১৯ আষাঢ়  ১৪২৭  সোমবার ৬ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

আমফান মোকাবিলায় সাহসিকতার পরিচয় দিয়েছে বাংলা, দরাজ সার্টিফিকেট প্রধানমন্ত্রীর

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: May 31, 2020 3:33 pm|    Updated: May 31, 2020 3:33 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ঘূর্ণিঝড় আমফানের তাণ্ডবে ছারখার দক্ষিণবঙ্গ। সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত দুই ২৪ পরগনা। তবুও ফিনিক্স পাখির মতো ধ্বংসস্তূপ থেকে উঠে দাঁড়াচ্ছে ঘূর্ণিঝড় বিধ্বস্ত বাংলা। আর বাংলার এই প্রয়াস, বলা ভাল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভূমিকার ভূয়সী প্রশংসা করলেন রবিবার প্রধানমন্ত্রী। এদিন রেডিওতে ‘মন কি বাত’ অনুষ্ঠানে আলাদা করে বাংলার সরকারের কাজের প্রশংসা করলেন নরেন্দ্র মোদি

এর আগে আমফানের তাণ্ডবের পরেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আবেদনে সাড়া দিয়ে বিপর্যস্ত এলাকা পরিদর্শনে বাংলায় আসেন প্রধানমন্ত্রী। হেলিকপ্টারে মমতাকে সঙ্গে নিয়ে ঘুরে দেখেন দুই ২৪ পরগনার ক্ষয়ক্ষতি। তারপরই সাংবাদিক সম্মেলন করে মুখ্যমন্ত্রীর কাজের প্রশংসা করেন তিনি। একইসঙ্গে বিপর্যয়ের সময় বাংলার পাশে দাঁড়াতে ১০০০ কোটি টাকা সাহায্যের কথাও ঘোষণা করেন। সেইমতো কিছুদিন পরেই সেই টাকা রাজ্যকে দেয় কেন্দ্র। এদিনও ‘মন কি বাত’ অনুষ্ঠানে কথায় কথায় আমফান পরবর্তী পরিস্থিতিতে বাংলা ও ওড়িশা সরকারের ভূমিকা প্রশংসাসূচক বাক্য বেরিয়ে আসে প্রধানমন্ত্রীর মুখ থেকে।

[আরও পড়ুন: পঙ্গপালের হানাদারি ঠেকাতে কী করছে কেন্দ্র, মোদির ‘মন কি বাত’-এ মিলল না উত্তর]

এদিন তিনি বলেন, “আমফানের দাপটে ছারখার হয়েছে বাংলা ও ওড়িশা। ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছে দুই রাজ্যের চাষিরা। আমি পরের দিনই দুই রাজ্য পরিদর্শনে গিয়েছিলাম। সেখানকার মানুষ যেভাবে পরিস্থিতির মোকাবিলা করছে, তা নিসন্দেহে সাহসিকতার পরিচয়।” দুই রাজ্য যেভাবে আমফানের তাণ্ডবের মোকাবিলা করেছে, তা নিসন্দেহে সাহসিকতার পরিচয় বলে মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী।

[আরও পড়ুন: পরিযায়ী শ্রমিকদের দুঃখ-দুর্দশায় ব্যথিত, একাধিক পদক্ষেপের কথা ঘোষণা মোদির]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement