২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানের পাশে নেই মুসলিম দুনিয়া, OIC-তে মুখ পুড়ল ইসলামাবাদের

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: August 8, 2020 2:06 pm|    Updated: August 8, 2020 2:06 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এবার কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানের পাশে দাঁড়াতে নারাজ মুসলিম দুনিয়া। জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে পাকিস্তানের দাবি মতো কোনও বৈঠক ডাকতে রাজি হয়নি মুসলিম দেশগুলির সবথেকে বড় সংগঠন Organisation of Islamic Cooperation (OIC)। ফলে রীতিমতো চটে লাল ইসলামাবাদ। কার্যোদ্ধার না হওয়ায়, এবার OIC থেকে বেরিয়ে অন্য জায়গায় দরবার করার হুমকি দিয়েছেন পাকিস্তানের বিদেশমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি।

[আরও পড়ুন: ‘পা সোজা করার জায়গাও নেই’, চিনে অমানুষিক যাতনার কথা তুলে ধরলেন উইঘুর বন্দি]

জন্মলগ্ন থেকেই কাশ্মীর নিয়ে গলা ফাটাচ্ছে পাকিস্তান (Pakistan)। প্রতিবার আন্তর্জাতিক মঞ্চে নাকাল হয়েও হাল ছাড়েনি পড়শি দেশটি। মার্কিন দরবারে কার্যসিদ্ধি না হওয়ায়, ইসলামের নাম নিয়ে মুসলিম বিশ্বে কাশ্মীর প্রসঙ্গ তুলে ধরার চেষ্টা করেছে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের প্রশাসন। যদিও তাতে কোনও লাভ হয়নি। এক তুরস্ক ছাড়া কোনও মুসলিম দেশই কাশ্মীর নিয়ে নাক গলাতে রাজি হয়নি। তবে OIC থেকেই এবার সবথেকে বড় ধাক্কা খেল পাকিস্তান। সৌদি আরব নিয়ন্ত্রিত ইসলামিক দেশগুলির সংগঠনটি সাফ জানিয়ে দিয়েছে কাশ্মীর নিয়ে এই মুহূর্তে মাথা  ঘামানোর সময় তাদের নেই। তারপরই পাক বিদেশমন্ত্রী কুরেশি চটে উঠে বলেন, “আমি OIC কাছে বিনম্র অনুরোধ জানাচ্ছি তারা যেন কাশ্মীর প্রসঙ্গে বৈঠক ডাকে। যদি আপনার এই কাজটি না পারেন, তাহলে আমি প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের কাছে অন্য মুসলিম দেশগুলির সঙ্গে আলোচনা করার কথা বলব। যে মুসলিম দেশগুলি কাশ্মীর ইস্যুতে আমাদের সঙ্গে রয়েছে এবার তাদের সঙ্গে বৈঠকে বসবো আমরা।”

বিশ্লেষকদের মতে, করোনা মহামারী ও চিন-আমেরিকা সংঘাতের আবহে কাশ্মীর নিয়ে মাথা ঘামাতে আগ্রহী নয় OIC। এছাড়া, ভারতের সঙ্গে সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরশাহী ও ওমান, মালদ্বীপ ও ইন্দোনেশিয়ার মতো মুসলিম দেশগুলির মজবুত সম্পর্ক রয়েছে। তাই এই মুহূর্তে কাশ্মীর নিয়ে কেউই আলোচনা করতে রাজি নয়। তাৎপর্যপূর্ণভাবে, গত মে মাসে OIC-তে ভারতের পক্ষে দাঁড়িয়েছিল মালদ্বীপ। শুধু তাই নয়, কাশ্মীর ইস্যু ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় বলে জানিয়েছিল সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরশাহীর মতো মুসলিম দেশগুলি। ফলে এবার ইসলামিক বিশ্বেও একঘরে হয়ে পড়েছে ইসলামাবাদ।

[আরও পড়ুন: এবার ড্রাগনের নজর ‘পৃথিবীর ছাদে’, পামির মালভূমিকেও নিজের বলে দাবি চিনের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement