BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

প্রাপ্যের তুলনায় মিলছে কম খাদ্যসামগ্রী! রেশন ডিলারকে ঘিরে বিক্ষোভ উন্মত্ত জনতার

Published by: Sayani Sen |    Posted: May 1, 2020 7:40 pm|    Updated: May 1, 2020 7:40 pm

An Images

অতুলচন্দ্র নাগ, ডোমকল: মাল কম দেওয়ার অভিযোগ রেশন দোকানে বিক্ষোভ গ্রামবাসীদের। শুক্রবার সকালের ওই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায় মুর্শিদাবাদের জলঙ্গির ফরিদপুর গ্রামের ডিলার সাইদুল ইসলামের রেশন দোকানে। পরিস্থিতি এতটাই উত্তপ্ত হয় যে লকডাউনের নিয়মও মানা হয়নি। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে বিশাল পুলিশ বাহিনী পৌঁছয়। পুলিশ আধিকারিকরা উন্মত্ত জনতার সঙ্গে কথা বলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আধিকারিকদের কাছে পেয়ে বিক্ষোভকারীরা ক্ষোভ উগরে দেন।

বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ, রেশনে যাঁর প্রাপ্য ২০ কেজি চাল, তাঁকে দেওয়া হচ্ছে ১৮ কেজি। আবার কারও পাওনা ৩০ কেজি তো তাঁকে দেওয়া হচ্ছে ২৭ কেজি চাল। দিনের পর দিন রেশন ডিলার সাইদুল ইসলাম তাঁদের প্রাপ্য মাল কম দিয়ে আসছে। এ নিয়ে প্রতিবাদ করেও কোনও সুরাহা হয়নি বলেই অভিযোগ তাঁদের। খায়রুল ইসলাম নামের এক বিক্ষোভকারী বলেন, “লকডাউনের জেরে মানুষের এখন খুব দুর্দিন চলছে। সরকার রেশনের মাধ্যমে কিছু চাল দিয়ে সহায়তা করার চেষ্টা করছে। কিন্তু রেশন ডিলার সেখান থেকে মালপত্র কেটে নিচ্ছে। তাই বাধ্য হয়ে আমাদের প্রতিবাদ করতে হচ্ছে। কিন্তু ওই ডিলার তাতেও নিজেকে না শুধরে, উলটে দেখে নেওয়ার হুমকি দিয়েছেন। তখনই মানুষ ক্ষোভে ফেটে পড়েন।”

[আরও পড়ুন: ত্রাণ বিলি নিয়ে ফের রণক্ষেত্র বসিরহাট, গুলিবিদ্ধ যুবক]

ওই ঘটনার তদন্তে নেমে ডোমকলের এসডিপিও ফারুক মহম্মদ চৌধুরি বলেন, “মুখ্যমন্ত্রী যেমন বলেছেন গরিবের মাল গরিব পাবে। কোনও মাল এদিক ওদিক হবে না। আমরাও সেটাই বলছি। রেশান ডিলারের কিছু কারচুপি ধরা পড়েছে। ওই ব্যাপারে নিশ্চয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে এটাও ঠিক সকলেই জানেন না, তাঁদের কোন মাল কতটা প্রাপ্য।” তিনি অবুঝ গ্রাহকদের বুঝিয়ে বলার জন্য স্থানীয় যুবকদের সাহায্য করার আহ্বান জানান। পরে আরও বলেন, “ডিলারের বেশ কিছু কারচুপি ও ভুল ধরা পড়েছে। যার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।” ওই ব্যাপারে জলঙ্গি ব্লক ও মহকুমা প্রশাসন ওই ডিলারের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

বিডিও কৌস্তভ কান্তি দাস বলেন, “আপাতত যে মাল ডিলারের কাছে আছে তা ওই ডিলারকে দিয়েই বিতরণ করা হবে। তবে ওই ব্যাপারে প্রশাসেনের লোকেরা উপস্থিত থাকবেন। আর পরের মাস থেকে অন্য কোথাও ব্যবস্থা করা হবে।” বিক্ষোভকারীরাও ওই ডিলারের ডিলারশিপ বাতিলের দাবি করেছিলেন। তবে ডিলার সাইদুল ইসলামের ছেলে ইমাম ইকবাল বলেন, “আমরা মানুষের সঙ্গেই আছি। কিছু ভুল ত্রুটি থাকলে তা সংশোধন করে নেব। তাই বলে ডিলারশিপ বাতিল করে দূরে কোথাও মাল বিতরণের ব্যাবস্থা করলে এলাকার মানুষেরই কষ্ট হবে।”

[আরও পড়ুন: অশোকনগরে করোনা আক্রান্ত আরও একজন, কোয়ারেন্টাইনে পরিবার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement