২ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ২০ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ‘হাউডি মোদি’ নিয়ে আমেরিকায় বসবাসকারী ভারতীয় বংশোদ্ভুদদের মধ্যে উৎসাহে কমতি নেই। মার্কিন মুলুকের ভারতীয়দের মধ্যে সাজো সাজো রব। রবিবার প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি যৌথভাবে ‘হাউডি মোদি’ সম্মেলনে বক্তব্য রাখবেন। মঙ্গলবার আবার মোদির সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করবেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। কিন্তু, এসবের মধ্যেই আবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট দেখা করবেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে। যা নিয়ে ফের কূটনৈতিক মহলে জল্পনা ছড়িয়েছে। তবে, কি ফের কাশ্মীর ইস্যুতে দু’দেশের মধ্যে শান্তি স্থাপনের চেষ্টা করবেন ট্রাম্প?

[আরও পড়ুন: মোদির সভার আগে আমেরিকায় বন্দুকবাজের হামলা, মৃত কমপক্ষে ১]

আগামী সপ্তাহেই রাষ্ট্রসংঘের সাধারণ সভায় এক সভায় বক্তব্য রাখার কথা মোদি এবং ইমরানের। পাক প্রধানমন্ত্রী যে কাশ্মীর ইস্যুতে ভারতকে কোণঠাসা করার চেষ্টা করবেন, তা নিয়ে কোনও সন্দেহের অবকাশ নেই। কিন্তু, তার আগে মার্কিন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে তাঁর সাক্ষাৎ কীসের উদ্দেশে তা নিয়ে জল্পনা ছড়িয়েছে কূটনৈতিক মহলে।
এর আগে একাধিকবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প কাশ্মীর ইস্যুতে মধ্যস্থতার বার্তা দিয়েছেন। ৩৭০ ধারা বিলোপের পর প্রথমবার কাশ্মীর ইস্যুতে মুখ খুলেই ট্রাম্প বলেছিলেন, ভারত এবং পাকিস্তান চাইলেই তিনি দুই দেশের মধ্যে মধ্যস্থতাকারী হিসেবে কাজ করতে প্রস্তুত। যদিও, নয়াদিল্লি মার্কিন প্রেসিডেন্টকে সাফ জানিয়ে দেয়, কাশ্মীর ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় এবং পাক অধিকৃত কাশ্মীর দ্বিপাক্ষিক বিষয়। এ নিয়ে যদি কোনও আলোচনা হয় তা ভারত-পাক দ্বিপাক্ষিক স্তরেই হবে। তৃতীয় কোনও শক্তির হস্তক্ষেপ বরদাস্ত করা হবে না। কিন্তু তাতেও দমে যাননি মার্কিন প্রেসিডেন্ট। আবারও তিনি মধ্যস্থতার প্রস্তাব দিয়েছেন। আবারও নয়াদিল্লি তাঁর প্রস্তাব নাকচ করে দিয়েছে।

[আরও পড়ুন: মোড় ঘুরছে সম্পর্কের, মোদি-জিনপিং বৈঠকের মূল বিষয় নয় কাশ্মীর!]

এসবের মধ্যেই সোমবার কথা বলবেন ইমরান-ট্রাম্প। তার আগে অবশ্য রবিবারই মোদি এবং ট্রাম্পকে একসঙ্গে দেখা যাবে ‘হাউডি মোদি’র মঞ্চে। যদিও, সেখানে কোনও দ্বিপাক্ষিক ইস্যুতে আলোচনা হওয়ার অবকাশ নেই। মোদি-ট্রাম্প দ্বিপাক্ষিক বৈঠকটি হবে মঙ্গলবার। অর্থৎ সে অর্থে মোদি-ট্রাম্প বৈঠকের আগেই হয়ে যাচ্ছে মোদি-ইমরান বৈঠক। এখন দেখার, মার্কিন প্রেসিডেন্ট দুই দেশের মধ্যে শান্তি প্রক্রিয়া শুরুর চেষ্টা করেন নাকি ফের মধ্যস্থতার প্রস্তাব দেন।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং