২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৮ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

WHO চিনের তাবেদার! আর্থিক সাহায্য বন্ধের হুমকি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: April 8, 2020 8:50 am|    Updated: April 8, 2020 8:50 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিশ্বজুড়ে মহামারির আবহে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (World Health Organization) চিনকে আড়াল করার চেষ্টা করছে। বিস্ফোরক অভিযোগ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের (Donald Trump)। চিনের তাবেদারি করার অভিযোগে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে দেওয়া সাহায্য বন্ধেরও হুমকি দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

corona-virus

 

বিশ্বজুড়ে মহামারি পরিস্থিতির মাঝেই চিন-আমেরিকা টক্কর চলছে। মৃত্যুর সংখ্যার নিরিখে চিনকে টেক্কা দিয়েছে আমেরিকা। আর চিনের সঙ্গে মার্কিন মুলুকের কূটনৈতিক টানাপড়েন চলছেই। এর আগে একাধিকবার ট্রাম্প অভিযোগ করেছেন, করোনার প্রকোপ সংক্রান্ত তথ্য গোপন করছে চিন। ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিযোগ, করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের যে সংখ্যা দেখাচ্ছে চিন, তাতে গলদ আছে। আসল তথ্য চেপে গোটা বিশ্বকে ধোঁকা দিচ্ছে তারা। নিজেদের দেশে ভাইরাস আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা লঘু করে দেখানোর চেষ্টা করছে চিন। সংক্রমণ থেমে যাওয়ার যে দাবি তারা করেছে সেটাও সত্যি নয়। চিনের সঙ্গে মিলে গিয়েছে WHO-ও। চিনের অনৈতিক কাজে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মদত আছে বলে মনে করছেন তিনি।

[আরও পড়ুন: করোনায় কাঁপছে আমেরিকা, ওষুধ না পেয়ে ভারতকে ‘হুমকি’ ট্রাম্পের]

মঙ্গলবার এ প্রসঙ্গে ট্রাম্প বলেন, “আমার মনে হয় ওঁরা অনেকটা চিনের দিকে ঝুঁকে আছে। চিনের প্রতি পক্ষপাতিত্ব করছে। এটা ঠিক নয়। আমরা ওদের আর্থিক সাহায্য দেওয়া নিয়ে গুরুত্ব দিয়ে ভাবছি। আমি বলছি না যে, এখনই পুরোপুরি বন্ধ করে দেব সাহায্য দেওয়া। তবে, ওদের সাহায্য দেওয়া কীভাবে বন্ধ করা যায় সেটা নিয়ে ভাবনা শুরু করছি।” ট্রাম্পের অভিযোগ WHO করোনা সম্পর্কে আমেরিকাকে ভুল পরামর্শ দিয়েছিন। ট্রাম্প বলনে,”ওঁরা আমাকে চিনের জন্য আমারিকার রাস্তা খোলা রাখার পরামর্শ দিয়েছিল। সৌভাগ্যবশত আমি সেই পরামর্শ মানিনি।” উল্লেখ্য এর আগেও ট্রাম্প রাষ্ট্রসংঘের একাধিক সংগঠনকে তোপ দেগেছেন। তাঁর দাবি, রাষ্ট্রসংঘকে সবার আগে আমেরিকার স্বার্থ রক্ষা করতে হবে। সেটা না করা হলে ফল ভুগতে হবে। উল্লেখ্য, নিজেদের আর্থিক তহবিলের একটা বড় অংশ আমেরিকার থেকে পায় WHO। তাতে যদি কাটছাঁট হয়, তাহলে সমস্যায় পড়ে যাবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement