BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

কোভিড রোগীর মৃত্যুর পর ধাপে ধাপে প্রায় সাড়ে ৯ লক্ষের বিল ধরাল নার্সিংহোম! ক্ষুব্ধ পরিবার

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: July 17, 2020 3:44 pm|    Updated: July 17, 2020 3:44 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা (Corona Virus) রোগীর মৃত্যুর পর ধাপে ধাপে সাড়ে আট লক্ষ টাকা নিয়েছিল বেসরকারি হাসপাতাল। কিন্তু সেখানেও শেষ নয়, দেহ পরিবারের হাতে তুলে দেওয়ার আগে আরও ৬৫ হাজার টাকার দাবি জানায় কর্তৃপক্ষ। এতেই ক্ষুব্ধ পরিবারের সদস্যরা। তাঁদের কথায়, বিল মেটাতে আপত্তি নেই, কিন্তু কেন বারবার ধাপে ধাপে টাকা চাইছে? এ প্রশ্নের সদুত্তর দিতে পারেনি নার্সিংহোম।

জানা গিয়েছে, মুর্শিদাবাদের (Murshiabad) বহরমপুরের বাসিন্দা বছর ৭২-এর এক বৃদ্ধ বেশ কিছুদিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন। জ্বর-সর্দি-কাশি-সহ করোনার একাধিক উপসর্গ ছিল তাঁর। তাই ঝুঁকি না নিয়ে তাঁকে ভরতি করা হয়েছিল একটি বেসরকারি হাসপাতালে। সেখান থেকেই তাঁর নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছিল। রিপোর্ট আসতেই জানা যায়, তিনি আক্রান্ত। এরপর বৃদ্ধের স্ত্রী ও পুত্রকেও হাসপাতালে ভরতি নেয় কর্তৃপক্ষ। শনিবার সেখানেই মৃত্যু হয় বৃদ্ধের। পরিবারের অভিযোগ, প্রথমে নার্সিংহোমের তরফে তাঁদের সাড়ে তিন লক্ষ টাকার বিল দেয়। পরে আরও পাঁচ লক্ষ টাকা দাবি করে নার্সিংহোম। এরপর বৃহস্পতিবার রাতে মৃতের পরিবারের কাছে আরও ১৫ হাজার টাকা চাওয়া হয়। সব পাওনা মিটিয়ে শুক্রবার সকালে দেহ আনতে হাসপাতালে যায় মৃতের পরিবারের সদস্যরা।

[আরও পড়ুন:  রাস্তা থেকে উদ্ধার বিজেপি কর্মীর ক্ষতবিক্ষত দেহ, খুন নাকি দুর্ঘটনা? বাড়ছে ধোঁয়াশা]

সূত্রের খবর, এদিন সকালে ফের মৃতের পরিবারের কাছে ৬৫ হাজার টাকা দাবি করে নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষ। লাগাতার নার্সিংহোমের এই আচরণে ক্ষোভ প্রকাশ করেন রোগীর পরিবারের সদস্যরা। কেন ধাপে ধাপে এভাবে টাকা চাওয়া হচ্ছে, সেই প্রশ্নও তোলেন। কিন্তু কোনও কিছুরই সদুত্তর দিতে পারেনি নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষ। তবে বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছে তাঁরা।

[আরও পড়ুন: বিমার ২০ লক্ষ টাকা আনতে গিয়ে ‘অপহৃত’ গ্রাহক, হাড়োয়া থানার দ্বারস্থ পরিবার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement