আপনি কি খুব রোগা? তাহলে এই ধরনের পোশাক পরা উচিত

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্কঃ ‘পহেলে দর্শনধারী ফির গুনবিচারী’- আগেকার মানুষজন কথাটা কতটা মেনে চলতেন তা জানা নেই, তবে বর্তমানে মানুষের ক্ষেত্রে এই কথাটিই সবচেয়ে বেশি প্রযোজ্য। আজকের দিনে অনেক বেশি নিজেকে পিকচার পারফেক্ট দেখাতে ব্যস্ত আমরা। কিন্তু, এইসবের মাঝে সমস্যা হয়ে দাঁড়ায় শরীর। মোটা হলে তাও ঠিক আছে, কিন্তু রোগা হলে তো কথাই নেই। কোন জামা-কাপড় গায়ে আঁটবে তাই নিয়ে রোগাদেরই বেশি সমস্যায় পড়তে হয়। অতিরিক্ত রোগা হলে, সঠিক সাইজের জামাকাপড় পেতে যেমন বাজার চষে ফেলতে হয়, তেমনই পাওয়ার পরও কেমন দেখতে লাগবে সেই আশঙ্কা থেকেই যায়। সিক্স প্যাকস, এইট প্যাকস, বাইসেপ বা ট্রাইসেপ এই যুগে পুরুষদের ফ্যাশনে ইন স্টাইল। ফলে রোগা পুরুষদের সবচেয়ে বেশি সমস্যায় পড়তে হয়। তবে সমস্যা যেমন রয়েছে তার সমাধানও রয়েছে। আপনার জামার পরার স্টাইল ভার্চুয়ালি বদলে দিতে পারে আপনার দেখনদারি। কেমন ভাবে?

[নিয়মিত শারীরিক সম্পর্কেই প্রখর থাকবে স্মৃতিশক্তি, কী বলছেন বিশেষজ্ঞরা?]

ফ্যাশন বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, রোগা হয়েও সামনের ব্যক্তির কাছে সেই রহস্য লুকিয়ে রাখতে পারবেন আপনি। এবং কয়েকটা সহজ উপায়েই করা যায় এই কাজ। দর্শনীয় বাইসেপ বা ট্রাইসেপ নাই বা থাকল, জামা পরার স্টাইলের চোটেই সামনের জনের বোঝার উপায়ই থাকবে না আপনার শরীরের আসল গঠন। এক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞরা বেশি ব্যবহার করতে বলছেন, সেমি-স্কিনফিটেড শার্ট। কেমন এই শার্ট? কাঁধ, বুক ও বাইসেপের কাছটা টাইট ফিট থাকলেও এই ধরনের শার্টের নিচের দিকটা থাকে ঢিলেঢালা। আপনাকে যাঁরা সামনে থেকে দেখবে তাঁদের অনায়াসে মনে হবে আপনার বাইসেপ বা ট্রাইসেপ রয়েছে। তাঁরা বুঝতেও পারবেন না আসলে আপনি কতটা রোগা!

[কীভাবে বুঝবেন আপনার পুরুষ পার্টনারটি ভারজিন?]

আরও উপায় রয়েছে। আপনি যদি ফুলহাতা বা ফুলস্লিভ জামা পরেন তাহলে গুটিয়ে নিতে পারেন আপনার জামার হাতা। ফলে বাইসেপটা একটু টাইট ফিট হয়ে যাবে। আর আপনারও সমস্যার সমাধান হবে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, রোগা ব্যক্তিদের টি-শার্ট নির্বাচনের ক্ষেত্রে হতে হবে অনেক বেশি সতর্ক। শপিংয়ে গিয়ে যেকোনও টি-শার্ট কিনলেই চলবে না। চেষ্টা করুন ভি-নেক টি-শার্ট কিনতে। এড়িয়ে যান রাউন্ড নেক টি-শার্ট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *