১৪  আষাঢ়  ১৪২৯  বুধবার ২৯ জুন ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

লাদেনকে সাহায্যকারী ইজাজ শাহকে মন্ত্রী করল ইমরানের সরকার

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: April 3, 2019 8:50 pm|    Updated: April 3, 2019 8:50 pm

Ijaz Shah known to help Bin Laden, sworn in as minister in Pakistan.

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আল-কায়দা প্রধান ওসামা বিন লাদেন যখন পাকিস্তানে ছিল তখন তাকে সবরকমের সাহায্য করেছিল তৎকালীন আইএসআই প্রধান ইজাজ শাহ। তারই যেন পুরস্কার পেল মঙ্গলবার। ওইদিন ইসলামাবাদে তাকে সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করাল পাকিস্তানের রাষ্ট্রপতি আরিফ আলভি। পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টো একসময়ে অভিযোগ করেছিল, তাকে খুন করার যারা ষড়ষন্ত্র করছে তাঁদের অন্যতম মাথা হল ইজাজ শাহ। বিরোধীদলগুলো বিশেষ করে বেনজির ভুট্টোর পিপিপি-র তরফে তীব্র বিরোধিতা করা হলেও এরকম ব্যক্তিকে পাকিস্তানের মন্ত্রী বানানো হল শুধুমাত্র ইমরান খানের নেতৃত্বাধীন তেহরিক-ই-ইনসাফের চাপে।

পাকিস্তানের প্রাক্তন সেনাপ্রধান ও রাষ্ট্রপতি পারভেজ মুশারফের একসময়ের ঘনিষ্ঠ সহচর ইজাজ শাহের বিরুদ্ধে ওসামা বিন লাদেনকে সাহায্য করার পাশাপাশি আমেরিকার টুইন টাওয়ার ধ্বংসের ষড়ষন্ত্রে লিপ্ত থাকার অভিযোগও রয়েছে। ২০১২ সালে অস্ট্রেলিয়ার একটি সংবাদপত্রে এই সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদনও প্রকাশিত হয়। তাতে আরেক প্রাক্তন আইএসআই প্রধান জেনারেল জিয়াউদ্দিন বাট অভিযোগ করেছিল, ওসামা বিন লাদেন যে দীর্ঘ ৫ বছর ধরে অ্যাবোটাবাদে লুকিয়ে ছিল তা জানত প্রাক্তন পাক প্রেসিডেন্ট পারভেজ মুশারফ। এমনকী লাদেনের গা ঢাকা দেওয়ার সুবন্দোবস্তও করে গুপ্তচর সংস্থা আইএসআইয়ের প্রাক্তন প্রধান ইজাজ শাহ। এর জন্য পাকিস্তানের অ্যাবোটাবাদে তিনতলা উঁচু পাঁচিল তুলে একটি সুবিশাল অট্টালিকাও তৈরি করতে নির্দেশ দিয়েছিল সে। ২০১১ সালে যেখানে লুকিয়ে থাকা অবস্থায় আমেরিকার কমান্ডোরা লাদেনকে খতম করেন। যদিও বাটের এই অভিযোগ পরে অস্বীকার করে ইজাজ শাহ।

[আরও পড়ুন-নগ্ন শরীরে স্লোগান লিখে পার্লামেন্টে একদল নারী-পুরুষ, ব্যাপারটা কী?]

পাকিস্তানের বর্তমান এই মন্ত্রী ২০০৪ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থার ডিরেক্টর জেনারেল থাকার পাশাপাশি গত নির্বাচনে তেহরিক-ই-ইনসাফের টিকিটে ২ নম্বর নানখানা সাহিব আসন থেকে সাংসদও নির্বাচিত হয়। এবিষয়ে বেনজির ভুট্টোর দল পিপিপি-র এক নেতা সইদ খুরশিদ অভিযোগ করেন, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সংসদের প্রতি কোনও সম্মানই নেই। তাই ইজাজ শাহকে সংসদীয় মন্ত্রী করে সংসদের কাজকর্মে ব্যাঘাত ঘটানোর চেষ্টা করছে। বিরোধীদের প্ররোচনা দিয়ে সংসদ স্তব্ধ করারই তার মূল উদ্দেশ্য। দুবাইয়ে আশ্রয় নেওয়া পারভেজ মুশারফের বিকল্প হিসেবেই তাকে মন্ত্রী করা হল।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে