৩ কার্তিক  ১৪২৬  সোমবার ২১ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

ধীমান রায়, কাটোয়া: বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের জেরে আত্মঘাতী এক যুবক-যুবতী। বুধবার সকালে বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে ওই দুজনের দেহ উদ্ধার করা হয়। ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমানের কেতুগ্রামের শ্রীগ্রামে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছয়। সারজা শর্মা এবং ছোটন দাস নামে ওই যুবক-যুবতীর দেহ দুটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠায়। পুলিশের অনুমান, বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কে টানাপোড়েনের জেরেই আত্মঘাতী হয়েছেন দুজনে। তবে আত্মহত্যার নেপথ্যে অন্য কোনও কারণ রয়েছে কি না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: দশমীতে তরুণীর শ্লীলতাহানিকে ঘিরে ধুন্ধুমার রায়গঞ্জে, আটক টিএমসিপি নেতা]

শ্রীগ্রামের পাশে মাঠের ধারে বনকালীতলায় একটি পুরানো টিনের ছাউনি ঘরের চালে ঝুলন্ত অবস্থায় ওই যুবক-যুবতীকে দেখতে পান স্থানীয়রা। খবর পেয়ে কেতুগ্রাম থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছয়। দেহ দুটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠায়। দেহ দুটির কাছে একটি ব্যাগও উদ্ধার হয়েছে। তার মধ্যে মহিলাদের কিছু প্রসাধনী সামগ্রী পাওয়া গিয়েছে। ব্যাগে থাকা কাগজপত্র দেখে মহিলার নাম জানতে পারে পুলিশ।

[আরও পড়ুন: বাজি তৈরি করতে গিয়ে বিস্ফোরণ, মর্মান্তিক পরিণতি ২ যুবকের]

ছোটন দাস নামে ওই যুবক ছিলেন পেশায় ট্রাকটর চালক। প্রায় ১০ বছর আগে মুর্শিদাবাদের বাজরা এলাকায় বিয়ে হয়েছিল ছোটনের। দুই ছেলেও রয়েছে তাঁর। ছোটনের দাদা সনাতন বলেন, “এলাকায় তেমন কাজ না থাকায় দু’মাস আগে ভাই বেঙ্গালুরুতে ট্রাকটর চালানোর কাজ করতে গিয়েছিল। পুজোয় বাড়ি ফেরার কথা ছিল। কিন্তু বাড়ি আসেনি। ভাইয়ের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু যোগাযোগ করতে পারিনি। ওর মালিকের নম্বরে ফোন করেছিলাম দিনদশেক আগে। তিনি জানিয়েছিলেন পুজোর কারণে ভাই বেঙ্গালুরু থেকে চলে এসেছে। কিন্তু বাড়ি না ফেরায় বারবার তার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করি। তবে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। তারপর জানতে পারি ও আত্মহত্যা করেছে।” মৃতের পরিবারের দাবি তারা কেউ ছোটনের বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের কথা জানতেন না। ওই যুবতীর পরিবারের তরফে কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং