১৯ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২ জুন ২০২০ 

Advertisement

লকডাউনে বন্ধ জাদুঘর, দরজা ভেঙে চুরি ভ্যান গগের আঁকা দুর্মূল্য চিত্র

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: March 31, 2020 3:58 pm|    Updated: March 31, 2020 3:58 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: COVID-19 সংক্রমণের জেরে বিশ্ব জুড়ে মহামারী দেখা দেওয়ায় অধিকাংশ দেশেই লক ডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে পৃথিবীর সমস্ত বিখ্যাত দ্রষ্টব্য স্থানগুলি। আর এই সুযোগেই বন্ধ মিউজিয়াম থেকে চুরি গেল খ্যাতনামা ওলোন্দাজ চিত্রশিল্পী ভ্যান গগের আঁকা একটি দুর্মূল্য চিত্র।

প্রায় ১৩৬ বছরের পুরনো ওই চিত্রকর্ম। আন্তর্জাতিক এক সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, রবিবার রাত ৩টে ১৫মিনিট নাগাদ নেদাল্যান্ডের সিঙ্গার লরেন জাদুঘরের সামনের কাঁচের দরজা ভেঙে অজ্ঞাতপরিচয় দুষ্কৃতীরা ভ্যান গগের ‘পার্সোনেজ গার্ডেন অ্যাট নিউনেন ইন স্প্রিং’ নামে ছবিটি চুরি করে নিয়ে যায়। তবে আশার খবর, আরও বেশ কিছু দুর্মূল্য জিনিসপত্র সেখানে থাকলেও খোয়া যায়নি কিছু। চুরির ঘটনার সঙ্গে সঙ্গেই অ্যালার্ম বাজার ফলে পুলিশ আধিকারিকরা তৎক্ষণাৎ জাদুঘরের সেই অংশে এসে পৌঁছলেও চোরের দেখা মেলেনি। পুলিশ আসার আগেই পালিয়ে যায় তারা। প্রসঙ্গত এই চিত্রটি গ্রনিঞ্জার মিউজিয়াম থেকে আনা হয়েছিল লরেন মিউজিয়ামে।

[আরও পড়ুন: মৃত্যু মিছিলের মধ্যেও স্বস্তির খবর, ইটালিতে কমছে করোনা সংক্রমণের হার]

অন্যদিকে, গোটা ঘটনায় দুঃখপ্রকাশ করেছে বিশ্বের সংস্কৃতিপ্রেমীরা। করোনার জেরে সতর্কতামূলক কড়া ব্যবস্থা নিতেই ১২ মার্চ থেকে জাদুঘরটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। আর বন্ধ ওই ডাচ জাদুঘর থেকেই প্রায় ৫ মিলিয়ন ইউরো মূল্যের ওই ছবিটি চুরি গিয়েছে। তবে চমকপ্রদ বিষয়, ৩০ মার্চ ঠিক যেদিন ভ্যান গগের জন্মদিন ছিল, সেদিন ছবিটি খোয়া গেল! এমনটাই জানিয়ে দুঃখপ্রকাশ করেছেন লরেন মিউজিয়ামের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক জ্যান রুডল্ফ।

এক প্রেস বিবৃতিতে জাদুঘরের পরিচালক জ্যান রুডল্ফ ডি লর্ম বলেন যে, “গ্রনিঞ্জার মিউজিয়াম থেকে ধার করে আনা হয়েছিল ওই চিত্রকর্মটি। সেই বিখ্যাত ছবিটিই চুরি যাওয়ায় আমি ভীষণভাবে দুঃখিত! ১৬৭ বছর আগে যে দিন জন্মেছিলেন ভ্যান গগ, অর্থাৎ ৩০ মার্চ, সেদিনই চিত্রকর্মটি চুরি গিয়েছে।” ডি লর্ম আরও বলেন, “আমাদের অন্যতম সেরা চিত্রশিল্পীর একটি সুন্দর এবং অসামান্য চিত্রকর্ম চুরি যাওয়ায়, আমরা চেষ্টা করছি, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ছবিটিকে পুনরায় মিউজিয়ামে ফিরিয়ে আনতে এবং দোষীর উপযুক্ত শাস্তির ব্যবস্থা করতে”

[আরও পড়ুন: উদ্বেগজনকভাবে বাড়ছে মৃত্যুর হার, প্রত্যাশাকে হার মানাচ্ছে করোনার ভয়াবহতা!]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement