ধে প্রচার চালাচ্ছিলেন। তাই চিন ও হংকংয়ে এঁদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করল বেজিং (Beijing)।

এই অবস্থায় ট্রাম্প প্রশাসন চিনে থাকা মার্কিন নাগরিকদের সতর্ক করে দিয়ে বলেছে, তাঁরা যেন সাবধানে থাকেন। কারণ চিনের পুলিশ তাঁদের যে কোনও সময়ে বিনা কারণে গ্রেপ্তার বা হেনস্থা করতে পারে। গুপ্তচরবৃত্তির মিথ্যে অভিযোগে মার্কিন নাগরিকদের গ্রেপ্তার করা হতে পারে। সেক্ষেত্রে তাঁরা কনস্যুলার অ্যাকসেস পাবেন না। তাঁদের বেজিংয়ের মার্কিন দূতাবাসে যোগাযোগ করতে দেওয়া হবে না। মার্কিন নাগরিকরা পাবেন না কূটনৈতিক রক্ষাকবচ। চিন ও হংকংয়ে থাকা মার্কিন নাগরিকদের জীবনও বিপন্ন করতে পারে চিনের প্রশাসন। তাই মার্কিন নাগরিকরা যেন চিন ও হংকংয়ে খুব সাবধানে চলাফেরা করেন।

[আরও পড়ুন: ‘আমাদের থেকে আরও বেশি কর নেওয়া হোক’, করোনা মোকাবিলায় ‘মানবিক’ ধনকুবেররা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement