২১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  রবিবার ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ‘নেইবার ফার্স্ট’ বা ‘প্রতিবেশী প্রথম’ নীতি মেনেই দু’দিনের ভুটান সফরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের পর এটি প্রথম এবং প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মোদির এটি দ্বিতীয় ভুটান সফর৷

শনিবার, ভুটানের পারো আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিশেষ বিমান৷ সেখানে তাঁকে অভ্যর্থনা জানাতে উপস্থিত ছিলেন ভুটানের প্রধানমন্ত্রী লটে শেরিং৷ সেখানে ‘গার্ড অফ অনার’ দেওয়া হয় প্রধানমন্ত্রী মোদিকে৷ এই সফরে প্রতিবেশি দেশটির সঙ্গে শিক্ষা এবং অন্যান্য একাধিক গুরুত্বপূর্ণ ১০টি বিষয়ে মউ স্বাক্ষরিত হবে বলে জানা গিয়েছে। এর পাশাপাশি, মঙ্গদেচুর হাইড্রো-ইলেকট্রিক পাওয়ার প্ল্যান্ট এবং থিম্পুতে ইসরো নির্মিত আর্থ স্টেশন-সহ আরও পাঁচটি উদ্বোধন অনুষ্ঠানেও অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী। হিমালয়ের কোলে অবস্থিত এই ছোট্ট দেশটির সফরে গিয়ে ফের ‘প্রতিবেশিই প্রথম’ নীতির ওপর জোর দিলেন মোদি।

এদিন টুইট করে সদর অভ্যর্থনার জন্য ভুটানের প্রধামন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান মোদি৷ পালটা টুইট করে প্রধানমন্ত্রীর একজন মাটির মানুষ বলে উল্লেখ করেন ভুটানের প্রধানমন্ত্রী লটে শেরিং৷ জানা গিয়েছে, ভুটানের শীর্ষ কর্তাদের সঙ্গে সাক্ষাতের পাশাপাশি দেশটির রাজা জিগমে খেসর নামগিয়াল ওয়াংচুকের সঙ্গেও সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন প্রধানমন্ত্রী মোদি৷ তারপর ‘রয়্যাল ভুটান ইউনিভার্সিটি’তে ছাত্রদের সামনে বক্তব্য রাখবেন তিনি৷

উল্লেখ্য, ডোকলামে চিনের সঙ্গে সংঘাতের সময় ভারতের পাশে দাঁড়িয়েছিল ভুটান৷ দেশটি সাফ জানিয়েছিল কোনওভাবেই ডোকলাম চিনের অংশ নয়৷ চিনা আগ্রাসনের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছিল  থিম্পু। তাই চিনকে চাপে রাখতে ভুটানের সঙ্গে সম্পর্ক আরও মজবুত করতে চাইছেন প্রধানমন্ত্রী৷ 

[আরও পড়ুন: পাক-অধিকৃত কাশ্মীর থেকে ভারতে হামলার ছক, প্রকাশ্যে জেহাদি ভিডিও]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং