BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ফের লোকসভার লড়াইয়ে আলুওয়ালিয়া, এবার পরীক্ষা বর্ধমান-দুর্গাপুর কেন্দ্রে

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: April 7, 2019 3:24 pm|    Updated: August 20, 2020 10:07 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ৫ বছর ধরে দার্জিলিংয়ের সাংসদ ছিলেন কার্যত নামকাওয়াস্তে৷ কোনও পরিস্থিতিতে তাঁকে পাহাড়ে সেভাবে পাওয়া যায়নি৷ জনপ্রতিনিধি হিসেবে পারফরম্যান্স খুব খারাপ৷ এনিয়ে পাহাড়বাসীর মধ্যে বিক্ষোভও রয়েছে প্রবল৷ সেই সুরিন্দর সিং আলুওয়ালিয়া এবারের লোকসভায় আর টিকিট পাবেন না৷ কিন্তু রাজনীতিতে তো শেষলগ্নেও চমক থাকে৷ তেমনই চমকপ্রদ ঘটনা ঘটল বর্ধমান-দুর্গাপুর কেন্দ্রে৷ বাকি থাকা এই কেন্দ্রে একেবারে শেষ পর্যায়ে প্রার্থী হিসেবে আলুওয়ালিয়ার নাম ঘোষণা করে দিল বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব৷

[ আরও পড়ুন: ‘দিল্লির বাবুরা পাহাড় জ্বালায়’, নির্বাচনী প্রচারে নাম না করে মোদিকে কটাক্ষ মমতার]

এসএস আলুওয়ালিয়া ২০১৪ সালে দার্জিলিং কেন্দ্র থেকে নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী তৃণমূলের বাইচুং ভুটিয়াকে হারিয়ে সাংসদ হয়েছিলেন৷ এমনিতেই দার্জিলিং কেন্দ্র বরাবর বিজেপির শক্ত ঘাঁটি৷ সেই হাওয়াতেই হোক কিংবা ভাল কিছু পাওয়ার আশায়, বিজেপি প্রার্থী আলুওয়ালিয়াকে জনপ্রতিনিধি করেছিলেন পাহাড়বাসী৷ কিন্তু ওই পর্যন্তই৷ তারপর থেকে পাহাড়ের কোনও প্রয়োজন-অপ্রয়োজন, বিপদে-আপদে সেভাবে পাশে এসে দাঁড়াননি প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী৷ এমনকী ২০১৭ সালে যখন পৃথক গোর্খাল্যান্ডের দাবি সরকার বিরোধী ক্ষোভ মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছিল বিমল গুরুংয়ের নেতৃত্বে, সেইসময়ও বিজেপি সাংসদের দেখা মেলেনি৷ পাহাড় পরিস্থিতি নিয়ে তিনি উদাসীনই ছিলেন৷ যখন বিষয়টিতে হস্তক্ষেপ করেন, তখনও তিনি দিল্লি থেকেই আলাপ-আলোচনা চালিয়েছিলেন৷ দার্জিলিংয়ের মাটিতে ক’বার পা দিয়েছেন, তা বোধহয় গুনেও বলতে পারেন না পাহাড়বাসী৷ এই পরিস্থিতিতে নিজের কেন্দ্রেই চরম বিরোধিতার মুখে পড়েছিলেন আলুওয়ালিয়া৷ জনসমর্থন হারিয়ে ফেলছিলেন সেইসময় থেকেই৷ চিহ্নিত হয়ে গিয়েছিলেন ‘বহিরাগত’ হিসেবে৷

এসবের পর দার্জিলিং কেন্দ্র থেকে ফের প্রার্থীপদ পাওয়া আলুওয়ালিয়ার পক্ষে আর সম্ভব নয়, তাও স্পষ্ট হয়ে গিয়েছিল৷ বিজেপি-র প্রার্থী তালিকা প্রকাশিত হওয়ার পর মিলে গেল সম্ভাবনা৷ দার্জিলিং কেন্দ্র থেকে বিজেপির হয়ে লড়বেন ভূমিপুত্র রাজু বিস্ত৷ মনে করা হচ্ছিল, এবার আর আলুওয়ালিয়ার ভোটে লড়া হল না৷ কিন্তু ভোট শুরুর দিন কয়েক আগে তাঁকে বর্ধমান-দুর্গাপুর কেন্দ্র থেকে প্রার্থী ঘোষণা করল বিজেপি কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব৷ এই কেন্দ্রে প্রার্থী বাছতে হিমশিম খেতে হয়েছিল অমিত শাহদের৷ রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় বা ফ্যাশন ডিজাইনার অগ্নিমিত্রা পলের নাম ঘোরাফেরা করছিল৷ কিন্তু সেই জল্পনা পুরোপুরি মুছে দিয়ে বেছে নেওয়া হল আলুওয়ালিয়াকে৷ বৈবাহিক সূত্রে এখানকারই জামাই তিনি৷ তাই কিছুটা চেনা জায়গা হলেও, তৃণমূলের সঙ্গে লড়াইটা এখানে কঠিন৷ তারউপর আবার আলুওয়ালিয়ার দুই শ্যালক তাপস বন্দ্যোপাধ্যায়, জহর বন্দ্যোপাধ্যায় যথাক্রমে দুর্গাপুর উন্নয়ন নিগমের চেয়ারম্যান এবং আসানসোল পুরনিগমের মেয়র পারিষদ৷ ফলে শ্বশুরবাড়ির পরিবার এই মুহূর্তে আলুওয়ালিয়ার সম্পূর্ণ বিপরীতে৷ তাই আবারও এক নতুন পরীক্ষার মুখে দিল্লি ঘনিষ্ঠ এই বিজেপি নেতা৷ নাম ঘোষণার পর থেকেই এলাকায় শুরু হয়ে গিয়েছে দেওয়াল লিখন৷ 

                              [ আরও পড়ুন:  গভীর রাতে গ্রামে বোমাবাজি, ভোটের মুখে আতঙ্ক বীরভূমের নলহাটিতে]

এদিন আলুওয়ালিয়ার নাম ঘোষণার পাশাপাশি এদিন নদিয়ার কৃষ্ণগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রে উপনির্বাচনে বিজেপি প্রার্থীর নামও ঘোষণা হয়েছে৷ ওই কেন্দ্রে লড়ছেন স্থানীয় বিজেপি নেতা আশিস কুমার বিশ্বাস৷ শনিবারই পুরুলিয়া লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেছে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব৷ জেলার সাধারণ সম্পাদক জ্যোতির্ময় সিং মাহাতোকে প্রার্থী করেছে বিজেপি।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement