১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  সোমবার ১৮ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ‘ভারতে বিনিয়োগের এটাই সেরা সময়।’ রবিবার ব্যাংককে শিল্পপতিদের সম্মেলনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে এই আবেদনই করলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এর পাশাপাশি খুব তাড়াতাড়ি ভারত পাঁচ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলারের অর্থনীতিতে পৌঁছে যাবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

[আরও পড়ুন: ভারতে একযোগে ফিদায়েঁ হামলার ছক লস্কর-জইশের, গোয়েন্দা রিপোর্টে চাঞ্চল্য]

ভিড়ঠাসা সম্মেলনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘আজকের ভারতে অনেক ইতিবাচক পরিবর্তন হয়েছে। তার কিছু ছবি আপনাদের সামনে তুলতে ধরতে উদগ্রীব হয়ে পড়েছি আমি। আর সম্পূর্ণ আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে জানাচ্ছি যে ভারতে বিনিয়োগ করার এটাই সেরা সময়।’

এরপরই সহজে ব্যবসা করার জায়গা হিসেবে ভারতের নাম বিশ্ব ব্যাংকের ক্রম তালিকায় উপরে দিকে উঠে এসেছে বলেও জানান তিনি। বলেন, ‘কিছু জিনিস যেমন উপরের দিকে উঠছে তেমনি কিছু জিনিস নামছে। একদিকে সহজে ব্যবসা ও বসবাস করার সুযোগ, বিদেশি বিনিয়োগ, বনাঞ্চলের পরিমাণ, পেটেন্ট ও মোট উৎপাদনের ক্ষমতা বাড়ছে। আর অন্যদিকে কর, করের হার, লাল ফিতের সংস্কৃতি, দুর্নীতি ও স্বজনপোষণ কমছে। দুর্নীতিগ্রস্তরা লুকনোর জন্য আড়াল খুঁজছে। তাই বিনিয়োগ ও সহজে ব্যবসা করতে ভারতে আসুন। নতুন কিছু শুরু করতে হলে এর থেকে ভাল জায়গা আর নেই। এর পাশাপাশি ভারতের জনপ্রিয় কিছু পর্যটন কেন্দ্রে ভ্রমণ করুন। সেখানকার মানুষের আতিথেয়তা স্বাদ গ্রহণ করুন। ভারত আপনারদের জন্য দু’হাত বাড়িয়ে অপেক্ষা করছে।’ বক্তব্যের ফাঁকে বারবারই প্রাচীনকাল থেকে ভারত ও থাইল্যান্ডের মধ্যে থাকা দৃঢ় সাংস্কৃতিক সম্পর্কের কথা মনে করিয়ে দিচ্ছিলেন মোদি। বাণিজ্য ও সংস্কৃতির মধ্যে ঐক্যবদ্ধ করার অদ্ভুত ক্ষমতা আছে বলেও উল্লেখ করেন।

[আরও পড়ুন:কর্ণাটকে কুমারস্বামী সরকারের পতন ঘটিয়েছেন খোদ অমিত শাহ! স্বীকারোক্তি ইয়েদুরাপ্পার]

পাঁচ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলারের অর্থনীতির দিকে ভারত দ্রুত এগিয়ে চলেছে বলেও রবিবার ব্যাংককে দাবি করেন প্রধানমন্ত্রী। এপ্রসঙ্গে বলেন, ‘বর্তমানে ভারত পাঁচ ট্রিলিয়ন অর্থনীতিতে পৌঁছনোর স্বপ্ন দেখছে। ২০১৪ সালে আমার সরকার যখন ক্ষমতায় এসেছিল তখন দেশের অর্থনীতি ছিল দুই ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলারের। কিন্তু, গত পাঁচ বছরে সেটাকে বাড়িয়ে তিন ট্রিলিয়নে পৌঁছে গিয়েছি আমরা। আর এর ফলে আমার মনে দৃঢ় বিশ্বাস জন্মেছে যে খুব তাড়াতাড়ি আমরা পাঁচ ট্রিলিয়নে পৌঁছে যাব।’

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং