২১ চৈত্র  ১৪২৬  শনিবার ৪ এপ্রিল ২০২০ 

Advertisement

চিন থেকে শিক্ষা, করোনা রুখতে ৫০ হাজার মানুষকে গৃহবন্দি করে ফেলল ইটালি প্রশাসন

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: February 23, 2020 2:40 pm|    Updated: February 23, 2020 2:40 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চিনকে দেখে শিক্ষা নিয়েছে ইটালি। মারণ জীবাণু তার ধ্বংসলীলা শুরু করার আগেই তাকে রুখতে নেমে পড়েছে সে দেশের প্রশাসন। নোভেল করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দুই ইটালীয় নাগরিকের মৃত্যুর পর অন্তত ৫০ হাজার নাগরিককে গৃহবন্দি করে ফেলা হল। গোটা উত্তর ইটালির অন্তত একডজন শহরে ভ্রমণে জারি হয়েছে নিষেধাজ্ঞা। তবে এভাবে করোনা সংক্রমণ কতটা আটকানো সম্ভব, তা নিয়েও প্রশ্ন উঠছে।

italy-lockdown1

শনিবার ইটালি প্রশাসনের তরফে জানানো হয়েছে, করোনার থাবায় দুই নাগরিকের মৃত্যু এবং অন্তত ৮০ জনের দেহে জীবাণু সংক্রমণের খবর নিশ্চিত করার পর তারা এর মোকাবিলায় ‘অতিরিক্ত সতর্কতা’ অবলম্বন করেছে। উত্তর ইটালির দুটি ছোট্ট শহর ভেনেটো এবং লোম্বার্ডিতে সত্তরোর্ধ্ব দু’জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে। যার জেরে ওই অঞ্চলের অনেকগুলি শহরেই যাতায়াত নিষিদ্ধ করে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়ে শনিবার। আপাতত চিনের ইউহানের মতো এই শহরগুলির বাসিন্দারাও গৃহবন্দি। এই সংখ্যাটা নেহাৎ কম নয়। অন্তত ৫০ হাজার। পরিস্থিতি মোকাবিলায় দেশের প্রধানমন্ত্রী কন্তে জরুরি বৈঠকও করেছেন।

[আরও পড়ুন: ‘মরে যেতে চাওয়া’ খুদের পাশে রাগবি অ্যাসোসিয়েশন, সাহস জোগালেন খেলোয়াড়রা]

শনিবারের পর থেকে ভেনেটো, লোম্বার্ডি শহরের স্কুল-কলেজ, হোটেল-রেস্তরাঁও বন্ধ করে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে প্রশাসন। শুধুমাত্র জরুরি পরিষেবা ছাড়া অন্য কিছু চালু থাকবে না, এই মর্মে স্থানীয় প্রশাসনের কাছে বিজ্ঞপ্তি পৌঁছেছে। করোনা আতঙ্কে সমস্ত ক্রীড়াসূচি বাতিল হয়ে গিয়েছে। বিশ্ববিখ্যাত ফ্যাশন শো মিলান ফ্যাশন উইক অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। খ্যাতনামা ফ্যাশন ডিজাইনার জর্জিও আরমানি রবিবার সকালেই ঘোষণা করে দিয়েছেন যে রোগ সংক্রমণের আশঙ্কায় তাঁর সংস্থা মিলান ফ্যাশন শো’য়ে অংশ নিচ্ছে না। ভেনিস কার্নিভ্যালের নির্ধারিত সূচিও বাতিল হওয়ার পথে।

[আরও পড়ুন: ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে ভারত সফরে আসছে ‘দ্য বিস্ট’, জেনে নিন এর বৈশিষ্ট্য]

অন্যদিকে, করোনা আতঙ্কে ‘রেড অ্যালার্ট’ জারি করেছে দক্ষিণ কোরিয়া। শুধু একদিনেই সেখানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১২৩ থেকে লাফিয়ে বেড়ে দাঁড়িয়েছে সাড়ে পাঁচশোর উপরে। গির্জা-সহ একাধিক উপাসনালয়ে যাতায়াতও নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে। প্রেসিডেন্ট মুন জাই-ইন এই সংকটকে ‘অপ্রত্যাশিত’ বলছেন। পাশাপাশি, শক্তিশালী জীবাণুর বিরুদ্ধে লড়াই যে কঠিন, তাও মানছেন তিনি।

s-korea-corona

Advertisement

Advertisement

Advertisement