৮ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২৩ মে ২০১৯ 

Menu Logo নির্বাচন ‘১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

শুভদীপ রায়নন্দী, শিলিগুড়ি: ফের পাহাড় বান্ধব এক পদক্ষেপ নিচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ দার্জিলিং লোকসভা কেন্দ্র থেকে তৃণমূলের প্রতীকচিহ্নে অমর সিং রাইকে প্রার্থী করা হয়েছে৷ এবার বিধানসভা উপনির্বাচনেও মোর্চার প্রার্থী দাঁড়াচ্ছেন বিনয় তামাং,যিনি তৃণমূল সুপ্রিমোর পছন্দের প্রার্থী৷  অমর সিং রাই পদত্যাগ করায় সেই পদ পূরণের জন্য লড়ছেন জিটিএ চেয়ারম্যান বিনয় তামাং৷ তাঁকে পূর্ণ সমর্থন দেবে তৃণমূল৷ আগামী ২৬ তারিখ তিনি মনোনয়ন পেশ করবেন৷ দার্জিলিং বিধানসভা আসনে উপনির্বাচন ১৯ মে৷

[ আরও পড়ুন : নিখোঁজ রহস্য উদ্ঘাটনে মুখ্যমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ দাবি নোডাল অফিসারের স্ত্রীর]

মঙ্গলবার দার্জিলিংয়ে জর্জ বাজারে মোর্চার দলীয় কার্যালয়ে কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আলোচনার পর সাংবাদিক বৈঠকে বিনয় তামাংকে প্রার্থী করার কথা জানান গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্যা তথা মহিলা মোর্চার সভানেত্রী শিরিং দাহাল। এদিনের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন জিটিএ চেয়ারম্যান তথা মোর্চার সভাপতি বিনয় তামাং-সহ সভাপতি অনীত থাপা,সতীশ পোখরেল, কার্শিয়াংয়ের মোর্চা বিধায়ক রোহিত শর্মা। আগামী ২৬ এপ্রিল বিনয় তামাং মনোনয়ন জমা দেবেন বলে জানা গিয়েছে। মনোনয়নের পর গোর্খা টেরিটোরিয়াল অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের (জিটিএ)-এর চেয়ারম্যান পদ থেকে ইস্তফা দেবেন তিনি। বিনয় তামাংয়ের প্রার্থী হওয়ার বিষয়টি চাউর হতেই পাহাড়ের রাজনীতিতে শোরগোল পরে গিয়েছে। বিনয় তামাং জয়ী হলে তাঁকে পাহাড় সংক্রান্ত মন্ত্রিপদ দিতে হবে বলে এখনই দাবি তুলছে মোর্চা নেতৃত্ব৷

এই বিষয়ে শিরিং দাহাল বলেন, “রাজ্য সরকারের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে পাহাড়ের উন্নয়ন করাই আমাদের মূল লক্ষ্য। আর সেই কাজ একমাত্র দলের সভাপতি বিনয় তামাং করতে পারবেন বলে আমরা নিশ্চিত। এদিনের বৈঠকে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার সমস্ত শাখার নেতৃত্ব ও কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্যরা আলোচনা করে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি।” এছাড়া তিনি জানান,পাহাড়বাসীর জমির পাট্টা, কর্মসংস্থান, সোনাদা ও রিম্বিককে পুরনিগমে উন্নিত করা সহ একাধিক দাবি রয়েছে। এইসব দাবিকে সামনে রেখে প্রচারে নামবে মোর্চা। আরও জানান,৮২ শতাংশ পাহাড়বাসীর কাছে জমির নথি নেই। দার্জিলিংয়েই  প্রায় দু’হাজার মানুষের কাছে জমির নথি নেই। শিরিং দাহালের অভিযোগ, বিজেপির সঙ্গে মিলে বিমল গুরুং, রোশন গিরি ও জিএনএলএফ পাহাড়বাসীর সঙ্গে প্রতারণা করছে৷ এনআরসি লাগু করে পাহাড়বাসীকে পাহাড় থেকে তাড়িয়ে দেওয়ার ষড়যন্ত্র করছে।  

[ আরও পড়ুন : মোদি ভেবে আলুওয়ালিয়াকে ঘিরে হুল্লোড় পড়ুয়াদের, ভাতারের ঘটনায় খুশি প্রার্থীও]

অন্যদিকে, দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে হরকাবাহাদুর ছেত্রীর ‘জন আন্দোলন পার্টি’র তরফে দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অমর লামা বিধানসভা আসনের জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন৷ ২০০৪ সালে তিনি দার্জিলিংয়ের বিধানসভা নির্বাচনে লড়েছিলেন। পাশাপাশি বিমলপন্থী মোর্চা, জিএনএলএফ ও বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে,জিএনএলএফের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অজয় এডওয়ার্ডকে প্রার্থী করার কথা ভাবা হচ্ছে। লোকসভা নির্বাচনের পর দার্জিলিং আসনে বিধানসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ফের একবার সরগরম হতে চলেছে শৈল শহরের রাজনীতি।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং