BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ভাইজাগে গ্যাস দুর্ঘটনার জের, হলদিয়ার শিল্পসংস্থাগুলিকে সতর্ক করলেন মন্ত্রী শুভেন্দু

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: May 8, 2020 9:20 pm|    Updated: May 8, 2020 9:25 pm

An Images

কৃষ্ণকুমার দাস: ভাইজাগের পলিমার কারখানায় দুর্ঘটনার জেরে হলদিয়ার শিল্পকারখানা, বিশেষ করে অতিদাহ্য রাসায়নিক বা বিপজ্জনক গ্যাস ব্যবহৃত এবং উৎপাদন হয় এমন সমস্ত সংস্থাকেই সতর্ক করল রাজ্য সরকার। রাজ্যের তরফে সংস্থাগুলিকে দাহ্য গ্যাস ও প্ল্যাস্টিক জাতীয় সামগ্রী সংরক্ষণ এবং মজুতে কী কী নিরাপত্তামূ্‌লক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে তা জরুরি ভিত্তিতেই নজরদারি চালিয়ে পূনর্মূল্যায়ন করতেও বলল হলদিয়া উন্নয়ন পর্ষদ। বিশাখাপত্তনমে ভয়ংকর গ্যাসকাণ্ডের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই ইন্ডিয়ান অয়েল কর্পোরেশন, হলদিয়া পেট্রোকেমিক্যালসের মতো সমস্ত বড় শিল্পসংস্থাকে রীতিমতো চিঠি পাঠিয়ে সতর্ক করেছেন পর্ষদের চেয়ারম্যান তথা রাজ্যের সেচ ও পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী।

পশ্চিমবঙ্গে গত আট-নবছরে রেকর্ড পরিমাণ বিনিয়োগ যে শিল্পনগরীতে হয়েছে সেই হলদিয়ায় অতিদাহ্য গ্যাস, রাসায়নিক ও বিপজ্জনক সামগ্রী নিয়ে বিশেষ সতর্কতা চালুর নির্দেশ দিয়েছেন হলদিয়া উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান শুভেন্দু অধিকারী। শিল্পসংস্থাগুলিকে পাঠানো চিঠিতে শুভেন্দু বলেছেন, “জনস্বার্থে সমস্ত দাহ্য গ্যাস, বিপজ্জনক রাসয়নিক সামগ্রী উৎপাদন, মজুত ও স্থানান্তর করার ক্ষেত্রে অবিলম্বে বাড়তি সতর্কতা, নজরদারি নিতে হবে।”

[আরও পড়ুন: কলকাতার বুকে খাসির বদলে কুকুরের মাংস বিক্রির অভিযোগ! শুরু তদন্ত ]

পর্ষদের চেয়ার‌্যাম্যানের চিঠি পাওয়ার পরেই শুক্রবার একাধিক শিল্পসংস্থার তরফে দুর্ঘটনা রুখতে নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা খতিয়ে দেখা হয়। হলদিয়া পেট্রোকেমিক্যালস-সহ সমস্ত শিল্প ও কারখানায় চলতি যে সমস্ত পদ্ধতি এবং নজরদারি ব্যবস্থা চালু রয়েছে। সেগুলি জরুরি ভিত্তিতে আরও একবার খতিয়ে দেখতে সংস্থার কর্তাদের অনুরোধ করেছেন মন্ত্রী। গ্যাস লিকের মতো ঘটনা রুখতে পূর্ব মেদিনীপুরের জেলাশাসকও সংস্থাগুলিকে সতর্কবার্তা দিয়েছেন। রাজ্য দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের গাইডলাইনও কড়াভাবে মানতে বলেছেন মন্ত্রী।

বিশাখাপত্তনমের দুর্ঘটনার খবর পাওয়ার পরেই নিজে ফোনে একাধিক শিল্প সংস্থার নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা নিয়ে খোঁজ নিয়েছেন শুভেন্দু। উন্নয়ন পর্ষদ থেকে চিঠি পাঠিয়ে সতর্ক করা হয়েছে মিৎসুবিশি, আদানি উইলমার, ইন্দোরাম, ইমামি অ্যাগ্রোটেক, ধানসিরি পেট্রোকেমিক্যালস ও এমসিপিআই-এর মতো বৃহৎ শিল্পগোষ্ঠীকে। জনস্বার্থে ১৯৮৯ সালের বিপজ্জনক সামগ্রী উৎপাদন, মজুত ও পরিবহণ আইন এবং ২০১৬ সালের বিপজ্জনক বর্জ্য ব্যবস্থাপনা আইন মেনেই শিল্প সংস্থাগুলিকে সমস্ত নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা দ্রুত গ্রহণ করতে বলেছেন শুভেন্দু।

[আরও পড়ুন: করোনার বলি ভারতীয় জাদুঘরে কর্মরত সিআইএসএফ জওয়ান, কোয়ারেন্টাইনে ৩৩ জন]

এপ্রসঙ্গে হলদিয়ার পুরপ্রধান শ্যামল আদক বলেন, ‘উন্নয়ন পর্ষদের নির্দেশ মেনেই ব্যবস্থা নিতে বলেছি। ফ্যাক্টরি ইনস্পেক্টরকে দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের গাইডলাইন মানতে বলছে পুরসভা।’

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement