২৩  শ্রাবণ  ১৪২৯  বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

প্রকাশ্যে আগ্রাসী চিনের ষড়যন্ত্র, লাদাখ সীমান্তে ওঁত পেতে লালফৌজের যুদ্ধবিমান

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: August 31, 2020 4:16 pm|    Updated: August 31, 2020 4:16 pm

Chinese Air Force redeployed J-20 fighters near LAC days before fresh intrusion bid

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:‌ লাদাখে ফের বাড়ছে উত্তেজনা। গত ২৯ এবং ৩০ আগস্ট ফের পূর্ব লাদাখ (Ladakh) সীমান্তে সংঘাতে জড়াল ভারত–চিন। প্যাংগং লেকের কাছে চিনের আগ্রাসন প্রতিহত করল ভারতীয় সেনা (Indian Army)। সোমবার ভারতীয় সেনার তরফে বিবৃতি জারি করে এমনটাই জানানো হয়েছে। শুধু তাই নয়, ভারতের মাটিতে অনুপ্রবেশ চেষ্টা করার আগেই সীমান্তের খুব কাছেই পঞ্চম জেনারেশনের জে–২০ যুদ্ধবিমান মোতায়েন করেছিল বেজিং। অর্থাৎ পূর্বপরিকল্পিতভাবেই ফের লাদাখ সীমান্তে উত্তেজনা তৈরি করেছে চিন!

 [আরও পড়ুন: ছন্দে ফিরছে ‘করোনাজয়ী’ ইউহান, ১ সেপ্টেম্বর থেকেই খুলছে স্কুল]

এই প্রসঙ্গে প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের সূত্র উদ্ধৃত করে একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, ‘‌‘‌গত কয়েকদিন ধরেই ভারত–চিন (China) সীমান্তে জে–২০ যুদ্ধবিমানের আনাগোনা বৃদ্ধি পেয়েছিল। আর চিনা সেনার ভারতে নতুন করে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করার আগেই এই জিনিসটি লক্ষ্য করা গিয়েছিল।’‌’ লাদাখ সীমান্তের কাছে অবস্থিত চিনের হোতান এয়ারবেসে রাখা হয়েছে এই জে–২০ যুদ্ধবিমানগুলোকে। তবে ‌ভারতীয় বায়ুসেনাও সর্বক্ষণ সীমান্তে নজর রেখেছে। চিনের তরফ থেকে কোনওপ্রকার অনুপ্রবেশের চেষ্টাই বরদাস্ত করা হবে না। জানানো হয়েছে সেনার তরফে। ইতিমধ্যে আম্বালা এয়ারবেসে এসে পৌঁছেছে পাঁচটি রাফালে (Rafale) যুদ্ধবিমান। যা কি না চিনা যুদ্ধবিমানের থেকে কয়েকগুণ এগিয়ে। আগামী ১০ সেপ্টেম্বর সেগুলোকে আনুষ্ঠানিকভাবে ভারতীয় বায়ুসেনায় যুক্তও করা হবে।

[আরও পড়ুন: ‘LAC অতিক্রম করেনি ফৌজ’, ভারতীয় সেনার দাবি ওড়াল চিন]

এই পরিস্থিতিতে গত কয়েকদিনে ফের সীমান্তে উত্তেজনা বাড়িয়েছে চিন। ঠিক গত দু’‌দিন যেমন। সেনা সূত্রে জানা গিয়েছে, প্যাংগং লেকের (Pangong Tso lake) দক্ষিণ প্রান্ত দিয়ে ভারতের জমিতে ঢোকার চেষ্টা করেছিল লালফৌজ। কিন্তু ভারতীয় সেনার তৎপরতায় সেই চেষ্টা ভেস্তে গিয়েছে। লালফৌজকে (PLA) বাধা দিলে ভারতীয় সেনাদের সঙ্গে একপ্রস্থ সংঘর্ষ হয় বলেও খবর। ১৫ জুনের পর ফের ২৯ আগস্ট ও ৩০ আগস্ট রাতে ওই এলাকার পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল বলে সেনার তরফে জানানো হয়েছে। এ প্রসঙ্গে ভারতীয় সেনার জনসংযোগ আধিকারিক কর্ণেল আমান আনন্দ জানিয়েছেন, প্যাংগং লেকের দক্ষিণে ঘাঁটি গেড়ে বসেছিল লাল ফৌজ। প্যাংগং হ্রদের জলে তাদের হাই-স্পিড ইন্টারসেপটর বোটও ঘোরাফেরা করতে দেখা যাচ্ছিল। এবার দক্ষিণ অংশ দিয়ে ভারতীয় সেনার নিয়ন্ত্রণাধীন এলাকায় ঢুকে পড়ার চেষ্টা করে চিনের বাহিনী। সেই চেষ্টা প্রতিহত করা গিয়েছে। এই ই্স্যুতে ব্রিগেড কম্যান্ডার স্তরে বৈঠক চলছে বলেও খবর।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে