BREAKING NEWS

৭ মাঘ  ১৪২৮  শুক্রবার ২১ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

হংকংয়ে স্নোডেনকে আশ্রয় দিয়ে মার্কিন রোষে মহিলা, ঠাঁই পেলেন কানাডায়

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: March 26, 2019 8:00 pm|    Updated: March 27, 2019 9:31 am

The woman who gave Snowden safe passege is in Canada now

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থার নজরদারির গোপন তথ্য ফাঁস করে বিপদে পড়েছিলেন এডওয়ার্ড স্নোডেন৷ বিপদ এখনও কাটেনি৷ আপাতত রাশিয়ার আশ্রয় থাকলেও, সিআইএ তাঁর উপর থেকে নজর সরায়নি৷ তবে এই প্রতিবেদনের মুখ্য চরিত্র স্নোডেন নন, বরং আমেরিকা থেকে পালানোর পর তাঁর প্রথম আশ্রয়দাত্রীর খবর৷ সেই আশ্রয়দাত্রী নিজে এবার নিরাপদ আশ্রয় পেলেন কানাডায়৷ সপরিবারে সেখানকার স্থায়ী বাসিন্দা হলেন৷

                                      [ আরও পড়ুন: ৩০ বছরেই জলশূন্য হবে ব্রিটেন! উষ্ণায়ন নিয়ে সতর্কবার্তা ব্রিটিশ গবেষকদের]

নাম ভানেসা রডেল৷ বছর বিয়াল্লিশের হংকং নিবাসী মহিলা৷ ২০১৩ সালে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থার তাড়া খেয়ে যখন আমেরিকা থেকে পালিয়ে যান স্নোডেন, সেসময় প্রথম আশ্রয় পেয়েছিলেই এই ভানেসার কাছেই৷ সঙ্গে ছিলেন ভানেসার কয়েকজন বন্ধুবান্ধব৷ তারপর থেকে মার্কিন গোয়েন্দাদের নজরে ছিলেন ভানেসা ও তাঁর বন্ধুরা৷ ছোট মেয়ে কিয়ানাকে নিয়ে দিন কাটত আতঙ্কে৷ ফিলিপিন্সের নাগরিক ভানেসা বুঝতে পারছিলেন, হংকং তাঁর জন্য আর নিরাপদ নেই৷ বোঝামাত্রই নিরাপদ জায়গা খুঁজতে শুরু করেছিলেন৷ আবেদন করছিলেন বিভিন্ন দেশে৷ ততদিনে স্নোডেন রাশিয়ার রাজনৈতিক আশ্রয়ে থাকতে শুরু করেছেন৷ তবে প্রথম আশ্রয়দাত্রীকে ভোলেননি৷

জানুয়ারিতে কানাডায় শরণার্থীর পরিচয়ে স্থায়ীভাবে বসবাসের জন্য আবেদন করেন ভানেসা রডেল৷ এই কাজে তাঁর পাশে ছিলে এক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন, যাঁরা উদ্বাস্তুদের নিয়ে কাজ করে৷ তাতেই রাস্তা অনেকটা পরিষ্কার হয়েছে৷ সেই আরজি মঞ্জুর করে ফিলিপিন্সের নাগরিক ভানেসাকে নিজেদের দেশে আশ্রয় দিয়েছে কানাডা প্রশাসন৷ সোমবার হংকং থেকে বিমানে টরেন্টো পৌঁছান ভানেসা এবং মেয়ে কিয়ানা৷ বিমানবন্দরে পা রেখেই ভানেসার প্রথম প্রতিক্রিয়া, ‘এবার আমি মুক্ত, নিরাপদ৷ মেয়েটাকে নিয়ে শান্তিতে জীবন কাটাব৷ কানাডা প্রশাসনের কাছে আমি কৃতজ্ঞ৷’ তাঁর ছোট মেয়ে কিয়ানার ভবিষ্যতের কথা ভেবেই জলদি এই সিদ্ধান্ত বলে কানাডার সরকারি সূত্রে খবর৷ যদিও প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো এবিষয়ে মুখ খোলেননি৷

                                         [ আরও পড়ুন:  ভেস্তে গেল বিদ্রোহীদের সঙ্গে বৈঠক, ব্রেক্সিট নিয়ে বিপাকে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ]

সম্প্রতি শরণার্থী এবং আশ্রয়প্রার্থীদের জন্য কানাডা প্রশাসন বেশ সহানভূতিশীল৷ মাস দুই আগে সৌদি আরবে পরিবারের অনুশাসন ভেঙে পালিয়ে আসা তরুণীকে আশ্রয় দিয়েছে কানাডা৷ এবার শরণার্থীর মর্যাদায় স্থায়ী আশ্রয় প্রদান ফিলিপিন্সের বাসিন্দা ভানেসা রডেলকে৷ আন্তর্জাতিক মহলের একাংশের মত, জাস্টিন ট্রুডো প্রধানমন্ত্রীর হওয়ার পর এধরনের বিষয়ে বাড়তি নজর দেওয়া হচ্ছে৷ কানাডার এমন ভূমিকা বিশ্বের দরবারে বেশ প্রশংসিত হয়েছে৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে