BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘পরিস্থিতি আরও খারাপ হবে’, করোনা নিয়ে সতর্ক করল WHO

Published by: Bishakha Pal |    Posted: April 21, 2020 9:27 am|    Updated: April 21, 2020 9:59 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা আতঙ্কে ত্রস্ত এখন গোটা বিশ্ব। ইউরোপ ও আমেরিকাজুড়ে চলছে মৃত্যুমিছিল। ধসে পড়েছে অর্থনীতি। কিন্তু প্রাণঘাতী করোনা এখানেই থামবে না। ভয়ানক পরিস্থিতি দেখা এখনও বাকি। জানালেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ডিরেক্টর-জেনারেল টেডরোজ আধানাম।

তিনি অবশ্য একথা স্পষ্ট করেননি যে কেন তাঁর মনে হয় ২.৫ মিলিয়ন মানুষকে সংক্রমিত করার পর এবং দেড় লক্ষ মানুষের মৃত্যুর পরও কেন পরিস্থিতি ভয়াবহ নয়। কেন এর প্রাদুর্ভাব আরও খারাপ হতে পারে। যদিও তিনি এবং অন্য বিশেষজ্ঞরা যদিও আগে আফ্রিকা ও অন্য দেশ, যেখানে স্বাস্থ্য পরিষেবা উন্নত নয়, সেখানে ভবিষ্যতের ভাইরাস ছড়িয়ে যাওয়ার দিকে ইঙ্গিত করেন।

জেনেভায় হুয়ের হেডকোয়ার্টারে টেডরোস জানিয়েছেন, “বিশ্বাস করুন, ভয়ানক পরিস্থিতি এখনও আমাদের দেখা বাকি। আসুন, একসঙ্গে মিলে আমরা এই ট্র্যাজেডি প্রতিরোধ করি। এটি এমন একটি ভাইরাস যা এখনও অনেকে বুঝে উঠতেই পারেনি।” এশিয়া ও ইউরোপের কিছু দেশ লকডাউন শিথিল করছে। করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর হার কমার দিকে উল্লেখ করে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা। যদিও স্কুল ও একাধিক ক্ষেত্র তারা বন্ধ রাখছে। জনসমাবেশে ক্ষেত্রেও জারি রয়েছে নিষেধাজ্ঞা।

[ আরও পড়ুন: করোনার মারে টালমাটাল জ্বালানির বাজার, জলের চেয়েও সস্তা হল তেল ]

করোনা ভাইরাসের ভয়াবহতা বোঝাতে হুয়ের প্রধান স্প্যানিশ ফ্লুয়ের উল্লেখ করেছেন তিনি। বলেছেন, ১৯১৮ সালের এই ফ্লুয়ে বিশ্বের প্রায় ১০ কোটি মানুষের মৃত্যু হয়েছিল। করোনাও কিছু কম ভয়বাহ নয়। তবে বর্তমানে মানুষ অনেক উন্নত। বিপর্যয়কে নিয়ন্ত্রণে আনার ক্ষমতা রয়েছে মানুষের। কিন্তু তা সত্ত্বেও এখনও মানুষ করোনা পরিস্থিতিকে নিয়ন্ত্রণে আনতে পারেনি। পরিস্থিতি আরও খারাপ হবে।

করোনা পরিস্থিতিতে সম্প্রতি WHO-এর স্বচ্ছ্বতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিল আমেরিকা। এদিন সেই অভিযোগও নস্যাৎ করে দেন সংস্থার ডিরেক্টর-জেনারেল। জানান, প্রথম দিন থেকেই আমেরিকার কাছে কিছুই গোপন করা হয়নি। যা তথ্য পাওয়া গিয়েছে সবই সবাইকে জানানো হয়েছে।  এই পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে একসঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে পরিস্থিতি মোকাবিলার আবেদন জানান তিনি। 

[ আরও পড়ুন: ১৫ পাতার শ্রদ্ধার্ঘ্য, মার্কিন সংবাদপত্র জুড়ে শুধুই মৃতদের নাম ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement