২ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মেলেনি অ্যাম্বুল্যান্স, বেলেঘাটা আইডিতে রেফারের পরও বনগাঁ হাসপাতালে পড়ে বৃদ্ধ

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: March 14, 2020 2:49 pm|    Updated: March 14, 2020 4:40 pm

An Images

ফাইল ফটো

জ্যোতি চক্রবর্তী, বনগাঁ: জ্বর নিয়ে বনগাঁ হাসপাতালে ভরতি হয়েছিলেন এলাকার বাসিন্দা এক বৃদ্ধ। উপসর্গ দেখে করোনা সন্দেহ হওয়ায় হাসপাতালের তরফে তাঁকে বেলেঘাটা আইডিতে রেফার করা হয়। কিন্তু শুক্রবার রাত থেকে শনিবার দুপুর গড়িয়ে গেলেও মেলেনি অ্যাম্বুল্যান্স। যার জেরে এখনও হাসপাতালে পড়ে রয়েছেন বৃদ্ধ। প্রবল সমস্যায় পরিবার।

কিছুদিন আগেই ক্যানসার চিকিৎসার জন্য দিল্লি গিয়েছিলেন বনগাঁর মুস্তাফিপাড়ার বাসিন্দা বছর ৭৪-এর গৌতম মুখোপাধ্যায়। সদ্যই ফিরেছেন বনগাঁয়। এরপর থেকেই জ্বর-সর্দি ও কাশি শুরু হয় তাঁর। বাড়িতে পর্যবেক্ষণ করার পর শুক্রবার তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় বনগাঁ মহকুমা হাসপাতালে। করোনা সন্দেহে তাঁকে আইসোলেশনে রেখে শুরু হয় চিকিৎসা। এরপর রাতে তাঁকে বেলেঘাটা আইডিতে রেফার করা হয় হাসপাতালের তরফে। এখানেই বিপত্তি। হাসপাতাল রেফার করলেও মেলেনি অ্যাম্বুল্যান্স। যার ফলে শনিবার দুপুর গড়িয়ে গেলেও বেলেঘাটা হাসপাতালে যেতে পারেননি ওই বৃদ্ধ। বিকল্প ব্যবস্থা করেও বৃদ্ধকে বেলেঘাটা আইডিতে নিয়ে যেতে পারেননি পরিবার।

[আরও পড়ুন: পরীক্ষকের কাছে পৌঁছনোর আগেই হারিয়ে গেল মাধ্যমিকের খাতা, কাঠগড়ায় শিক্ষক]

এ বিষয়ে কথা বলা হলে হাসপাতালের সহকারী সুপার সপ্তর্ষি চৌধুরি বলেন, “হাসপাতালে দুটি অ্যাম্বুল্যান্স রয়েছে। তার মধ্যে একটি মাতৃযান। অপরটির চালক যেতে রাজি হচ্ছেন না। অন্য কোনও গাড়ি এমনকী বেসরকারি অ্যাম্বুল্যান্সও যেতে রাজি হয়নি এখনও।” গোটা ঘটনায় আতান্তরে ওই বৃদ্ধের পরিবারের সদস্যরা। কীভাবে গৌতমবাবুকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হবে তা ভেবে কুল কিনারা পাচ্ছেন না তাঁরা। পাশাপাশি ওই বৃদ্ধ যদি সত্যি করোনা আক্রান্ত হয়ে থাকেন, সেক্ষেত্রে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ার আশঙ্কা করছেন চিকিৎসকরা।

[আরও পড়ুন: ভোররাতে আচমকাই ধসে পড়ল বাড়ি, একই পরিবারের ৩ জনের মৃত্যু দার্জিলিংয়ে]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement