BREAKING NEWS

১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

দেওয়াল ‘চুরি’! অভিযোগ ঘিরে কাঁকসায় তৃণমূল-বিজেপির ঝামেলা

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: March 29, 2019 5:29 pm|    Updated: April 17, 2019 6:16 pm

An Images

সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, দুর্গাপুর: ভোটের মরশুমে দেওয়াল লিখন ঘিরে বিপত্তি। দেওয়াল ‘চুরির’ অভিযোগ তুলে একে অপরকে কাঠগড়ায় তুলেছেন তৃণমূল ও বিজেপি – দু’পক্ষ। একই দেওয়ালে দুই দলের প্রতীক দেখে কানাঘুষো শুরু করেছেন বর্ধমান-দুর্গাপুর লোকসভা কেন্দ্রের বাসিন্দারা।  

[আরও পড়ুন: জয়নগরে বিপজ্জনক বাড়ির ঝুল বারান্দা ভেঙে দুর্ঘটনা, চাঙড় চাপা পড়ে মৃত ২]

দুর্গাপুরের কাঁকসা থানা এলাকার ট্যাঙ্কিতলায় একটি অভিনব দেওয়াল লিখনই আম ভোটারের নজর কাড়ছে। বিস্ময় প্রকাশ করছেন সকলেই। বহু মানুষের কাছে আবার হাসির খোরাক এই দেওয়াল লিখন। কিন্তু কী আছে সেই দেওয়ালে?  দেওয়ালের একটি অংশ জুড়ে লেখা ভারতীয় জনতা পার্টির নাম। দলীয় প্রতীকও আঁকা রয়েছে। আবার সেই দেওয়ালেরই আরেক দিকে লেখা, আগামী ২৯ এপ্রিল তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী মমতাজ সংঘমিতাকে ঘাসফুল চিহ্নে ভোট দিয়ে জয়ী করুন।

আর এই ঘটনা  দুশ্চিন্তা বাড়িয়েছে প্রশাসনের। কারণ, দু’পক্ষই একে অপরের বিরুদ্ধে দেওয়াল দখলের অভিযোগ এনেছে।  কিন্তু প্রথম কোন দল লিখেছিল দেওয়াল?  তার হদিশ পেতেই কালঘাম ছুটেছে ব্লক প্রশাসনের। জেলার বিভিন্ন প্রান্তে এত দেওয়াল লিখন, এত প্রচারের মাঝে এই দেওয়ালই এখন বর্ধমান-দুর্গাপুর লোকসভা কেন্দ্রের দুর্গাপুর মহকুমায় সবথেকে আলোচিত বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

[আরও পড়ুন: চড়ার অধিকার চাই, বারাসতে লেডিস স্পেশ্যাল ট্রেন অবরোধ পুরুষ যাত্রীদের]

 এ প্রসঙ্গে বর্ধমান-দুর্গাপুর লোকসভা কেন্দ্রে বিজেপির যুগ্ম আহ্বায়ক রমন শর্মা জানিয়েছেন, ‘আমরা বহু আগেই এই দেওয়াল দখল করেছিলাম। প্রার্থী ঘোষণা না হওয়ায় দলের নাম ও প্রতীক এঁকে রেখেছিলাম।’ বিজেপির নাম ও প্রতীকের মাঝে ফাঁকা জায়গায় তৃণমূল প্রার্থীর নাম লিখে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ তাঁর। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। দলের জেলার কার্যকারী সভাপতি উত্তম মুখোপাধ্যায় জানিয়েছেন, ‘আমাদের প্রার্থীর নাম লেখার পর রং ফুরিয়ে যায়। পরের দিন ফের লেখার কথা ছিল। কিন্তু তার আগেই বিজেপি তাদের দলের নাম ও প্রতীক আঁকে সেখানে।’  গোটা ঘটনাটি জানিয়ে ইতিমধ্যেই দুই দল কাঁকসার বিডিও-এর কাছে দেওয়াল দখলের অভিযোগ করছে।তা খতিয়ে দেখছে ব্লক প্রশাসন। তবে নির্বাচনের বেশ গুরুগম্ভীর আবহের মধ্যেও  এসব রঙ্গ কম উপভোগ করছেন  এলাকাবাসী৷

ছবি: উদয়ন গুহরায়

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement