২৮ আশ্বিন  ১৪২৬  বুধবার ১৬ অক্টোবর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

২৮ আশ্বিন  ১৪২৬  বুধবার ১৬ অক্টোবর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পাকিস্তানে রোজই খুন হচ্ছেন সংখ্যালঘু হিন্দু ও শিখ সম্প্রদায়ের মানুষরা। সংখ্যালঘুরা সেখানে অত্যাচারিত৷ দিন কয়েক আগে ভারতে পালিয়ে এসে, এমন অভিযোগই করেছিলেন প্রাক্তন পাক বিধায়ক বলদেব কুমার৷ প্রধানমন্ত্রী মোদির কাছে তাঁকে ভারতে থাকতে দেওয়ার আরজিও জানিয়েছিলেন ইমরান খানের দল পিটিআই-এর এই সদস্য৷ এবার সেই বিধায়কের বিরুদ্ধেই, তাঁর বাবাকে খুনের পালটা অভিযোগ করলেন অপর এক প্রাক্তন পাক বিধায়ক, সোরান সিংয়ের ছেলে অজয় সিং৷ মোদির কাছে তাঁর পালটা দাবি, বাবার খুনিকে আশ্রয় দেবেন না৷

[ আরও পড়ুন: সৌদির তেল কারখানায় ড্রোন হামলার দায় স্বীকার ইয়েমেনের হাউতি জঙ্গিগোষ্ঠীর ]

ভারতের এক সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকার বছর উনিশের অজয় বলেন, ‘‘মোদি সব সময় সন্ত্রাসের বিরোধিতা করেন। তিনি আশা করব, পাক সন্ত্রাসদমন আইনে অভিযুক্ত একজন খুনের আসামিকে আশ্রয় দেবেন না ভারত সরকার।’’ তাঁর অভিযোগ, ২০১৬-র ২২ এপ্রিল তাঁর বাবা সোরান সিংকে গুলি করে খুন করা হয়। ঘটনার একদিনের মধ্যে মূল অভিযুক্ত বলদেব-সহ পাঁচ জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তদন্তকারীদের দেওয়া বয়ানে বলদেব জানিয়েছিল, এমপিএ হতে চেয়েছিল সে। সোরানকে হত্যা করতে তাই ১০ লক্ষ টাকা দিয়ে ভাড়াটে খুনি নিয়োগ করে। জানা গিয়েছে, জেলে থাকাকালীনই এমপিএ নির্বাচিত হয় বলদেব কুমার৷ এবং যথাযথ প্রমাণের অভাবে ২০১৮-তে তাকে বেকসুর খালাস দেয় পাক সন্ত্রাস দমন আদালত৷ তবে আরও বাবার খুনির শাস্তির জন্য লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন সোয়ান সিংয়ের ছেলে৷ ফের আদালতে মামলা করেছেন তিনি৷ এখনও সেই মামলা চলছে।

[ আরও পড়ুন: পাকিস্তান সীমান্তে খতম লাদেনের পুত্র হামজা, ৯/১১-এর বর্ষপূর্তিতে জানালেন ট্রাম্প ]

উল্লেখ্য, সম্প্রতি তিন মাসের ভিসা নিয়ে ভারতে এসেছে বলদেব কুমার৷ এরপরই ভারতীয় সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন খাইবার পাখতুনখোয়া প্রদেশের বারিকোট বিধানসভার প্রাক্তন ওই বিধায়ক। পাকিস্তানে নিজের অভিজ্ঞতার কথা জানান তিনি৷ বলেন, ‘‘পাকিস্তানে রোজ হিন্দু ও শিখদের খুন করা হচ্ছে। সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের সঙ্গে দারুণ খারাপ ব্যবহার করে পাকিস্তানের প্রশাসন। বর্তমানে ওখানে কী হচ্ছে তা গোটা বিশ্ব দেখতে পাচ্ছে। ভেবেছিলাম খান সাহেব ক্ষমতায় এলে পরিস্থিতির পরিবর্তন হবে। কিন্তু, সেদিন আমাদের শিখ মেয়েটিকে অপহরণ করা হল। এমন জিনিস চলতে পারে না। তাই আশ্রয় চেয়ে ভারতে এসেছি এবং প্রধানমন্ত্রী মোদি সাহেবকে আমাদের সাহায্যের জন্য অনুরোধ জানাব।’’

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং