BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

কলম্বোর আত্মঘাতী জঙ্গিই মূলচক্রী, দেহ শনাক্ত করে রিপোর্ট গোয়েন্দা দপ্তরের

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: April 26, 2019 4:21 pm|    Updated: April 26, 2019 4:21 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কলম্বোয় ধারাবাহিক বিস্ফোরণের মূল চক্রী নিহত হওয়ার খবর নিশ্চিত করল শ্রীলঙ্কা প্রশাসন৷ শুক্রবার প্রেসিডেন্ট মৈত্রীপালা সিরিসেনা জানিয়েছেন, গোয়েন্দা দপ্তর রিপোর্ট পেশ করে খবরের সত্যতা স্বীকার করেছে৷ প্রেসিডেন্ট বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছেন,‘গোয়েন্দা দপ্তর থেকে আমাকে জানানো হয়েছে, হোটেল শাংগ্রি-লা হামলার সময়ে জাহরান হাসিম নামে এক ইসলামিক জঙ্গির মৃত্যু হয়েছে৷’ তিনি আরও জানিয়েছেন, ওই দিনের হামলায় দ্বিতীয় আত্মঘাতী জঙ্গিকেও চিহ্নিত করা হয়েছে৷ ইলহাম নামে এক যুবকের নাম উঠে এসেছে৷ দু’জনের ছবিই ধরা পড়েছিল সিসিটিভি ফুটেজে৷ তা খতিয়ে দেখে তাদের চিহ্নিত করা হয়েছে৷ প্রকাশ করা হয়েছে ছবি এবং পরিচয়৷

[ আরও পড়ুন: আমেরিকা-ইরান দ্বৈরথে বাড়ছে তেলের দাম, উদ্বিগ্ন ভারত]

গত রবিবার, ইস্টারের প্রার্থনা চলাকালীন তিনটি গির্জা এবং তিনটি হোটেলে আত্মঘাতী হামলায় তিনশোরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে৷ চতুর্থ হোটেলে হামলার ছক ভেস্তে গিয়েছে৷ সেদিন থেকেই আত্মঘাতী জঙ্গিদের নাম,পরিচয় জানার জন্য হন্যে হয়ে কাজ করেছে গোয়েন্দা দপ্তরের৷ পাঁচদিন পর তাঁরা নিশ্চিত হয়েছে আত্মঘাতী জঙ্গিদের চিহ্নিত করা হয়েছে৷ প্রথমজন বছর চল্লিশের জারহান হাসিম৷ আইএস প্রভাবিত ন্যাশনাল তৌহিদ জামাত নামে ইসলামিক গোষ্ঠীর অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সে৷ ঘটনার প্রায় একদিন পর ইসলামিক স্টেট নিজেদের দায় স্বীকার করে একটি ভিডিও প্রকাশ করেছে৷ সেই ভিডিও খতিয়ে দেখে গোয়েন্দাদের কাছে সবটা স্পষ্ট হয়েছে৷

[ আরও পড়ুন:ইস্টারের বিস্ফোরণে ধৃত আরও ১৬, এখনও আতঙ্কে শ্রীলঙ্কা]

জাহরান হাসিম সম্পর্কে আরও দু,একটি তথ্য এসেছে তদন্তকারীদের হাতে৷ ইসলামের প্রতি হাসিমের কট্টর বিশ্বাসের কারণে সে তার পারিবারিক সম্পর্কগুলিও ধীরে ধীরে নষ্ট হয়ে যাচ্ছিল৷ আইএস প্রধান আবু বক্কর আল বাগদাদির সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পরিবারের সদস্যদের কাছ থেকে ক্রমশ দূরে সরে যাচ্ছিল৷ এমনকী স্থানীয় জঙ্গিগোষ্ঠীর সঙ্গেও খুব একটা সদ্ভাব ছিল না হাসিমের৷ তার মতাদর্শ সবসময়ে এনটিজে-র সমর্থনযোগ্য ছিল না বলে গোয়েন্দা সূত্রে খবর৷ হাসিমের মৃত্যুর পরও আতঙ্ক কাটেনি৷ শ্রীলঙ্কাজুড়ে নিরাপত্তার বজ্র আঁটুনি৷ বহু সেনা মোতায়েন হয়েছে দেশজুড়ে৷ জঙ্গি সংগঠনগুলিকে ধুলিসাৎ করে দেওয়ার জন্য চলছে জোরদার অভিযান৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement