৪ মাঘ  ১৪২৫  শনিবার ১৯ জানুয়ারি ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফিরে দেখা ২০১৮ ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রায় এক দশক ধরে কোমায় আচ্ছন্ন থাকা অবস্থাতেই পুত্রসন্তানের জন্ম দিলেন এক মহিলা৷ চিকিৎসকেরা জানান, আপাতত সুস্থই রয়েছে সদ্যোজাত৷ কিন্তু কোমায় আচ্ছন্ন থাকা অবস্থাতেও কীভাবে গর্ভবতী হলেন ওই মহিলা? তাঁকে কি ধর্ষণ করা হয়েছিল নাকি যৌন সংসর্গের ফলেই সন্তানসম্ভবা হয়েছিলেন ওই মহিলা? বিরল এই ঘটনায় একাধিক প্রশ্নের ভিড়৷ কোমায় আচ্ছন্ন অবস্থাতেই সন্তান প্রসবের ঘটনায় হাসপাতালের নিরাপত্তা নিয়েও উঠছে প্রশ্ন৷

[সংখ্যালঘু প্রীতি প্রমাণে মোদিকে বেনজির আক্রমণ পাক প্রধানমন্ত্রীর]

ঘটনাটি ঘটেছে সুদূর আমেরিকার অ্যারিজোনা প্রদেশে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, যেহেতু ওই মহিলা কোমায় ছিলেন, তাই তাঁর খেয়াল রাখার জন্য কোনও না কোনও ব্যক্তি ওই ওয়ার্ডে ঢুকতেন। তবে তিনি যে সন্তানসম্ভবা তা নাকি জানতেন না হাসপাতালের কেউই। কর্তৃপক্ষের আরও দাবি, গত ২৯ ডিসেম্বর আচমকাই ওয়ার্ড থেকে ওই মহিলার কান্নার শব্দ শুনতে পান এক নার্স। এরপরেই পরীক্ষা করে জানা যায় যে কোমায় থাকা ওই মহিলা সন্তানসম্ভবা। সেদিনই কিছুক্ষণের মধ্যে একটি পুত্রসন্তানের জন্ম দেন তিনি। চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, সুস্থও রয়েছে নবজাতক।

[‘যুদ্ধের জন্য প্রস্তুতি নাও’, সেনাকে নির্দেশ চিনের প্রেসিডেন্ট জিনপিংয়ের]

ওই মহিলার দেখভালের দায়িত্বে ছিলেন হাসপাতালের বেশ কয়েকজন পুরুষ কর্মী৷ পুলিশের অনুমান, সম্ভবত এই ব্যক্তিদের মধ্যেই কারও সঙ্গে তাঁর যৌন সম্পর্ক তৈরি হয়৷ আর তার ফলেই সন্তানসম্ভবা হয়ে পড়েন মহিলা। তাঁকে যৌন হেনস্তা করা হয়েছিল কিনা, তাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ৷ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দাবি ওই মহিলাকে চব্বিশ ঘণ্টা দেখভাল করা হত৷ তা সত্ত্বেও মহিলা যে সন্তানসম্ভবা কেন বুঝতে পারল না হাসপাতালের কেউ৷ এ বিষয়টিও ভাবাচ্ছে তদন্তকারীদের৷  ইতিমধ্যেই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে তদন্তও শুরু হয়েছে। গোটা ঘটনা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেছে কিনা, তা খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা৷ ঘটনার তদন্তে সম্পূর্ণ সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং